Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (21 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৩-০৭-২০১৪

বাবার ফেরার অপেক্ষায় ১১ মাস ‘নামহীন’

বাবার ফেরার অপেক্ষায় ১১ মাস ‘নামহীন’

যশোর, ০৭ মার্চ- বাবা বাড়ি ফিরলেই ভূমিষ্ঠ শিশুটির নাম রাখা হবে- এমন ইচ্ছে ছিল পরিবারের সবার। কিন্তু ১১ মাস কেটে গেলেও বাবা আর ফেরেনি; শিশুটিও রয়ে গেছে নামহীন।

১১ মাস বয়সী শিশুটির বাবা যশোরের বেনাপোল পৌরসভার প্যানেল মেয়র তারিকুল আলম তুহিন, যিনি গতবছরের ৭ মার্চ থেকে নির্খোঁজ।

তুহিন নিখোঁজ হওয়ার সময় তার স্ত্রী সালমা খাতুন ছিলেন সন্তানসম্ভবা। বাবা নিখোঁজের একমাস পর পৃথিবীর আলোর মুখ দেখে তার সন্তান।

পরিবারের সবার ইচ্ছে ছিল তুহিন ফিরলেই ঘটা করে সন্তানের নাম রাখা হবে। কিন্তু এক বছর ধরে তাদের শুধু অপেক্ষাতেই থাকতে হয়েছে।

তুহিনের বৃদ্ধ বাবা ইফসুফ আলম, মা আনোয়ারা বেগম ছেলেকে ফিরে পাবেন কি না এখনো জানেন না। কান্না থামছে না স্ত্রী সালমা খাতুনেরও।
তুহিন শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি।

৭ মার্চ, যেদিন থেকে তিনি নিখোঁজ সেদিনও রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের ন্যাম ভবনে যশোর-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ আফিল উদ্দিনের ফ্ল্যাটে দুপুর পর্যন্ত ছিলেন তিনি। এরপর থেকে তাকে আর মোবাইল ফোনে পাওয়া যায়নি।

তুহিনের বড়ভাই শরিফুল আলম শাহিনের অভিযোগ, “তুহিনকে অপহরণ করা হয়েছে।”

বেনাপোল কলেজের প্রভাষক শরিফুল আলম শাহিন বলেন, গত বছরের ৩ মার্চ বেনাপোলের মেয়র আশরাফুল আলম লিটন ও তুহিনের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। রাতে র‌্যাব তুহিনের খোঁজে গিয়ে তাকে পায়নি।

পরদিন সকালেই তুহিন ঢাকা চলে যায় দাবি করে তিনি বলেন, “নিখোঁজ হওয়ার ৫ দিন পর আমার চাচাতো ভাই সুমন বাদি হয়ে শেরেবাংলা নগর থানায় একটি জিডি করেন। পরে সেটি নিয়মিত মামলা হিসেবে পুলিশ গ্রহণ করে।

“মামলা হওয়ার ৭ মাস পর এর তদন্তভার গোয়েন্দা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।”
এদিকে তুহিনের খোঁজ দেয়ার কথা বলে তার পরিবারের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ করেছেন তার স্ত্রী সালমা খাতুন।

তিনি বলেন, “তুহিন নিখোঁজ হওয়ার পর বিভিন্ন সময় মোবাইল ফোনের মাধ্যমে একটি চক্র তুহিনের খোঁজ দেয়ার কথা বলে পরিবারের কাছ থেকে কয়েক লাখ টাকা নিয়েছে।”

স্বামী, অর্থ হারিয়ে প্রায় নিঃস্ব সালমা খাতুন সদ্যভূমিষ্ঠ সন্তান নিয়ে এখন ভুগছেন নিরাপত্তাহীনতায়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের এএসপি বাকী বিল্লাহ জানান, মামলাটি তদন্তাধীন। এই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের সনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। অনেককে জিজ্ঞাসাবাদও করা হচ্ছে। তদন্তের স্বার্থে এর বাইরে কিছু বলা যাবে না।

যশোর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে