Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (9 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-১৮-২০১২

‘থ্যালাসেমিয়ার প্রকোপ থেকে বাঁচতে সচেতনতা জরুরি’

‘থ্যালাসেমিয়ার প্রকোপ থেকে বাঁচতে সচেতনতা জরুরি’
বাংলাদেশে এইডস’র চেয়েও বেশি হারে বিস্তার ঘটছে থ্যালাসেমিয়া রোগের৷ অথচ এইডস প্রতিরোধে যতটা উদ্যোগ দেখা যায়, থ্যালাসেমিয়ার ক্ষেত্রে তেমন উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে না বলে মনে করেন রক্তরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মোর্শেদ জামান৷
থ্যালাসেমিয়া রোগের ধরন এবং পূর্বলক্ষণ সম্পর্কে রাজশাহী বক্ষব্যাধি হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. মোর্শেদ জামান বলেন, “থ্যালাসেমিয়া হচ্ছে এক ধরনের বংশগত বা জন্মগত রক্তস্বল্পতা৷ এটি রক্তের ত্রুটিপূর্ণ হিমোগ্লোবিনের জন্য হয়ে থাকে৷ এর তিনটি ধরন রয়েছে৷ তীব্র, মাঝারি এবং মৃদু থ্যালাসেমিয়া৷ তীব্র থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্তদের শিশু অবস্থা থেকেই এই রোগের উপসর্গগুলো দেখা যায়৷ শিশু রক্তস্বল্পতায় ভোগে, চেহারায় ফ্যাকাসে ভাব দেখা যায়৷ খাওয়ার রুচি থাকে না৷ খেতে গেলে বমি হয়৷ এমতাবস্থায় শিশুর স্বাভাবিক বৃদ্ধিও বাধাগ্রস্ত হয়৷ আবার রক্ত ভেঙে যাওয়ার ফলে জন্ডিস বা পাণ্ডু রোগও হতে পারে৷ এছাড়া যকৃত ও প্লীহা আকারে বৃদ্ধি পায়৷ একইসঙ্গে রক্ত ভেঙে যাওয়ার ফলে অতিরিক্ত রক্ত তৈরি হতে থাকে এবং অস্থি বা হাড়ে বিকৃতি ঘটে৷ চেহারাতেও রোগের উপসর্গ ফুটে ওঠে৷”

 

বর্তমানে থ্যালাসেমিয়া রোগের প্রকোপ কতটা, এমন প্রশ্নের উত্তরে ডা. জামান বলেন, “বাংলাদেশ সরকারের এ সংক্রান্ত কোনো জরিপ নেই৷ তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ডাব্লিউএইচও’র হিসেবে, বিশ্বে ৬.৫ শতাংশ মানুষ থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত৷ আর বাংলাদেশে চার থেকে আট শতাংশ মানুষ থ্যালাসেমিয়া ও হিমোগ্লোবিনই ডিজঅর্ডার- যা থ্যালাসেমিয়ার কাছাকাছি অবস্থা সেটি বহন করছে।”

 

বাংলাদেশে থ্যালাসেমিয়া রোগের ভয়াবহতা কিংবা ঝুঁকি সম্পর্কে তিনি বলেন, “এটা যেহেতু বংশগত রোগ, তাই ধীরে ধীরে বংশ পরম্পরায় তা ছড়িয়ে পড়ছে৷ ফলে এখন যদি চার শতাংশ মানুষ এটি বহন করে এবং সচেতনতার মাত্রা না বাড়ে, তাহলে এটা ভয়াবহ আকারে ছড়িয়ে পড়তে পারে৷ যেমনটি হয়েছিল সাইপ্রাসে৷ সেখানে ৩৫ শতাংশ মানুষ থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত হয়ে পড়েছিল৷ তবে সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে সেখানেও এটার প্রকোপ কমে এসেছে৷ বাংলাদেশে এইডস এর চেয়েও বেশি হারে থ্যালাসেমিয়ার প্রকোপ রয়েছে৷ এটি গোপনে ভয়াবহ আকারে ছড়িয়ে পড়ছে৷ অথচ এইডস এর জন্য যতোটা উদ্যোগ এখানে রয়েছে, থ্যালাসেমিয়া থেকে রক্ষায় তেমন কোনো উদ্যোগ এখনো গ্রহণ করা হয়নি।”

 

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে