Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২০ , ৪ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.0/5 (2 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-২০-২০১২

জিয়াকে জড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য সঠিক নয়: মির্জা আলমগীর

জিয়াকে জড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য সঠিক নয়: মির্জা আলমগীর
সেনাবাহিনীর ব্যর্থ অভ্যুত্থান ও সেনাবাহিনীর সঙ্গে জিয়াউর রহমান ও বিএনপিকে জড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া বক্তব্য সঠিক নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, “জিয়াউর রহমানই সেনাবাহিনীর মধ্যে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে এনেছিলেন।”
শুক্রবার সকালে পুরানা পল্টনে কমিউনিস্ট পার্টির কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের তিনি একথা বলেন।
২০০১ সালের ২০ জানুয়ারি কমিউনিস্ট পার্টির সমাবেশে বোমা হামলায় নিহতদের স্মরণে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন মির্জা আলমগীর।
এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন বিএনপি’র সহ-দফতর সম্পাদক আবদুল লতিফ জনি, যুবদলের সহ-সভাপতি ফরহাদ হোসেন আজাদ, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলীম প্রমুখ।
মির্জা আলমগীর বলেন, “গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার বাইরে অন্য কোনো পথে ক্ষমতা হস্তান্তর সমর্থন করে না বিএনপি।”
বৃহস্পতিবার সেনা সদরের সংবাদ ব্রিফিংয়ের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে মির্জা আলমগীর বলেন, “বিএনপি গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় ক্ষমতা হস্তান্তরে বিশ্বাস করে। অন্য কোনো পথে নয়। আমাদের সেনাবাহিনী জাতীয় নিরাপত্তা, স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের প্রতীক। আমরা একটি সুশৃঙ্খল সেনাবাহিনী চাই।”
সরকারের বিরুদ্ধে বিএনপি ষড়যন্ত্র করছে- প্রধানমন্ত্রীর এ বক্তব্যের নিন্দা জানান তিনি।
সরকার উৎখাতে একটি সেনা অভ্যুত্থানের অপচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে বলে বৃহস্পতিবার সেনা সদরের সংবাদ ব্রিফিংয়ের বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, “বিএনপি গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া বিশ্বাস করে। এজন্য আমরা স্বৈরাচার, এক নায়কতন্ত্র ও একদলীয় শাসনের বিরুদ্ধে কথা বলি, কাজ করি। গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় ক্ষমতা হস্তান্তর হবে-এটাই আমরা চাই।”
সেনা সদরের সংবাদ ব্রিফিংয়ের পর রাতে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের বিরুদ্ধে বিএনপি ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছেন। এর জবাবে তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর বিএনপি সম্পর্কে দায়িত্বহীন বক্তব্য রেখেছেন। সব সময় তিনি মিথ্যা ও অসত্য কথা বলেন। সরকার প্রধানের এ ধরণের বক্তব্য গণতন্ত্রকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে। আমরা এরকম বক্তব্যের নিন্দা জানাই।”
সেনা সদর তার ব্রিফিংয়ে বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়ার চট্টগ্রামের পলোগ্রাউন্ডে সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা গুম হচ্ছে- এরকম বক্তব্যকে উস্কানিমূলক বলেছেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, “এরকম বক্তব্য অনভিপ্রেত। যিনি তিন তিন বার দেশের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন, বর্তমানে বিরোধীদলীয় নেতা, দেশের সেনাবাহিনীকে শক্তিশালী করতে তিনি এবং শহিদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান কাজ করেছেন, তার সম্পর্কে এরকম বক্তব্য জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্য হবে না।”
২০০১ সালের ২০ জানুয়ারি পল্টন ময়দানে বোমা হামলার ঘটনায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, “আওয়ামী লীগের শাসনামলে এরকম আরো কয়েকটি বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে। তৎকালীন সরকার একটিরও তদন্ত করেনি। এসব ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীদের শাস্তি দেয়া দরকার।”
নিহতদের প্রতি আরো শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন কমিনিস্ট পার্টি, ওয়ার্কার্স পার্টি, বাম গণতান্ত্রিক মোর্চা, শ্রমিক-কর্মচারি ঐক্য পরিষদ, বিপ্ল¬বী ওয়ার্কার্স পার্টি, ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্রলীগ, যুব ইউনিয়ন, জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন, বস্তিবাসী ইউনিয়ন, ট্রেড ইউনিয়ন, প্রগতিশীল ছাত্র জোট, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা।
২০০১ সালের ২০ জানুয়ারি পল্টন ময়দানে বোমা হামলায় সিপিবি’র বিপ্রদাস, হাশেম, হিমাংশু, মুক্তার ও মজিদ নিহত হন।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে