Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.5/5 (32 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৩-২৪-২০১৪

পূর্ণিমার জীবনে পূর্ণতার আগমনি বার্তা

পূর্ণিমার জীবনে পূর্ণতার আগমনি বার্তা

ঢাকা, ২৪ মার্চ- প্রথম সন্তানের ব্যাপারটি পুরোপুরই আলাদা। তার আগমনের দিনটির জন্য অধিরে অপেক্ষা করতে থাকে পুরো পরিবার। তেমনি কিছু ঘটতে যাচ্ছে এক সময়ের রূপালি পর্দার রূপসী নায়িকা পূর্ণিমার জীবনেও। মে মাসে পূর্ণিমা প্রথমবারের মা হতে যাচ্ছেন।

"একজন নারীর জীবনে আসে পূর্ণতা মা হওয়ার মধ্য দিয়ে, নারী হিসেবে আমি সেই পূর্ণতা পেতে যাচ্ছি। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী মে মাসে প্রথম সন্তানের মুখ দেখব।" এভাবেই অনাগত সন্তান নিয়ে নিজের অনুভূতির কথা জানালেন বাংলা সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা পূর্ণিমা।

পূর্ণিমা বলেন, ‘আমি এখন আমার অনাগত সন্তানকে নিয়ে ভাবছি। মা হওয়া যে কতটা সৌভাগ্যের, আনন্দের এবং পাশাপাশি কষ্টের—তা অনুভব করছি। চিকিত্সকের পরামর্শ অনুযায়ী সব কাজকর্ম করছি। নিয়ম মেনে চিকিত্সকের সঙ্গে দেখা করছি।’

মাতৃত্বকালীন এ সময়টা পূর্ণিমা নিজের মতো করেই কাটাচ্ছেন। পরিবারের সদস্য ও আত্মীয়স্বজন এবং শুভাকাঙ্ক্ষীদের সঙ্গে আড্ডা ও গল্প করেই কাটছে। পূর্ণিমা এও বলেন, "অনাগত সন্তানের কারণে বেশ কয়েক মাস ধরে আমি সব ধরনের কাজ থেকে দূরে আছি। খুব জরুরি কিছু না থাকলে বাসা থেকে বের হই না। এই সুযোগে অনেক বছর ধরে যেসব আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে দেখা হতো না তাঁরা আমাকে দেখতে আসছেন। খোঁজখবর নিচ্ছেন। জীবনের অন্যরকম কিছু সময় পার করছি, যা আসলে বলে বোঝানো সম্ভব না।"

পূর্ণিমা অভিনীত সর্বশেষ শুটিংকৃত ছবির নাম ‘ছায়া-ছবি’। আর মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি হচ্ছে ‘লোভে পাপ পাপে মৃত্যু’। এ ছাড়া গত বছর রোজার ঈদের সময় একটি টেলিছবি ও বিজ্ঞাপনচিত্রের জন্য ক্যামেরার সামনে দাঁড়ান।

উল্লেখ্য,‘শত্রু ঘায়েল’ ছবিতে শিশুশিল্পী হিসেবে অভিনয় করলেও জাকির হোসেন রাজুর ‘এ জীবন তোমার আমার’ ছবির মধ্য দিয়ে নায়িকা পূর্ণিমার যাত্রা শুরু হয়। ১৯৯৮ সালে জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত ছবিটিতে পূর্ণিমা অভিনয় করেন রিয়াজের বিপরীতে। প্রথম ছবিতে সফলতার দেখা না পেলেও আস্তে আস্তে চলচ্চিত্রের অন্যতম সেরা নায়িকা হয়ে ওঠেন পূর্ণিমা। ‘মনের মাঝে তুমি’, ‘হূদয়ের কথা’, ‘প্রেমের নাম বেদনা’, ‘ছোট্ট একটু ভালোবাসা’, ‘আকাশছোঁয়া ভালোবাসা’, ‘সুলতান’, ‘শাস্তি’, ‘শুভা’, ‘মেঘের পরে মেঘ’, ‘স্বামী-স্ত্রীর যুদ্ধ’, ‘পিতামাতার আমানত’, ‘মাটির ঠিকানা’, ‘সাথী তুমি কার’, ‘সবাই তো ভালোবাসা চায়’, ‘মায়ের জন্য পাগল’, ‘মাটির ঠিকানা’সহ অসংখ্য ভালোমানের ছবিতে অভিনয় করে প্রশংসিত হন পূর্ণিমা। আর হয়ে ওঠেন ঢাকাই ছবির নির্মাতাদের ভরসাও।

কাজী হায়াত পরিচালিত ‘ওরা আমাকে ভালো হতে দিল না’ ছবির জন্য ২০১০ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার অর্জন করেন পূর্ণিমা। ২০০৭ সালের ৪ নভেম্বর পারিবারিকভাবে ফাহাদ জামিলের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন পূর্ণিমা।

ঢালিউড

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে