Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০২০ , ১০ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.3/5 (18 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৪-০১-২০১৪

গ্রামীণ ব্যাংকের আদলে ‘পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক’

গ্রামীণ ব্যাংকের আদলে ‘পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক’

ঢাকা, ০১ এপ্রিল- গ্রামীণ ব্যাংকের আদলে ‘পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক’ নামে সরকার একটি বিশেষায়িত ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করতে যাচ্ছে।

সোমবার সংসদের বৈঠকে এ সংক্রান্ত একটি বিল উত্থাপন করা হয়। সম্পূরক কর্মসূচিতে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক আইন ২০১৪ শীর্ষক বিলটি উত্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠকের শুরুতেই নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্ব ঘোষণা করেন। এরপর সম্পূরক কর্মসূচিতে আইন প্রণয়ন কার্যাবলীতে আনীত বিলটি উত্থাপনের জন্য অর্থমন্ত্রীকে ফ্লোর দেন।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বিল উত্থাপনের আগে এ অঞ্চলে ১৯৬১ সালে শুরু হওয়া পল্লী উন্নয়ন কর্মসূচির প্রেক্ষপট বর্ণনা করে জানান, থানায় থানায় প্রশিক্ষণ কর্মসূচির পাশাপাশি কো-অপারেটিভ করার পরিকল্পনা করা হয়েছিল। স্বাধীনতার পর ২০ থানায় পরীক্ষামূলকভাবে এ কর্মসূচির পরিকল্পনা করা হয়।

তিনি আরো জানান, এরপর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ঘোষণা দিলেন, ২০ থানায় নয় (তৎকালীন ৩৭৫টি থানায়) সব থানায় এ কার্যক্রম শুরু করতে হবে। এরপর ১৯৮২ সালে সরকার রুরাল ডেভেলপমেন্ট
প্রোগ্রাম চালু করে। ১৯৮৩ সালে গ্রামীণ ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করে। গ্রামীণ দরিদ্র মানুষের উন্নয়নের জন্য। গরীব মানুষের মধ্যে সঞ্চয় অভ্যাস গড়ে তোলা ও কৃষি প্রবৃদ্ধি বাড়ানোর জন্য।

অর্থমন্ত্রী গ্রামীন ব্যাংকের সমালোচনা করে বলেন, ‘কিন্তু গ্রামীণ ব্যাংক জনগণের সঞ্চয় সংগ্রহ করে তাদের ঋণ দিয়েছে নিজেদের সঞ্চয় বৃদ্ধির জন্য। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি-মার্চ পর্যন্ত গ্রামীণ ব্যাংক ঋণ দিয়েছে ৯৭ হাজার ২শ কোটি টাকা। এর বিপরীতে নিজেরা লাভ বা সঞ্চয় করেছে ১৪ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকা। এই লাভের টাকা ও সঞ্চয় গ্রাম থেকে শহরে এনে বিনিয়োগ করা হয়েছে।
সরকার পল্লী এলাকার সঞ্চয় দিয়ে পল্লী এলাকার উন্নয়নে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে। এতে গ্রামীণ অর্থনীতির সমৃদ্ধি ঘটবে। দরিদ্র মানুষের আর্থিক উন্নতি হবে। এই লক্ষ্য নিয়েই প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে ‘পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক’ বলে জানান মন্ত্রী।

পরে অর্থমন্ত্রী পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক বিল ২০১৪ সংসদে উত্থপান করেন। বিলটি পরীক্ষা নিরীক্ষা করার জন্য অর্থমন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়েছে। কমিটি ১৫ দিনের মধ্যে এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন সংসদে জমা দেবেন।

ব্যাংক প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য সম্পর্কে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক আইন’ ২০১৪ প্রণয়নের ফলে দেশের গ্রামাঞ্চলের দরিদ্র সুবিধাবঞ্চিত মানুষকে সঞ্চয়ে উদ্বুদ্ধ করা, তাদের দক্ষতা বৃদ্ধিসহ নারীর ক্ষমতায়ন এবং অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নের জন্য গ্রাম সংগঠন সৃজন, তাদের প্রশিক্ষণ প্রদান, তহবিলের যোগান এবং ঋণদানের মাধ্যমে দারিদ্র বিমোচনে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখবে এবং তাদের সঞ্চয় ও অর্জিত অর্থ লেন-দেন ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ‘পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক” গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

তিনি আরো বলেন, ‘এটা সরকারের যুগান্তকারী একটি পদক্ষেপ। দেশের পল্লী এলাকার আর্থসামাজিক উন্নয়নে এই ব্যাংক সহায়ক হিসেবে কাজ করবে। পল্লী এলাকার দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষের সঞ্চয় ও অর্জিত লেন দেন ও রক্ষণাবেক্ষণ, ঋণ ও অগ্রিম প্রদান এবং বিনিয়োগের জন্য পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠাকল্পে বিলটি সংসদে পেশ করা হয়েছে।’

ব্যবসা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে