Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২০ জানুয়ারি, ২০২০ , ৭ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 4.3/5 (25 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-২৩-২০১২

সীমান্ত হত্যাকাণ্ড নিয়ে সরকারের ভূমিকায় সন্তুষ্ট সংসদীয় কমিটি

সীমান্ত হত্যাকাণ্ড নিয়ে সরকারের ভূমিকায় সন্তুষ্ট সংসদীয় কমিটি
সীমান্তে একের পর এক হত্যাকাণ্ড এবং নির্যাতনের ঘটনা নিয়ে সরকারের ভূমিকায় সন্তুষ্ট পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়-বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। আজ মঙ্গলবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে সরকারি দলের সাংসদেরা এই মত দেন।
তবে কমিটির সদস্য বিএনপির সাংসদ এ এম মাহবুব উদ্দিন বৈঠকে ভারতীয় বিএসএফ কর্তৃক সীমান্তে বাংলাদেশি হত্যার ঘটনা সম্পর্কে সরকারের ভূমিকার তীব্র সমালোচনা করেন। বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বিস্ময়করভাবে সীমান্তে মানুষ হত্যা নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি উদ্বিগ্ন নয়। এটি একটি অকার্যকর কমিটি। গত ৩৬ মাসে ৩৬টি বৈঠক হওয়ার কথা থাকলেও হয়েছে মাত্র ১৩টি। সীমান্তের ঘটনা নিয়ে সরকারও উদ্বিগ্ন নয়। তাই তারা এ জাতীয় ঘটনার তাত্ক্ষণিক প্রতিবাদ জানাতে পারে না।
গত সপ্তাহে সীমান্তে চাঁপাইনবাবগঞ্জের হাবিবুর রহমানের নির্যাতনের খবর ভারতসহ বাংলাদেশের গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। এ নিয়ে দুই দেশের মানবাধিকারকর্মীরা নিন্দা জানান। সূত্র জানায়, আজ বিএনপির সাংসদ মাহবুব উদ্দিন বিষয়টি সংসদীয় বৈঠকে উত্থাপন করেন।
বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি আবুল হাসান মাহমুদ আলী সংবাদ ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকের বলেন, একটি বন্ধুপ্রতিম দেশের সঙ্গে যেভাবে আলোচনা করা উচিত বর্তমান সরকার ভারতের সঙ্গে সীমান্ত হত্যাকাণ্ড নিয়ে সে ধরনের আলোচনা করছে।
বিভিন্ন সময়ে সীমান্তে নির্যাতন নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দেরিতে প্রতিবাদ পাঠানো বিষয়ে জানতে চাইলে কমিটির সভাপতি বলেন, ‘সরকার বা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তো গণমাধ্যম নয় যে তাত্ক্ষণিক প্রতিবাদ পাঠাতে হবে। সরকারকে সবকিছু বুঝেশুনেই প্রতিবাদ পাঠাতে হয়।’
মাহমুদ আলী জানান, বর্তমান সরকারে আমলে গত তিন বছর সীমান্তে প্রতি মাসে কী পরিমাণ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে, তার তালিকা মন্ত্রণালয়ের কাছে চাওয়া হয়েছে। কমিটির আগামী বৈঠকে তা উপস্থাপন করা হবে। তিনি বলেন, বর্তমানে সীমান্তে হত্যাকাণ্ড অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে কম। প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সম্পর্ক যত গভীর হয়, ততই এ ধরনের ঘটনা কমতে থাকে। বর্তমান সরকারের ক্ষেত্রেও তা-ই হচ্ছে।
ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি নতজানু, বিরোধী দলের এ অভিযোগ সম্পর্কে মাহমুদ আলী বলেন, টক শোতে অনেক কথাই বলা যায়। কিন্তু সংসদে দায়িত্ব নিয়ে কথা বলতে হয়। বিরোধী দল সংসদে আসুক, তাদের কথা বলুক। এটাই কথা বলার আসল জায়গা।
আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীমন্ত্রী দীপু মনি, মুহাম্মদ ইমাজউদ্দিন প্রামাণিক, ইমরান আহমদ, মোস্তফা ফারুক মোহাম্মদ, এ এম মাহবুব উদ্দিন ও নাজমা আকতার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে