Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ , ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.7/5 (23 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-২৩-২০১২

দেশে গুম অনেক বেড়েছে-হিউম্যান রাইটস ওয়াচ

দেশে গুম অনেক বেড়েছে-হিউম্যান রাইটস ওয়াচ
ঢাকা, জানুয়ারি ২৩ - হিউম্যান রাইটস ওয়াচ এক প্রতিবেদনে বলেছে, দেশ-বিদেশে সমালোচনার মুখে র‌্যাবের বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড ঘটনা কমলেও গুমের ঘটনা অনেক বেড়েছে।

বিচার-বহির্ভূত হত্যা ও নিরাপত্তা হেফাজতে নির্যাতন তদন্ত ও বিচারে বাংলাদেশ সরকার উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ নেয়নি বলেও মনে করে নিউ ইয়র্ক ভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থাটি।

২০১১ সালের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে সোমবার প্রকাশিত এ প্রতিবেদনে বলা হয়, “ধরে নিয়ে গিয়ে গুম করার ঘটনা অনেক বেড়ে গিয়েছে। নিরাপত্তা সংস্থাগুলি এক ধরনের নির্যাতনের বদলে অন্য ধরনের নির্যাতন চালাচ্ছে- এমন উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে।”

২০০৯ সালের বিডিআর বিদ্রোহের ঘটনার বিচারে হাজার হাজার অপরাধীর ন্যায্য বিচারের অধিকার লঙ্ঘন করেছিল বলেও মন্তব্য করা হয় প্রতিবেদনে।

২০০৯ সালের ২৫ ফেব্র“য়ারি তৎকালীন বিডিআর সদর দপ্তরে জওয়ানদের বিদ্রোহে ৫৭ সেনা কর্মকর্তা নিহত হয়। ওই বিদ্রোহের সঙ্গে সম্পৃক্ত সদস্যদের বিচার চলছে।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ মনে করে, বাংলাদেশে মানবাধিকার কর্মী, সাংবাদিক, ট্রেড ইউনিয়ন নেতা ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা সবাই ঝুঁকিতে আছেন।

মিশরের রাজধানী কায়রোয় ছযশ ৭৬ পৃষ্ঠার ‘ওয়ার্ল্ড রিপোর্ট ২০১২’ প্রকাশ করে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। এতে ৯০টির বেশি দেশে গত বছরের মানবাধিকার বিষয়ক অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয়।

‘র‌্যাবের জবাবদিহি নেই’

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের এশিয়া অঞ্চলের পরিচালক ব্রাড অ্যাডামস বলেন, “নির্যাতন বন্ধ এবং ন্যায়বিচার ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতে শেখ হাসিনার সরকার বারবার প্রতিশ্র“তি দেওয়া সত্ত্বেও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা এখনো আইনের ঊর্ধ্বে রয়ে গেছে।”

“নিরাপত্তা বাহিনীর নির্যাতনের ঘটনা অস্বীকার বা তা আড়াল করতে নির্যাতনের সঙ্গে জড়িত নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা থেকে গত বছর সরে এসেছে সরকার।”

“যদিও বিরোধী দলে থাকার সময় এসব নিয়েই অভিযোগ তুলতো তারা,” যোগ করেন অ্যাডামস।

তিনি বলেন, “র‌্যাবের দায় সম্পর্কে স্পষ্ট ও অনেক তথ্য-প্রমাণ থাকা সত্ত্বেও বিচার-বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের জন্য কোনো র‌্যাব সদস্যকে জবাবদিহিতায় আনেনি সরকার।”

প্রতিবেদনে বলা হয়, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সমালোচনা এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের স্বাধীন তদন্ত ও হিউম্যান রাইটস ওয়াচের প্রতিবেদন সত্ত্বেও এসব মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা স্বীকার ও দোষীদের বিচারের আওতায় আনতে চায়নি সরকার।

‘বিচার-বহিভূর্ত হত্যাকাণ্ড ছড়াচ্ছে’

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাটি জানায়, বাংলাদেশি মানবাধিকার সংগঠনগুলোর হিসাব অনুযায়ী বাংলাদেশে ২০০৪ সাল থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় এক হাজার ছয়শটি বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে অনেকগুলোকে ‘ক্রসফায়ার হত্যাকাণ্ড’ হিসাবে অভিহিত করা হয়।

এসব হত্যাকাণ্ডের জন্য মূলত র‌্যাবকেই দায়ী করেছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ।

তাদের মতে, র‌্যাব সদস্যরা আবার তাদের মূল সংস্থা যেমন পুলিশ বা গোয়েন্দা বিভাগে ফিরে যাওয়ায় সেখানেও বিচার বহির্ভূত হত্যকাণ্ডের সংস্কৃতি ছড়িয়ে পড়ছে।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বলেছে, গত বছর বাংলাদেশে সুশীল সমাজের প্রতিনিধি ও মানবাধিকার কর্মীদেরও হয়রানি, নির্যাতন ও ভয় দেখানো হয়। স্থানীয় মানবাধিকার সংগঠন অধিকারের ওপর নজরদারি বাড়ছে এবং এর অনেক কর্মীকে হয়রানি করা হয়েছে বলে প্রতিবেদনে দাবি করা হয়।

বাংলাদেশে হিউম্যান রাইটস ওয়াচের প্রতিনিধি উইলিয়াম গোমেজকে গত মে মাসে সাধা পোশাকের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা অপহরণ করে এবং জিজ্ঞাসাবাদের সময় তাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হয় বলে উল্লেখ করা হয় প্রতিবেদনে।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে