Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০১৯ , ৪ আষাঢ় ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.4/5 (11 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৪-১৮-২০১৪

জেনেভা চুক্তিকে স্বাগত জানিয়েছেন ওবামা

জেনেভা চুক্তিকে স্বাগত জানিয়েছেন ওবামা

ওয়াশিংটন, ১৮ এপ্রিল- জেনেভায় অনুষ্ঠিত শান্তি চুক্তিকে স্বাগত জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। তবে তিনি রাশিয়াকে সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, চুক্তি মেনে না নিলে যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্ররা মস্কোর বিরুদ্ধে নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে।
 
ইউক্রেন চলমান সঙ্কটের সমাধানের লক্ষ্যে জেনেভায় রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও ইউক্রেনের কূটনীতিকদের মধ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠকে চুক্তিটি স্বাক্ষরিত হয়।
 
চুক্তি সম্পর্কে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সার্গেই লেভরভ বলেন, ‘জেনেভা স্টেটমেন্ট অব এপ্রিল ১৭ নামে আমরা একটি দলিল অনুমোদন করেছি যেখানে তাৎক্ষণিকভাবে উত্তেজনা কমানোর পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলা হয়েছে।’
 
রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ইউক্রেনে একটি জাতীয় সংলাপ আয়োজন করতে সব পক্ষ সম্মত হয়েছে। ওই সংলাপে দেশটির সব নাগরিকের অধিকারকে সম্মান জানানো হবে। এ চুক্তিতে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর পাশাপাশি মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি, ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্দ্রি দেশচিত্‌সিয়া ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান কর্মকর্তা ক্যাথেরিন অ্যাস্টোন সই করেছেন।
 
লেভরভ জানান, চুক্তি অনুযায়ী সব অবৈধ অস্ত্রধারীকে নিরস্ত্র হতে হবে এবং দখল হয়ে যাওয়া সব ভবন বৈধ কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করতে হবে। ইউক্রেনের দখল হয়ে যাওয়া সব শহরের সড়ক, স্কয়ার ও অন্যান্য জায়গাকে মুক্ত করে দিতে হবে। হত্যাকাণ্ডে জড়িত ব্যক্তি ছাড়া অন্যান্য সব বিক্ষোভকারীর প্রতি সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করা হবে।
 
রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী একইসঙ্গে ইউক্রেনে তার দেশের নাগরিকদের প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞার নিন্দা জানান।  তিনি বলেন, প্রতিবেশী দেশ ইউক্রেনে সেনা পাঠানোর কোনো ইচ্ছা তার দেশের নেই কারণ এ বিষয়টি রাশিয়ার মৌলিক স্বার্থের পরিপন্থী। তিনি বলেন, ‘বন্ধু রাষ্ট্র ইউক্রেনে সৈন্য পাঠানোর কোনো ইচ্ছা আমাদের নেই। সেখানে আমাদের বন্ধুরা বসবাস করে এবং এটি রুশ ফেডারেশনের মৌলিক স্বার্থ বিরোধী।’
 
উল্লেখ্য, ইউক্রেনের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় প্রজাতন্ত্র ক্রিমিয়া দেশটি থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে রাশিয়ায় যোগ দেয়ার পর সেদেশের পূর্বাঞ্চলীয় অন্যান্য প্রজাতন্ত্রের রুশ-পন্থী নাগরিকরাও ব্যাপক আন্দোলন শুরু করেন। তাদের মধ্যে বহু সশস্ত্র ব্যক্তি ইউক্রেনের বহু সরকারি ভবন ও থানা দখল করে নিয়েছেন। রুশ-পন্থী এসব ব্যক্তির প্রতি রাশিয়ার সমর্থন রয়েছে বলে পশ্চিমা দেশগুলো অভিযোগ করে আসছে।

উত্তর আমেরিকা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে