Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 1.5/5 (124 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৫-০৩-২০১৪

নারায়ণগঞ্জের অপহৃত সাইফুল সাভারে উদ্ধার

নারায়ণগঞ্জের অপহৃত সাইফুল সাভারে উদ্ধার

ঢাকা, ০৩ মে- সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় এলাকা থেকে অপহৃত ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলামকে ২৬ ঘণ্টা পর সাভার থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টায় ঢাকার সাভার থানার নবীনগর থেকে হাত-পা বাঁধা অসুস্থ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নারায়গঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) ড. মুঈদ উদ্দিন।

তিনি জানান, অপহরণকারীরা সাইফুল ইসলামকে রাস্তায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে র‌্যাব-৬ এর সদস্যরা তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল মতিন জানান, সাইফুল ইসলামকে নবীনগর এলাকার একটি রাস্তায় হাত-পা বাঁধা অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী র‌্যাব ও পুলিশকে খবর দেয়। পরে র‌্যাব গিয়ে সাইফুলকে উদ্ধার করে। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এসআই উত্তম নবীনগরে গেছেন। সাইফুল বর্তমান র‌্যাব-৬ কার্যালয়ে আছেন।

অপহৃত সাইফুল ইসলাম সানারপাড়ের সোনামিয়া মার্কেটের সামিয়া সুপার শপের মালিক।

এদিকে ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলামের অপহরণকারী সন্দেহে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার হান্নানকে (৩৫) আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে তিনি অপহৃত হন। অপহরণের পর থেকে তার সেলফোনটি বন্ধ রয়েছে।

পরে দোকানের ম্যানেজার আব্দুল হান্নানের কাছে ০১৭৯৪৬০৪১১৩ নম্বর থেকে অপহরণকারীরা ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। বিষয়টি সাইফুলের স্ত্রীর কাছে সন্দেহজনক মনে হলে তিনি পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করেন। পরে পুলিশ শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হান্নানকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

অপহৃতের স্ত্রী আফরীন সুলতানা জানান, সাইফুলের সঙ্গে কারো কোনো দ্বন্দ্ব ছিল না।
বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার পরে দোকান বন্ধ করে বের হওয়ার পরে সানারপাড় বাসস্ট্যান্ড থেকে তিনি অপহৃত হন। পরে দোকানের ম্যানেজার আব্দুল হান্নানের কাছে অপহরণকারীরা ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।

সাইফুল অপহরণের প্রতিবাদের শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে বিক্ষুব্ধ সানারপাড় এলাকার শত শত ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে ওঠার চেষ্টা করে। পুলিশ এ সময় বাধা দেয়ার চেষ্টা করলেও এলাকাবাসীর প্রতিবাদের মুখে পুলিশের বাধা কোনো কাজে আসেনি। পরে বেলা পৌনে ১২টায় শত শত বিক্ষুদ্ধ জনতা ঢাকা-চট্রগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে। এতে ওই সড়কে সকল প্রকার যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে সাইফুলকে উদ্ধার করার প্রতিশ্রুতি দেয় পুলিশ। এ সময় জনতা অবরোধ তুলে নেয়। কিন্তু সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত তাকে উদ্ধার করতে না পারায় ফের তারা ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সানারপাড় এলাকা থেকে মৌচাক পর্যন্ত রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকে। এসময় মহাসড়কের যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

এর আগে গত ২৭ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জে ৭ জনকে অপহরণের পর হত্যা করে লাশ শীতলক্ষ্যা নদীতে ফেলে দেয় অপহরণকারীরা।

নারায়নগঞ্জ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে