Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২০ , ৪ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.9/5 (14 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-২২-২০১২

সেনা সদরের সংবাদ সম্মেলন নিয়ে সময় হলে জবাব দেবো: আযমী

সেনা সদরের সংবাদ সম্মেলন নিয়ে সময় হলে জবাব দেবো: আযমী
কতিপয় সাবেক ও বর্তমান সেনা কর্মকর্তার ব্যর্থ অভ্যুত্থান ও বিভিন্ন পর্যায়ে কিছু নাম উঠে আসার পরিপ্রেক্ষিতে রোববার সংবাদ সম্মেলন করেছেন সাবেক সেনা কর্মকর্তা আব্দুল্লাহিল আমান আযমী।

একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে গ্রেপ্তার হওয়া জামায়াতের সাবেক আমীর গোলাম আযমের বড় ছেলে আযমীর দিকে অঙ্গুলি নির্দেশ করা হয়েছে। বলা হচ্ছে- তিনি ও তার ছোটভাই নুমান আযমী এ ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের সঙ্গে জড়িত।

নিজের দেওয়া সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে সাংবাদিকদের কাছে এ অভিযোগ অস্বীকার করলেও বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরই এড়িয়ে যান সাবেক এই সেনা কর্মকর্তা। তবে এক পর্যায়ে তিনি বলেন, সময় এলেই এসব প্রশ্নের জবাব দেবো।   

ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে গণতান্ত্রিক সরকারকে উৎখাত করতে একটি সেনা অভ্যুত্থানের চেষ্টা ব্যর্থ করে দেওয়ার ঘটনাটি গত ১৯ জানুয়ারি সংবাদ সম্মেলন করে আনুষ্ঠানিকভাবে জানায় সেনা সদর।

সরকার ও তার সমমনা দলগুলো সেনাবাহিনীর এই সংবাদ সম্মেলনকে স্বাগত জানিয়েছে। এমনকি প্রধান বিরোধী দল বিএনপির একাধিক নেতা ও সাবেক সেনাকর্মকর্তারাও বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে দেখেছেন।

ওই সংবাদ সম্মেলনকে তিনি কিভাবে দেখছেন এমন প্রশ্নের জবাবে আযমী বলেন, ‘প্রশ্নটি আমি নিচ্ছি। তবে এখনই মতামত দিতে চাই না। সময় হলেই জবাব দেবো।’

সেনাবাহিনীর সাবেক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আযমী বলেন, ‘আমি গণমাধ্যমের সামনে আসতে চাই না। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরে সেনাবাহিনীর ব্যর্থ অভ্যুত্থানের সঙ্গে আমার ও আমার পরিবারের নাম জড়িয়ে সংবাদ মাধ্যমে বিভিন্ন খবর প্রকাশিত হচ্ছে। এ কারণে আমি সংবাদ মাধ্যমের সামনে আসতে বাধ্য হয়েছি। কোনো রাজনৈতিক কারণে এই সংবাদ সম্মেলন ডাকিনি।’  

তিনি বলেন, ‘আমি কোনোদিন রাজনীতি করি নাই। এখনো করি না। রাজনীতির সঙ্গে আমি ও আমার ভাইদের কারো সম্পর্ক নেই। আমাদের পরিবারে শুধুমাত্র বাবাই রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। বাবাও প্রায় ১২ বছর ধরে রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত নেই।

‘ভবিষ্যতে রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হবেন কিনা’ এই প্রশ্নের সরাসরি উত্তর না দিয়ে তিনি বলেন, ‘ভবিষ্যত কি হবে কেউই বলতে পারে না।’   

সম্প্রতি লন্ডনে একটি টেলিভিশন চ্যানেলকে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার নিয়ে নুমান আযমীর বিতর্কিত বক্তব্য সম্পর্কে তিনি বলেন, এ সম্পর্কে তিনি কিছুই জানেন না। তার ছোট ভাই কি বিষয়ে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন তাও তিনি জানেন না।

তবে সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে তিনি বলেন, আজ (রোববার) সকালেও ছোট নুমান আযমীর সঙ্গে ফোনে তার সঙ্গে একাধিকবার কথা হয়েছে।

ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানে নিজের জড়িত থাকার কথা দ্ব্যর্থহীনভাবে অস্বীকার করে তিনি বলেন, ক্যান্টনমেন্টের প্রবেশপথেই তার ছবি রাখা আছে। সেনাবাহিনী থেকে চাকরিচ্যুৎ হওয়ার পর তিনি ক্যান্টনমেন্টে অবাঞ্ছিত। এরপর সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাদের সঙ্গে তার ও তার পরিবারের কোনো যোগাযোগ নেই। তাই সেনা অভ্যুত্থানের ঘটনার আগে ও পরে কারো সঙ্গেই তার যোগাযোগ হয়নি।

সেনাবাহিনী থেকে নিজের চাকুরিচ্যুতি সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ আনা হয়নি। আমাকে ঢাকা ক্যান্টনমেন্টের লগ এরিয়াতে তিন সপ্তাহ রাখা হয়। এ ঘটনার পর আমি সরাসরি সেনাপ্রধানের সঙ্গে দেখা করে বলি ‘স্যার আমার বিরুদ্ধে তদন্ত করুন। কোনো অপরাধ করলে যেকোনো শাস্তি তা মাথা পেতে নেব।’
 
তিনি বলেন, ‘এমনকি সেনাবাহিনীও আমাকে বরখাস্ত করেনি। সরকার প্রজ্ঞাপন জারি করে আমাকে চাকরিচ্যুৎ করেছে। ২০০৯ সালের ২৩ জুন সরকারি প্রজ্ঞাপনের একদিন পর আমাকে বিষয়টি জানানো হয়।’

সেনাবাহিনীর ভেতরে কোনো ধরনের বিভক্তি কিংবা অভ্যুত্থান পরবর্তী ফলাফল সম্পর্কে তিনি বলেন, বিষয়টির তদন্ত চলছে। এ মুহূর্তে কোনো মন্তব্য করতে চাই না। তাছাড়া কোনো কিছু না জেনে মতামত দেওয়া উচিত নয়।  

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে