Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ২২ জানুয়ারি, ২০২০ , ৯ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.6/5 (15 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-২১-২০১২

সন্দেহের তালিকায় গোলাম আযম পুত্র নোমান

সন্দেহের তালিকায় গোলাম আযম পুত্র নোমান
ঢাকা, ২২ জানুয়ারি: সেনাবাহিনীতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও অভ্যুত্থান পরিকল্পনাকারীদের সঙ্গে সন্দেহের তালিকায় রাখা হয়েছে যুদ্ধাপরাধে অভিযুক্ত জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমির গোলাম আযমের প্রবাসীপুত্র আবদুল্লাহিল নোমান আল আযমী । সেনাবাহিনীর তদন্ত দল এ বিষয়ে তদন্ত করছে। প্রাথমিক তদন্তে অন্যতম ষড়যন্ত্রকারী হিসেবে চিহ্নিত হংকং প্রবাসী ব্যবসায়ী ইশরাক আহমেদের সঙ্গে নোমানের সম্পৃর্কতার তথ্য পাওয়া গেছে।
 
সেনা সূত্র জানায়, এরই মধ্যে ইশরাকের সঙ্গে নোমানের সম্পর্কের খুঁটিনাটি বিষয়ে তথ্য সংগ্রহের যাবতীয় কাজ চলছে। নোমান আল আযমী বর্তমানে মালয়েশিয়ায় অবস্থান করছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। নোমান মেজর জিয়াউল হকের সঙ্গেও টেলিফোনে আলোচনা করেছেন বলে তথ্য পাওয়া গেছে।
 
বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক মিডিয়ায়  অভ্যুত্থানের ঘটানোর বিষয়ে আগেই বাংলাদেশ সরকারকে বিদেশ থেকে সতর্ক করা হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে সেনাসূত্রগুলোর বক্তব্য, এই দাবি অসাঢ়। কোনো বিদেশি গোয়েন্দা মাধ্যম নয়। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কমান্ড, চ্যানেল ও শৃঙ্খলার আউটপুটের মাধ্যমে পরিকল্পনার কথা ফাঁস হয়। এরপরই অভ্যুত্থানচেষ্টা নস্যাৎ করা হয়।
 
অভ্যুত্থান নস্যাতের প্রক্রিয়ায়ই সন্দেহভাজনদের নজরদারি ও দু'জনকে গ্রেফতার করা হয়। তারা হলেন লে. কর্নেল অব. এহসান ইউসুফ ও মেজর অব. জাকির হোসেন। গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে পরিকল্পনাকারীদের অন্যতম মেজর জিয়াউলকে।

বেসামরিক যেসব নাগরিকের বিষয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির সঙ্গে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া যাবে তাদের নামে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করা হবে। তাদের বিদেশ থেকে ফেরত আনতে ইন্টারপোলসহ আন্তর্জাতিক অন্য সংস্থার সহায়তা নেয়া হবে।
 
বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির পেছনে যে ১৪ থেকে ১৬ সেনা কর্মকর্তা জড়িত থাকার সন্দেহ করা হচ্ছে, তাদের বিষয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে। তাদের মোবাইল কথোপকথনের রেকর্ড সংগ্রহ করা হচ্ছে। এসব ঘটনার সঙ্গে অন্য কোনো শক্তির সম্পৃক্ততা রয়েছে কি-না তা যাচাই করা হচ্ছে। এমনকি কারা এর পেছনে ইন্ধন ও অর্থ জুগিয়েছেন তাও বের করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।
 
বর্তমান সরকারকে উৎখাত করতে সেনাবাহিনীর সাবেক ও বর্তমান কিছু সদস্য অভ্যুত্থানের চেষ্টা চালান। এর সঙ্গে জড়িত ছিলেন কিছু প্রবাসী বাংলাদেশি নাগরিক। ১৩ ডিসেম্বর এ পরিকল্পনার কথা ফাঁস হয়ে যায়। এরপর অভ্যুত্থানচেষ্টা ব্যর্থ করে দেয় সেনাবাহিনী।
 
অভ্যুত্থানচেষ্টা ঘটনার তদন্তে ২৮ ডিসেম্বর একটি তদন্ত আদালত গঠন করা হয়। এ ঘটনায় ১৯ জানুয়ারি সেনা সদরে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে সেনাবাহিনীতে বিশৃঙ্খলার বিষয়টি জানানো হয়।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে