Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৯ , ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.9/5 (18 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৩-১৩-২০১৪

‘মেইড ইন বাংলাদেশ‘ বিজ্ঞাপনের পেছনে ষড়যন্ত্র

‘মেইড ইন বাংলাদেশ‘ বিজ্ঞাপনের পেছনে ষড়যন্ত্র

ঢাকা, ১২ মার্চ- যুক্তরাষ্ট্রের একটি পোশাক প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান তাদের বিজ্ঞাপনে এক মেয়ের নগ্নবক্ষে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ ব্যবহার করাকে দেশের তৈরি পোশাক খাতের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হিসেবে দেখছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

বুধবার সচিবালয়ে রাষ্ট্রায়ত্ত পণ্য বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠান টিসিবি কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের কছে এই অভিমত ব্যক্ত করেন তিনি।

একইসঙ্গে বাংলাদেশের সব বিষয়ে বিদেশিদের হস্তক্ষেপ না করারও আহ্বান জানান আওয়ামী লীগের এই জ্যেষ্ঠ নেতা।

তোফায়েল বলেন, “আমরা ষড়যন্ত্রের কথা বলেছি তার কারণ হলো চার বছর বয়সে একটি মেয়ে বাংলাদেশ থেকে আমেরিকা চলে গিয়েছে। এখন সে আমেরিকার বাসিন্দা, আমেরিকার অ্যাপারেলে চাকরি করে।”

ওই মেয়েকে অর্ধনগ্ন করে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ বলে প্রচার করা হয়েছে জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, “আমরা যে বলি গার্মেন্ট ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে, আমার এই কথা বলার তো যৌক্তিকতা আছে।

“একটা মেয়ে থাকে আমেরিকায়, চাকরি করে আমেরিকায় তাকে দিয়ে বলছে মেইন ইন বাংলাদেশ, একি কথা!”

গত ৩ মার্চ ম্যাক্স নামের ২২ বছর বয়সী ওই তরুণীর নগ্নবক্ষের ছবিসহ বিজ্ঞাপন প্রকাশ করে আমেরিকান অ্যাপারেল।

বিজ্ঞাপনের ক্যাপশনে বলা হয়েছে, ওই মেয়ে ৪ বছর বয়সে বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার মেরিনা ডেল রেতে পাড়ি জমায়। ম্যাক্স ২০১০ সাল থেকে আমেরিকান অ্যাপারেলের মার্চেন্ডাইচার হিসেবে কর্মরত আছেন।

তবে সব কিছুকে ছাপিয়ে বাংলাদেশের পোশাক রপ্তানি হবে এবং বিশ্বের মানুষ তা কিনবে বলেও মন্তব্য করেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

জিএসপি ফিরে পেতে ১৬টি শর্তের মধ্যে বেশিরভাগই পূরণ হয়েছে জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলছেন, বাকী তিনটি শর্ত ৩১ মার্চের মধ্যে পূরণ করা হবে।

“অ্যাকর্ড ও অ্যালায়েন্স যে অ্যাকশন প্ল্যানের কথা বলেছে তার মধ্যে ১৬টি শর্ত মোটামটিভাবে পূরণের দিকে চলেছি। বিশেষ করে তিনটি পয়েন্টে তারা জরুরিভাবে কাজ করতে বলেছে। ৩১ মার্চের মধ্যে এটা করে ফেলব।”

কলকারখানা পরিদর্শক নিয়োগ, ডাটাবেইজ তৈরি এবং ইপিজেড-এ ট্রেড ইউনিয়ন শর্তগুলোর ফয়সালা করে আগামী ১৫ এপ্রিলের মধ্যে প্রতিবেদন দেয়া হবে বলে জানান তোফায়েল।

“রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি থেকে কেউ যদি চিন্তা না করে- জিএসপি ফেরত পেতে আমাদের কোনো বাধা হবে না বলে আমরা মনে করি।”

সরকারের বক্তব্য গণমাধ্যমে প্রকাশ পাওয়ায় অ্যাকর্ড গঠনমূলক কথা বলেছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, রাতারাতি সব বিল্ডিং রিস্ট্রকচারিং করা সম্ভব না। তারাও এটা উপলব্ধি করেছে। তবে কতগুলো গঠনমূলক কথাও বলেছে তারা।

“কারখানার মালিকরা তিন থেকে ছয় মাসের মধ্যে ফায়ার এলার্ম এবং ফায়ার ডোর করতে করতে পারবে। আমাদের ব্যবসায়ীরা সচেতন হয়েছে। রানা প্লাজা ধসের পরে পোশাক খাতে কোনো দুর্ঘটনা হয় নাই।”

বিল্ডিং ও শ্রমিকদের নিরাপত্তা এবং ফায়ার সেফটি নিয়ে আইএলও’র সঙ্গে সরকার কাজ করছে বলেও জানান মন্ত্রী।

“পররাষ্ট্র, বাণিজ্য ও শ্রম মন্ত্রণালয় এবিষয়ে কাজ করছে। পাঁচজন রাষ্ট্রদূতকে নিয়ে একটি কমিটি আছে।”

বিভিন্ন দেশে শুল্কমুক্ত পণ্য রপ্তাণির বিষয়গুলো তুলে ধরে তোফায়েল বলেন, যেসব দেশে এই সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে না তাদের সঙ্গে চুক্তি করা হবে।

রানা প্লাজা ধসের পরে সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অ্যাকর্ড ও অ্যালায়েন্সের বাংলাদেশের পোশাক কারখানা পরিদর্শনের বিষয়ে আপত্তি তুলেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, জামিলুর রেজা চৌধুরীসহ বুয়েটের অনেক ভালো ভালো ইঞ্জিনিয়ার দেশেই আছেন। বাইরে থেকে এসে পরীক্ষা করা ভালো দেখায় না।

“তারা আমাদের যে সাহায্য করে তা তারা তাদের ভেতন-ভাতা বাবদ আবার নিয়ে যায়।”

তোফায়েল সাংবাদিকদের বলেন, “আশা করি বিদেশি, বন্ধুরা সব ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করবেন না। আমরা আমাদের মতো চলতে চাই।”

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে