Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২০ , ৪ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (27 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৪-১৯-২০১৪

বঙ্গ বদ্বীপে বিদ্রোহ প্রকাশ করে সিলেটে নতুন শহীদ মিনার

বঙ্গ বদ্বীপে বিদ্রোহ প্রকাশ করে সিলেটে নতুন শহীদ মিনার

সিলেট, ১৯ এপ্রিল- ৫২-এর ভাষা আন্দোলনকে কেন্দ্র করে বঙ্গ বদ্বীপে যে বিদ্রোহের সূচনা হয় তার রুপচিত্র মাটিতে ফুটিয়ে তুলে অনন্য স্থাপত্যে নির্মিত হচ্ছে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার।

দেশে এই প্রথমবারের মত ভাঁজ ভাঁজ মাটি দিয়ে বিদ্রোহ প্রকাশ করে শহীদ মিনার নির্মাণ করা হচ্ছে। আবহমান বাংলার বিদ্রোহী চেতনা ভূমির অংশগ্রহণ প্রকাশ করতে এর ডিজাইন করা হয়েছে বলে জানালেন ডিজাইনার শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক শুভজিৎ চৌধুরী। আর তিন মাস পরেই এর কাজ শেষ হবে বলে জানান তিনি।
 
অধ্যাপক শুভজিৎ চৌধুরী শহীদ মিনার দেখিয়ে তিনি বলেন, বিদ্রোহ নিয়েই আমাদের গৌরব। বাঙালি জাতির বিদ্রোহে ভূমি যে অংশ নেয় তার বহিঃপ্রকাশ শহীদ মিনারের স্থাপত্য শৈলীতে দেখানো হচেছ।

তিনি বললেন, ভূমি থেকেই আমরা প্রেরণা নিয়ে স্বাধীনতা এনেছি। বাংলার ভূমি তার ভেতর থেকে বিদ্রোহের বহিঃপ্রকাশ করছে। শহীদ মিনারের কাজ শেষ হলে এমন বোধটাই জেগে উঠবে।

নকশা অনুযায়ী শহীদ মিনারের পাঁচটি স্থাপনা হচ্ছে। এতে থাকছে মূল মিনার বেদী ও র্যাম্প, ভূগর্ভস্ত প্রদর্শনী কেন্দ্র ও গ্রন্থাগার, মুক্তমঞ্চ, অনুশীলন কক্ষ, গ্রিণরুম ও ব্যাক স্টেইজ এবং সম্মুখ চত্বর।

শহীদ মিনারের ভূগর্ভস্থে প্রদর্শনী কক্ষে একটি কর্ণার থাকবে যেখানে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রকাশনা রাখা হবে।  কেউ চাইলে বসে পড়াশোনা ও বই কিনে নিয়ে যেতে পারবে।

আর যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য শহীদ মিনারের মূল বেদিতে যেতে আলাদা ৠাম্প আকৃতির সিঁড়ি থাকবে। এছাড়া ঢাকার ছবির হাটের আউটডোরে প্রদর্শনী কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে।

সিলেট সিটি করপোরেশন এই কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের কাজ বাস্তবায়ন করছে।

সিলেট সিটি করপোরেশন সূত্র জানায়, একইস্থানে আগের শহীদ মিনারের অবস্থান ছিলো। যার আয়তন ছিলো ১৯ শতক , বর্তমান শহীদ মিনার আরও ১৭ শতক জমি নিয়ে করা হচ্ছে। পেছনের শহীদ সামসুদ্দিন হাসপাতাল থেকে এই জমি অধিগ্রহন করা হয়েছে।

ডিজাইনার শুভজিৎ চৌধুরী জানান, শহীদ মিনারে একসঙ্গে চার হাজার মানুষ সমবেত হতে পারবেন। নতুন এই শহীদ মিনারের স্থাপত্য চিত্র ও নির্মাণ কাজ দেখে  এর প্রশংসা করেছে অথমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। সিলেট সফরে এলেই এখন  শহীদ মিনারে যান তিনি।

সম্প্রতি তিনি এক অনুষ্ঠানে শহীদ মিনার প্রসঙ্গে বলেন, ‘শহীদ মিনারের এরকম বৈচিত্র্য আর কেনো দেশে নেই। এটা সুখবর যে এত সুন্দর স্থাপত্য শৈলীর মিনার সিলেটে হচ্ছে। অন্যান্য শহীদ মিনার থেকে এই শহীদ মিনার উঁচু বলে জানান মন্ত্রী।

পঁচিশ বছর আগে সিলেটে চারজন মুক্তিযোদ্ধার সাহসিক প্রচেষ্টা ও সাংস্কৃতিক কর্মীদের সহযোগিতায় চৌহাট্টায়  প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিলো সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার। সে সময়ের প্রগতিশীল রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক আন্দোলন আর সামাজিক সমর্থনে তৈরি শহীদ মিনার কালস্রোতে সিলেটের সাংস্কৃতিক চেতনার প্রতীক।

নতুন শহীদ মিনার নির্মিত হলে আবারও সিলেটের সাংস্কৃতিক চেতনার মূল কেন্দ্র হবে চৌহাট্টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ সেই অপেক্ষা এখন।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে