Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০১৯ , ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.9/5 (72 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৩-০৮-২০১৪

অ্যামেরিকান অ্যাপারেলের বিজ্ঞাপনে বাংলাদেশি মডেলের নগ্নছবি

অ্যামেরিকান অ্যাপারেলের বিজ্ঞাপনে বাংলাদেশি মডেলের নগ্নছবি

লসঅ্যাঞ্জেলস, ০৮ মার্চ- কিছুদিন আগে অন্তর্বাসের বিজ্ঞাপনে ৬২ বছরের এক নারী মডেলকে ব্যবহার করে বিতর্কের ঝড় তুলেছিল লসঅ্যাঞ্জেলস ভিত্তিক পোশাক উৎপাদক, বিক্রেতা কোম্পানি অ্যামেরিকান অ্যাপারেল। এবার তারা আরেকটি বিজ্ঞাপন দিয়ে নিজেদের নিম্নরুচিকে আবার সামনে আনলো। প্রশ্নবিদ্ধ নতুন এই বিজ্ঞাপন নিয়ে ইতিমধ্যে সামাজিক মাধ্যমে তর্কের ঝড় উঠেছে।

বিতর্কিত ওই বিজ্ঞাপনটিতে একজন নারী মডেলের টপলেস ছবিতে আপত্তিকরভাবে মেড ইন বাংলাদেশ কথাটি লেখা হয়েছে। নগ্ন বুকের ওপর মেড ইন বাংলাদেশ লিখেই থামেনি কোম্পানিটি। এই মডেল কেন ব্যবহার করা হলো তাও বিস্তারিত ব্যাখ্যা করা চেষ্টা করেছে।

বলা হয়েছে,
"মাকস (নারী মডেল) একজন ম্যার্চেন্ডাইজার হিসেবে ২০১০ সাল থেকে অ্যামেরিকান অ্যাপারেলে কাজ করছেন। তার জন্ম বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায়। শিশুকালে মুসলিম বাবা-মার সঙ্গে মসজিদে যাওয়ার অভিজ্ঞতা মাকস স্পষ্টভাবে মনে করতে পারেন। ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটাতে মাকসের ৪ বছর বয়সে তার পরিবার ক্যালিফোর্নিয়ার ম্যারিনা ডেল রেতে আসে। হঠাৎ করে ঢাকা ছেড়ে আসার পরও তিনি ইসলামিক ঐতিহ্য অনুসরণ করতে থাকেন যা, পুরো শৈশবজুড়েই অব্যাহত রাখেন। হাইস্কুলে ঢুকে তিনি এর প্রয়োজনীয়তা হারিয়ে ফেলেন এবং ইসলামিক ঐতিহ্য থেকে দূরে সরে যান। নতুন সৃষ্টিশীলতার সন্ধান করতে গিয়ে মাকস দ্বিধাহীনভাবে এই ছবি তুলতে আগ্রহী হয়েছেন।
দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ার সংস্কৃতির কিছু বিষয় তার কাছে তাৎক্ষণিকভাবে আকর্ষণীয় মনে হয়। তবে একই সঙ্গে শহরের উপরি আনন্দের ভেতরের মিথ্যাটাকেও খুঁজতে আগ্রহী তিনি। তিনি নিজেকে একজন অ্যামেরিকান বা বাঙালি হিসেবে পরিচিত করানোর প্রয়োজন বোধ করেন না। নিজের জীবনকে অন্য কারো পরিচয়ে অভ্যস্ত করার প্রয়োজনও দেখে না। নানা বর্ণের লস অ্যাঞ্জেলসে যে বিষয়টি তাকে অর্থপূর্ণ করে তুলেছে তা হলো অ্যামেরিকান অ্যাপারেল পরিবারে তার উজ্জ্বল উপস্থিতি। এই ছবিতে মাকস পরেছেন হাই ওয়েস্ট জিন, এই পোশাকটি লস অ্যাঞ্জেলসের ডাউনটাউনে ২৩ জন দক্ষ শ্রমিক তৈরি করেছেন। এদের সবাইকে ভাল পারিশ্রমিক দেয়া হয়। শ্রমিকরা সবাই স্বাস্থ্যসেবার মতো মৌলিক সুবিধাদি পেয়ে থাকেন।"

ডেইলি বিস্ট লিখেছে, এই বিজ্ঞাপনটি সুকৌশলে মডেলের প্রেক্ষাপট তুলে আনার মাধ্যমে পোশাক শিল্পের শোষণ ও শ্রমিকদের অনিরাপদ পরিস্থিতিতে তুলে এনেছে। ২০১৩ সালের এপ্রিলে বাংলাদেশের রানা প্লাজায় দুর্ঘটনায় ১ হাজারের বেশি শ্রমিক নিহত হয়েছেন।

এ ঘটনার পর অ্যামেরিকান অ্যাপারেলের সিইও ডোভ চারনে বাইরে থেকে শ্রম শোষণের মাধ্যমে উৎপাদিত পণ্য আমদানির বিরুদ্ধে বিবৃতি দিয়েছিলেন। তারা বলছেন, বাংলাদেশের পরিস্থিতিটাকে সমালোচনা করতেই তারা এ বিজ্ঞাপনের পথ বেছে নিয়েছেন।

কিন্তু প্রশ্ন হলো, এ কাজে বাংলাদেশি একজন মডেলের টপলেস ছবিই কেন বেছে নিতে হবে? রুচির দিক থেকে এটি যে অগ্রহণযোগ্য সে কথা পশ্চিমের সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও এ নিয়ে তীব্র নিন্দা জানানো হচ্ছে।

অ্যাপারেলের বিজ্ঞাপনের ছবিটি দেখতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে