Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২০ , ১৩ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.3/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৫-০৫-২০১৪

স্ত্রী গর্ভবতী হলে ৮টি কাজ আপনাকে অবশ্যই করতে হবে

গর্ভকালে মহিলাদের অনেক নিয়ম-কানুন মেনে চলতে হয়, কেননা একটুখানি অসাবধানতা গর্ভের শিশুটির জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে। এই সময়ে মেয়েদের অনেকখানি শারীরিক ও মানসিক অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয়। ফলে তাদের অনেক বেশি সাহায্য ও ভালোবাসার প্রয়োজন, যা কিনা মা ও শিশু উভয়কেই ভালো রাখবে। আপনার স্ত্রী গর্ভবতী হলে যে কয়েকটি বিষয়ে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে আপনার সেগুলো জেনে নেই আসুন।

স্ত্রী গর্ভবতী হলে ৮টি কাজ আপনাকে অবশ্যই করতে হবে

১. নিয়ম মেনে খাওয়া :
গর্ভবতী মহিলাদের জন্য নিয়ম মেনে খাওয়া খুবই দরকার। এমনিতেই তাদের একটু পর পর ক্ষুধা লেগে থাকে। এজন্য খাবারের মেইন মেন্যুর পাশাপাশি এক ঘণ্টা পর পর হালকা খাবার খাওয়ানো উচিৎ। গর্ভের মধ্যে শিশুটির বেড়ে ওঠা নির্ভর করে এই নিয়মিত খাওয়ার উপরে। এজন্য আপনার গর্ভবতী স্ত্রীকে রুটিন করে প্রোটিন, আমিষ, শর্করা সবধরনের খাবার খাওয়ান।

২. পছন্দমত খাবার গ্রহণ :
আপনার স্ত্রীর পছন্দমত খাবার বাসায় নিয়ে আসুন। আপনি হয়ত অনেক খাবারই পছন্দ করেন যা আপনার স্ত্রী পছন্দ করেন না। সেক্ষেত্রে গর্ভকালীন সময়ে আপনার স্ত্রীর যেন এই বিষয়ে কোনো সমস্যা না হয় সেদিকে খেয়াল রাখুন। তিনি কী পছন্দ করেন তাকে সেটি খাওয়ান।

৩. ওজন মাপুন :
আপনার স্ত্রীর গর্ভকালীন সময় পার হওয়ার সাথে সাথে ওজনের তারতম্য কতটা ঘটলো এই বিষয়ে খেয়াল রাখুন। অর্থাৎ ডাক্তারের পরামর্শ মত একটা নির্দিষ্ট সময় পর পর ওজন মাপুনঅ এতে বুঝতে পারবেন আপনার শিশুটির বেড়ে ওঠা ঠিকমত হচ্ছে কি না।

৪. তাকে মোটা বলা থেকে বিরত থাকুন :
নারীরা গর্ভবতী হলে স্বাভাবিকভাবেই একটু মোটা হয়ে যান। এক্ষেত্রে হয়তো তারা একটু চিন্তায় পড়ে যান যে এই মোটা হওয়াটা পরে নিয়ন্ত্রণে আনতে পারবেন কি না। এজন্য আপনার স্ত্রীকে কখনও ভুল করেও বলবেন না যে ‘তুমি অনেক মোটা হয়ে যাচ্ছ’। এতে তারা আরও বেশি চিন্তায় পড়ে যাবে যার ফলে গর্ভের বাচ্চার ক্ষতি হতে পারে।

৫. অলস বলবেন না :
শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকার কারণে আপনার স্ত্রী হয়ত অনেক বেশি ঘুমোচ্ছেন বা কোনো কাজ কাজ করার শক্তি পাচ্ছেন না। এজন্য আপনার স্ত্রীকে কখনই অলস বলবেন না। বরং বুঝতে চেষ্টা করুন যে তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ বলেই এমন করছেন।

৬. শারীরিক মিলন থেকে বিরত থাকুন :
আপনি ভাবুন আপনি বাবা হতে চলেছেন। তাই গর্ভের শিশুটির কথা ভেবে শারীরিক মিলন থেকে বিরত থাকুন। এর পরিবর্তে গর্ভবতী স্ত্রীর শারীরিক যত্ন নিন।

৭. অভিযুক্ত করা থেকে বিরত থাকুন :
আপনার স্ত্রী শারীরিকভাবে অসুস্থ হওয়ার কারণে হয়ত আপনাকে সময় বেশি দিতে পারছেন না। আপনার সাথে নিবিড় কিছু সময় কাটাতে পারছেন না। এজন্য আপনার স্ত্রীকে কখনই দোষারোপ করবেন না। এতে এমনও হতে পারে আপনার স্ত্রী মানসিকভাবে ভেঙে পড়তে পারে। যার কারণে আপনার শিশুর ক্ষতি হতে পারে।

৮. স্ত্রীকে ভালোবাসুন :
ভালোবাসা মানে শুধু শারীরিক মিলন নয়। আপনার যদি কোনো ধরনের বদ অভ্যাস থেকে থাকে অর্থাৎ স্ত্রীকে শারীরিকভাবে নির্যাতনের অভ্যাস থাকে যেমন মারধর এসব থেকে সম্পূর্ণ বিরত থাকুন। আপনার স্ত্রী একটি মানব শিশুকে জন্ম দিতে যাচ্ছে। এজন্য তিনি শারীরিকভাবে অনেক অসুস্থ থাকেন। এ সময় যদি তাকে শারীরিক নির্যাতন করেন তাহলে তার অবস্থা অনেক খারাপ হয়ে যাবে। এতে আপনার শিশুর ক্ষতিও হতে পারে। এছাড়া তাকে মানসিকভাবেও কোনোভাবে নির্যাতন করবেন না। এর পরিবর্তে তাকে অনেক বেশি ভালোবাসুন।

 

সচেতনতা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে