Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ৩০ মার্চ, ২০২০ , ১৬ চৈত্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (22 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৩-২৪-২০১৪

নিজামীর মামলার কার্যক্রম শেষ, যেকোনো দিন রায়

নিজামীর মামলার কার্যক্রম শেষ, যেকোনো দিন রায়

ঢাকা, ২৪ মার্চ- একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় এবার জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর রায়ের জন্য অপেক্ষা। অভিযুক্ত জামায়াতের এ শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের পাল্টা যুক্তি উপস্থাপনের মধ্য দিয়ে সোমবার বিচারিক কার্যক্রম শেষ হয়েছে। এখন মামলাটি রায়ের জন্য অপেক্ষমাণ। যেকোনো দিন রায় ঘোষণা করা হবে।

এদিন ট্রাইব্যুনাল-১ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি এম এনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বে দুই সদস্যের ট্রাইব্যুনাল এ আদেশ দেন।

এসময় নিজামীর পক্ষে উপস্থিত ছিলেন অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম। আর রাষ্ট্রপক্ষে পাল্টা যুক্তি উপস্থাপন করেন প্রসিকিউটর মোহাম্মাদ আলী।

এর আগে রোববার আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে রাষ্ট্রপক্ষ তাদের সমাপনী যুক্তিতর্ক শুরু করে। এরপর তা আংশিক অবস্থায় সোমবার পর্যন্ত মুলতবি করা হয় এবং নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তা শেষ করার আদেশ দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, বিচারপতি এটিএম ফজলে কবীরের নেতৃত্বাধীন ট্রাইব্যুনাল-১ গত বছরের ১৩ নভেম্বর আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে মতিউর রহমান নিজামীর মামলাটি রায়ের জন্য অপেক্ষমাণ (সিএভি) রাখেন।

ওই দিন সকালে আসামিপক্ষের আইনজীবী আসাদ উদ্দিন যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য সময় প্রার্থনা করলে তা নাকচ করে রায়ের তারিখ আদালত অপেক্ষমান রাখেন। পরবর্তীতে রায়ের জন্য অপেক্ষমান রাখা আদেশ পুনর্বিবেচনা (রিভিউ) চেয়ে আবেদন করা হলে ট্রাইব্যুনাল নিজামীর পক্ষে নতুন করে যুক্তি উপস্থাপনের সুযোগ দেন।
 
এরপর ট্রাইব্যুনাল-১ এর নতুন চেয়ারম্যান নিয়োগ দেয়া হলে পুনঃরায় মামলার যুক্তিতর্ক শোনার জন্য দিন ধার্য করা হয়।

এর আগে গত ১০ থেকে ১২ মার্চ নিজামীর বিরুদ্ধে ৩ কার্যদিবসে যুক্তিতর্ক  উপস্থাপন করেন প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ও মোহাম্মদ আলী। তবে আসামিপক্ষের যু্ক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে পাল্টা যুক্তিতর্ক ও সমাপনী বক্তব্য উপস্থাপন করবেন প্রসিকিউশন। এর মধ্য দিয়ে শেষ হবে নিজামীর বিরুদ্ধে মামলার বিচারিক প্রক্রিয়া। এরপর আইন অনুসারে রায়ের দিন ধার্য করবেন ট্রাইব্যুনাল।

প্রসঙ্গত, দশ ট্রাক অস্ত্র মামলায় গত ৩০ জানুয়ারি ঘোষিতে রায়ে মতিউর রহমান নিজামীসহ ১৪ আসামিকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন চট্টগ্রামের একটি আদালত।

এর আগে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল যেসব রায় দেন-
জামায়াতের সাবেক রুকন আবুল কালাম আযাদকে হত্যা, গণহত্যা, ধর্ষণ, অপহরণ এবং অগ্নিসংযোগের ৮টি অভিযোগের ৪টিতে মৃত্যুদণ্ড, ৩টিতে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়। তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির পর থেকেই তিনি পলাতক। তার অনুপস্থিতিতেই এ রায় দেয়া হয়।

জামায়াতের আমির গোলাম আযমকে ৯০ বছর নিরবচ্ছিন্ন কারাদণ্ড দেয়া হয়।

জামায়াতের নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। সহকারী সেক্রেটারি মুহাম্মদ কামারুজ্জামানেরও মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে।

বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর  মৃত্যুদণ্ড, আরেক নেতা আব্দুল আলীমের আমৃত্যু কারাদণ্ড।

নিউইয়র্কে অবস্থানরত জামায়াতে নেতা আশরাফুজ্জামান খানের মৃত্যুদণ্ড এবং যুক্তরাজ্যে অবস্থানরত আরেক নেতা চৌধুরী মুঈনুদ্দীনেরও মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মুজাহিদের মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

এবং জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আব্দুল কাদের মোল্লাকে হত্যা, গণহত্যা ও ধর্ষণের ৬টি অভিযোগ ৩টিতে ১৫ বছরের কারাদণ্ড, ২টিতে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়। আর একমাত্র তার রায়ই কার্যকর করা হয়েছে।

আইন-আদালত

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে