Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২৪ জুন, ২০১৯ , ১০ আষাঢ় ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (22 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-১৫-২০১২

বান্দরবানে বাস খাদে, নিহত ১৭

বান্দরবানে বাস খাদে, নিহত ১৭
বান্দরবান, জানুয়ারি ১৪ - বান্দরবানের থানচিতে একটি যাত্রিবাহী বাস পাহাড়ি খাদে পড়ে অন্তত ১৭ জন নিহত হয়েছেন। আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ২৬ জনকে।

শনিবার সকালে থানচির শিলাঝিরি এলাকায় ঘন কুয়াশার মধ্যে এ দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পেয়েই সেনাবাহিনী, বিজিবি ও পুলিশ সদস্যরা উদ্ধার তৎপরতা শুরু করলেও কুয়াশার কারণে কাজ বাধাগ্রস্ত হয়।

থানচি থানার ওসি নিয়ামত হোসেন বলেন, পাহাড়ি পরিবহনের বাসটি থানচি থেকে বান্দরবান যাচ্ছিল। সকাল সাড়ে ৭টার দিকে শিলাঝিরি এলাকায় পৌঁছানোর পর চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসটি রাস্তার পাশে কয়েকশ ফুট গভীর খাদে পড়ে যায়।

তিনি জানান, দুর্ঘটনাস্থল থেকে ১৩ জনের লাশ উদ্ধার করেন উদ্ধারকর্মীরা। আহতদের উদ্ধার করে পাঠানো হয় বান্দরবান সদর হাসপাতালে। সেখানে মারা যান আরো চারজন।

বান্দরবান সদর হাসপাতালের ডা. প্রবীর চন্দ্র ভৌমিক বলেন, হাসপাতালে আনার পর বাসচালকের সহকারী নুরুল ইসলামসহ চার জনের মৃত্যু হয়।

আহতদের মধ্যে ১৪ জনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান এই চিকিৎসক।

এর আগে থানচি উপজেলা মহিলা বিষয়ক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এমরান হোসেন বাসের চালকের মৃত্যু হয়েছে জনালেও পুলিশ নিশ্চিত করেছে চালক চিকিৎসাধীন আছেন।

নিহতদের মধ্যে ১১ জন পাহাড়ি এবং ৬ জন বাঙালি বলে পুলিশ জানায়।

থানচি থানার ওসি নিয়ামত করিম বলেন, ঘটনাস্থলে মারা গেছেন থানচি উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি উহ্লাচিং (৬১) ও তার মেয়ে কিকিনু মারমা (১২), কারিতাসের কর্মী সুশান্ত ত্রিপুরা (২৬), কান্তি ত্রিপুরা (২৫), মাসাথুই মার্মা (৪৫), রিংটু চাকমা (৩৫), মংচিংচা মারমা (৪৫), পর্যটক রাজিব চৌধুরী, হাসান, সুজন ও ডা. তাসদিদ রেজওয়ান মুগ্ধ (৩২)।

এদের মধ্যে প্রথম সাতজনের বাড়ি থানচি উপজেলায়। বাকি চারজন চাঁদপুরের বাসিন্দা। এছাড়া আরো দু’জনের পরিচয় জানা যায়নি।

ওসি জানান, হাসপাতালে আনার পর যাদের মৃত্যু হয় তারা হলেন- চালকের সহকারী (হেলপার) নুরুল ইসলাম, কারিতাসের কর্মী জ্যাকব ত্রিপুরা (২৮), সুম দত্ত বড়–য়া ও বেলুয়া।

এদের মধ্যে প্রথম দু’জনের বাড়ি বান্দরবানের আলীকদম, তৃতীয় জনের বাড়ি লামা। অপরজনের ঠিকানা জানা যায়নি।

চট্টগ্রাম মেডিক্যালে পাঠানো ১৪ জনের মধ্যে আট জনের নাম জানা গেছে- চিং রং মা (৫৭), ঘুংগা চন্দ্র ত্রিপুরা (৩৪), সাখই মুরং (বাড়ি বান্দরবানের রুমা), দসিং মারমা (১৪), বাস চালক সুভাষ দাশ (৪৫), সালেহিন (২৫) বাড়ি নারায়ণগঞ্জ, নুরুল হুদা টিপু (৩২), সাহাব উদ্দিন (৩০)। বাকি ছয়জনের পরিচয় জানা যায়নি।

বান্দরবান সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১২ জন। এরমধ্যে ১১ জন হলেন জেরসা বম (২৪), শৈক্যসা মারমা (৪৯), মেসাংচিং ১২), উক্যওয়াং (১৫), মংমে (১৩), মেসাং মারমা (৪৫), মং মে (৩৫), এনামুল হক (১৩), হ্লাসাচিং (১২), একরামুল হক (১২) ও উখ্যাওয়াং (১৫)। একজনের পরিচয় জানা যায়নি।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে