Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২৪ জুন, ২০১৯ , ১০ আষাঢ় ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.7/5 (54 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-১৬-২০১২

লোকমান হত্যা- সালাউদ্দিন বাচ্চু রিমান্ডে

লোকমান হত্যা- সালাউদ্দিন বাচ্চু রিমান্ডে
নরসিংদী পৌর মেয়র লোকমান হত্যা মামলার প্রধান আসামি ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজুর ভাই সালাউদ্দিন আহমেদ বাচ্চুসহ ৫ এজাহারভুক্ত আসামি আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন। গতকাল সকাল পৌঁনে ১১টায় নরসিংদীর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিতাই চন্দ্র সাহার আদালতে তারা আত্মসমর্পণ করেন।
আদালত ১নং আসামি সালাউদ্দিন বাচ্চু, ১৩নং আসামি আমির হোসেন আমু ও ১৪নং আসামি মামুনকে ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। মামলার ৬নং আসামি মনোয়ার হোসেন খান মঈন ও ৭নং আসামি হিরনকে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। তবে মঈন ও হিরনকে জেল গেটে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দিয়েছে আদালত।
এর আগে ১০টায় মামলার প্রধান আসামি এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজুর ছোট ভাই সালাউদ্দিন আহমেদ বাচ্চুসহ অন্য আসামি মনোয়ার হোসেন মঈন, আমির হোসেন আমু, মামুন ও হিরন আলাদাভাবে আদালতে আইনজীবী সমিতি ভবনে প্রবেশ করে। পরে সাড়ে ১০টায় তারা এক সঙ্গে আদালতে আত্মসমর্পণ করে। এ সময় তাদের কৌঁসুলি নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক এডভোকেট আসাদুজ্জামান, জেলা আওয়ামী লীগসহ সভাপতি এসএ হাদীসহ ১৫/১৬ আইনজীবী আসামিদের জামিন প্রার্থনা করেন এবং মেয়র লোকমান হত্যায় এ আসামিরা জড়িত নয় মর্মে যুক্তি উপস্থাপন করেন। এ সময় রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি পিপি ন ম রুহুল আমিন ও বাদী পক্ষের কৌঁসুলি এডভোকেট আসাদ আলী জামিনের বিরোধিতা করে আদালতকে জানান, উল্লিখিত ৫ আসামি মামলার এজাহারভুক্ত। তারা এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত। তাদের মামলার তদন্তে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুরের আবেদন জানান। বিজ্ঞ আদালত দু’পক্ষের যুক্তি-তর্ক শেষে আসামি বাচ্চু, মামুন ও আমুর জামিন না-মঞ্জুর করে তাদের ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর এবং অপর আসামি মঈন ও হিরনের জামিন না-মঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। মামলার তদন্তের প্রয়োজনে তাদের জেল গেটে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি প্রদান করেন। পরে আসামি মনোয়ার হোসেন, মঈন ও হিরনকে জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়।
এদিকে মন্ত্রীর ভাই সালাউদ্দিন বাচ্চুর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং মুক্তির দাবিতে তার সমর্থকরা আদালত প্রাঙ্গণে বিভিন্ন স্লোগান দেয় এবং প্রতিবাদ সমাবেশ করে। সমাবেশে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, রায়পুরা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আফজাল হোসেন, রাধানগর ইউপি চেয়ারম্যান ছাদেকুর রহমান, চর আড়ালিয়ার ইউপি চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির, সাবেক ছাত্রনেতা মোজাম্মেল হোসেন টিপু, নরসিংদী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদ রেহানুর ইসলাম লেলিনসহ আওয়ামী লীগের দলীয় নেতারা। এ সময় পুলিশের ভূমিকা ছিল নীরব।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে