Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২০ জানুয়ারি, ২০২০ , ৭ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 1.9/5 (17 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৪-২৭-২০১৪

ক্রিকেটের গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট নেই বিসিবির কাছে

শেখ সাদী


ক্রিকেটের গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট নেই বিসিবির কাছে

ঢাকা, ২৭ এপ্রিল- বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) যাত্রা শুরু ১৯৭২ সাল থেকে। এরপর দেখতে দেখতে প্রায় তিন যুগ অতিক্রম করেছে এ প্রতিষ্ঠানটি। অবশ্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে যাত্রা শুরু ২৯ বছর আগে। এর মধ্যে ১৯৯৭ সালের আইসিসি ট্রফি ছিল বাংলাদেশের ঐতিহাসিক অর্জন। টেস্ট ক্রিকেটের দশম সদস্য হিসেবে বাংলাদেশের যাত্রা শুরু হয় ২০০০ সালে। কিন্তু বিসিবির নিজস্ব কোনো আর্কাইভ বা লাইব্রেরি না থাকায় ক্রিকেটের বড় বড় সাফল্যের গুরুত্বপূর্ণ তথ্যই খোয়া গেছে।

১৯৭২ সালে ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ছোট্ট একটি রুমে ছোট্ট একটি অফিসে গড়ে উঠে বিসিবি। এরপর আস্তে আস্তে এগিয়ে যেতে থাকে বাংলাদেশের ক্রিকেট। ক্রিকেটের উন্নতিতে বড় একটা ভূমিকা ছিল বিসিবির বর্তমান পরিচালক আহম্মেদ সাজ্জাদুল আলম ববির। তাই ৩২ বছর ধরে বিসিবির পরিকালক পদে রয়েছেন তিনি। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সেই দুঃখের দিনগুলোর কথা শনিবার মিরপুরে বসে বলছিলেন ববি।

তিনি জানান, টাকার অভাবে সারাদিন না খেয়েই অফিস করা, খোলা পানি খেয়ে অসুস্থ হয়ে যাওয়ার মত ঘটনাগুলো আজও স্মৃতিতে রয়ে গেছে তার। যে বিসিবিতে বসার চেয়ার পর্যন্ত ছিল না সেই বিসিবি এখন বিলিয়ন বিলিয়ান ডলারের মালিক। কিন্তু এতো কিছুর পরও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের নিজস্ব কোনো আর্কাইভ ও লাইব্রেরি না থাকায় হারিয়ে যাচ্ছে সাফল্যের সব নথিপত্র। এনমকি আন্তর্জাতিক টেস্ট ক্রিকেটে যাত্রা শুরু হওয়ার পরেরও কোনো ডকুমেন্ট বিসিবির সংগ্রহে নেই।

বিসিবির পরিচালক সাজ্জাদুল আলম ববি বলেন, ‘বিসিবির আলাদা কোনো আর্কাইভ ও লাইব্রেরি না থাকায় গত ১৫ বছরের ক্রিকেটে সাফল্যের ডকুমেন্টগুলো হারিয়ে গেছে। তবে এখন নতুন করে আর্কাইভ ও লাইব্রেরি করার উদ্যোগ নিয়েছে বিসিসি। খুব তাড়াতাড়ি বিসিবির নিজস্ব একটি আর্কাইভ ও বড় লাইব্রেরি করা হবে। সেখানে দেশের ক্রিকেটের সবকিছু রক্ষিত থাকবে।’

সাজ্জাদুল আলম ববি বলেন, ‘২০০১ সালে বিসিবির আর্কাইভ তৈরি করার জন্য আমাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল। আমার সঙ্গে সাবেক ক্রিকেটার রকিবুল হাসানকেও দায়িত্ব দেয়া হয়। তারপর অনেকগুলো পরিকল্পনাও হাতে নিয়েছিলাম। কিন্তু রাজনৈতিক কারণে আমারা আর সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারিনি।’

তিনি বলেন, ‘এরপর অনেক দিন কেটে গেছে কিন্তু কেউ ক্রিকেটের মূল্যবান ডকুমেন্টগুলো সংরক্ষণের দায়িত্ব নেয়নি। বিশ্বের সবগুলো দেশের ক্রিকেট বোর্ডই তাদের মূল্যবান ডকুমেন্ট সংরক্ষণে রেখেছে। শুধু বাংলাদেশেই সেই ব্যবস্থা নেই, যেটা খুবই দুঃখজনক।’

ব্যক্তিগত উদ্যোগের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ক্রিকেট বোর্ডের উদ্যোগ না থাকলেও আমিসহ অনেকেই ব্যক্তিগতভাবে আমাদের ক্রিকেটের অনেক মূল্যবান ডকুমেন্ট সংগ্রহ করার চেষ্টা করেছি। আসলে বিসিবিই যদি এ কাজ না করে, তাহলে ব্যক্তিগত উদ্যোগে এতো সব সংরক্ষণ করা সম্ভব নয়।’

তিনি আরো বলেন, ‘অনেকগুলো গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের ব্যাট, বল, জার্সি, স্ট্যাম্প আমার নিজের সংরক্ষণে রাখার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু সেগুলো এখন কোথায় আছে তার হিসাব নেই। হয়তো চেষ্টা করলে খুঁজে পাওয়া যাবে। আমি গত ৩২ বছর ধরে বিসিবির সঙ্গে জড়িত। অনেক কষ্ট অনেক স্বপ্ন নিয়েই ক্রিকেট শুরু করেছিলাম। বিশ্বাস ছিল ক্রিকেটের মাধ্যমেই বাংলাদেশ অনেক এগিয়ে যাবে। আজ আমরা অনেক এগিয়েছিও। কিন্তু ক্রিকেটের সেই সাফল্যের স্মৃতিগুলো যদি আমরা সংরক্ষণই না করতে পারি তাহলে কী হবে।’

বিসিবির আলাদা আর্কাইভ ও লাইব্রেরি নিয়ে তিনি আবারও বলেন, ‘বিসিবি নতুন করে উদ্যোগ নিয়েছে ক্রিকেটের মূল্যবান জিনিসগুলো সংরক্ষণের জন্য আর্কাইভ তৈরি করবে। এছাড়াও একটি আলাদা বড় লাইব্রেরি থাকবে যেখানে ক্রিকেটের মূল্যবান সবকিছু যুগ যুগ ধরে সংরক্ষণে রাখা যাবে।’

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে