Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২০ জানুয়ারি, ২০২০ , ৬ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.5/5 (29 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৪-১৫-২০১৪

সিলেটে চলছে বৈশাখী মেলা

সিলেটে চলছে বৈশাখী মেলা

সিলেট, ১৫ এপ্রিল- বাংলা বর্ষবরণ উৎসব উপলক্ষে সিলেটে চলছে প্রাণবন্ত বৈশাখী মেলা। সুরমা পাড়ে শারদা স্মৃতি হলের সামনে বসেছে এ মেলা। সিলেট সিটি করপোরেশন আয়োজিত পাঁচ দিনব্যাপী বর্ষবরণ উৎসবের অংশ হিসেবে এ মেলার পাশাপাশি শারদা স্মৃতি হলের সামনে প্রতিদিন চলছে অন্য নানা আয়োজন।  

মেলায় দেশিয় অন্যান্য পণ্যের পাশাপাশি বসেছে বাঙালির পিঠাপুলির দোকানও। শিশুদের খেলনার পাশাপাশি এ মেলায় গৃহস্থালির ছোটখাট জিনিসপত্রও কিনতে পেরেছেন নগরবাসী। সেখানে প্রতি সন্ধ্যায় আয়োজন করা হচ্ছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের। বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা নিয়ে মেলায় অংশ নিচ্ছেন অসংখ্য মানুষ।

এর আগে সোমবার বছরের প্রথম দিনটিকে স্বাগত জানিয়ে প্রতিবারের মতো সিলেট সিটি করপোরেশনের পাঁচ দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠানমালা শুরু হয়।

সকাল সাড়ে ১০টায় নগরীর শারদা হলের সামনে থেকে বের করা হয় মঙ্গল শোভাযাত্রা। শোভাযাত্রায় অংশ নেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী।
 
শোভাযাত্রার আগে শারদা হলের সামনে সিটি করপোরেশন আয়োজিত বৈশাখী মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন মৌসুমী। এ সময় তিনি সিলেটবাসীকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান। করতালির মাধ্যমে উপস্থিত সিলেটবাসীও মৌসুমীর শুভেচ্ছার জবাব দেন।
 
সেখানে উপস্থিত ছিলেন সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবীব, প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান, কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ, এ বি এম জিল্লুর রহমান উজ্জ্বল, রাজিক মিয়া, দিনার খান হাসু, তৌফিকুল হাদী প্রমুখ।

এছাড়া বর্ষবরণ উৎসবের অংশ হিসেবে তারুণ্যের উচ্ছ্বাসে নগরজুড়ে বৈশাখী মিছিল, মঙ্গল শোভাযাত্রা, পান্তা ভাত-ইলিশ, ফানুস উড়ানো, পুতুল নাচ আর নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পালিত হয়। এসব উৎসবে নগরবাসী বাঙালির আবহমান চেতনার স্বরূপকেই তুলে ধরেন।

পহেলা বৈশাখের সকাল থেকেই নগরী ছিল উৎসবমুখর। বিগত বছরের জীর্ণতা মুছে শুভ ও মঙ্গলের আবাহন ছিল আবাল-বৃদ্ধ-বনিতার কণ্ঠে।

পহেলা বৈশাখের প্রথম প্রহরে ‘শ্রুতি’ সিলেটের উদ্যোগে নগরীর ব্লু-বার্ড স্কুল অ্যান্ড কলেজ ক্যাম্পাস মাঠে শুরু হয় শতকন্ঠে বর্ষবরণের অনুষ্ঠান। পরে সেখানে হাতের লেখা প্রতিযোগিতা, চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও বৈশাখী মেলার আয়োজন করা হয়।

সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘আনন্দলোক’ এর উদ্যোগে দিনব্যাপী নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় শ্রীহট্ট সংস্কৃত কলেজ প্রাঙ্গণে। সকাল ৮টায় কলেজ মাঠে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। পরে সেখানে শিল্পীরা রবীন্দ্র সংগীত, দেশাত্ববোধক গান, গণসংগীত, পঞ্চকবির গান, লালন গীতিসহ বিভিন্ন লোকগান পরিবেশন করেন।

সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সাহিত্য আসর কক্ষে পহেলা বৈশাখের কবিতা পাঠের আসরের আয়োজন করে কবিতাকেন্দ্র সিলেট।

জেলা শিল্পকলা একাডেমি, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়-শাবিপ্রবি, মদন মোহন কলেজ, শ্রীহট্ট সংস্কৃত কলেজ, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়েও বছরের প্রথম দিনটিকে বরণ করে নিতে আয়োজন করা হয় নানা অনুষ্ঠানমালার।

এদিকে প্রতিবছর এমসি কলেজে বর্ষবরণের নানা আয়োজন করা হলেও এবার সেখানে নিরাপত্তাজনিত কারণে স্বল্প পরিসরে পালন করা হয় নতুন বছরকে বরণের অনুষ্ঠান।

ষোড়শ শতকের শুরুর দিকে রাজস্ব আদায়ের সুবিধার জন্য মোঘল সম্রাট আকবরের যুগে প্রবর্তন করা হয়েছিল সন-ই এলাহী নামের একটি সালের। পরবর্তীতে তা বাংলা সন নামে পরিচিতি লাভ করে। সময়ের বিবর্তনে সেই দিনটি এখন বাঙালির প্রাণের উৎসব পরিণত হয়েছে।

 

সিলেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে