Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২০ জানুয়ারি, ২০২০ , ৭ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-১১-২০১২

সরকারের সমালোচনার জবাবের দায়িত্বসশস্ত্র বাহিনীর নয়:

সরকারের সমালোচনার জবাবের দায়িত্বসশস্ত্র বাহিনীর নয়:
চট্টগ্রামের মহা-সমাবেশে বিএনপি চেয়ারপারসন ও বিরোধী দলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়ার দেয়া ভাষণ সম্পর্কে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ দপ্তর (আইএসপিআর) যে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি প্রচার করেছে, সে ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে বিএনপি। বুধবার দফতর সম্পাদকের দায়িত্বে থাকা দলটির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “সরকারের সমালোচনার জবাব দেয়ার দায়িত্ব সশস্ত্র বাহিনীর নয়।”
 আইএসপিআরকে দিয়ে সরকার এ বিজ্ঞপ্তি প্রচার করিয়েছে উল্লেখ করে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “সশস্ত্র বাহিনীতে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কারণে যে বিভ্রান্তি ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে সে সম্পর্কে উদ্বেগ প্রকাশের অধিকার দেশপ্রেমিক ও দায়িত্বশীল বিরোধী দলের অবশ্যই রয়েছে। আমরা আশা করেছিলাম, সরকার দেশবাসীকে অন্ধকারে না রেখে এ সম্পর্কে সুস্পষ্ট ও দায়িত্বশীল বক্তব্য দেবে। তা না করে আইএসপিআর-কে ব্যবহারের মাধ্যমে বিরোধী দলীয় নেত্রীর ভাষণ সম্পর্কে অসংযত ভাষায় বক্তব্য প্রচার করিয়ে সরকারই উস্কানিমূলক কাজ করেছে।”

 “বর্তমান পরিস্থিতিতে ধরে নিয়ে যাওয়ার পর কারো হদিস পাওয়া না গেলে তিনি গুম হয়েছেন বলে ধরে নেয়াই স্বাভাবিক। গত তিন বছরে বেশ কিছু সেনা কর্মকর্তাকে ধরে নিয়ে যাওয়া এবং তাদের অবস্থান সম্পর্কে পরিবার পরিজনেরও কোনো কিছু না জানার ঘটনা সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত ও বিভিন্ন সামাজিক নেটওয়ার্ক মারফত প্রচারিত হয়ে আসছে। নিরুদ্দিষ্ট সেনা কর্মকর্তাদের সম্পর্কে বিরোধী দলীয় নেতা সে কথাই বলেছেন” বলে দাবি করা হয় প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে।

 আরো বলা হয়, “দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া তার ভাষণে আমাদের জাতীয় সশস্ত্র বাহিনীর প্রতি স্বাধীনতার পর থেকেই আওয়ামী লীগ সরকারের অবজ্ঞা ও উপেক্ষা এবং সশস্ত্র বাহিনীর সমান্তরালে রক্ষীবাহিনী গঠনের বিবরণ তুলে ধরে আওয়ামী লীগ যে শক্তিশালী সশস্ত্র বাহিনী চায় না, সে কথাই পরিষ্কার ভাষায় বলেছেন। বর্তমান সরকারের আমলে পিলখানা হত্যাকাণ্ডে নির্মমভাবে সেনা কর্মকর্তাদের নিহত হবার ঘটনা তুলে ধরে তিনি বলেছেন, আগামীতে ওই মর্মন্তুদ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও উপযুক্ত বিচার করা হবে।”
 বিরোধী দলীয় নেতার বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিয়ে বলা হয়, “সরকার একটি রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান এবং সশস্ত্র বাহিনী রাজনীতির ঊর্ধ্বে একটি জাতীয় প্রতিষ্ঠান। বিরোধী দলীয় নেতা সরকারের রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত ও কার্যকলাপ সম্পর্কে কোনো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ করলে সেই সমালোচনা সশস্ত্র বাহিনীকে লক্ষ্য করে করা হয়েছে বলে প্রচার করাটা নিছক অপপ্রচার ও অপব্যাখা ছাড়া আর কিছুই নয়। সরকারের বিরুদ্ধে যে সমালোচনা তার জবাব দেয়ার দায়-দায়িত্বও সশস্ত্র বাহিনীর নয় ।”
আইএসপিআর’র সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিরোধী দলীয় নেতার বক্তব্য সম্পর্কে ‘উস্কানিমূলক, কাণ্ডজ্ঞানহীন এবং অনভিপ্রেত’ শব্দগুচ্ছ ব্যবহার খুবই অনভিপ্রেত ও দুঃখজনক উল্লেখ করে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “ শক্তিশালী ও সুশৃঙ্খল সশস্ত্র বাহিনী গঠন এবং এই বাহিনীর ভাবমর্যাদা রক্ষা ও বৃদ্ধির ক্ষেত্রে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের ভূমিকা সর্বজনবিদিত। কাজেই দেশনেত্রী সম্পর্কে এ ধরনের অভিযোগই প্রকৃতপক্ষে বিভ্রান্তিমূলক।”

 

প্রেস বিজ্ঞপ্তির শেষ দিকে বলা হয়, “সেনাবাহিনীর পরিচালন রীতি, সেনা আইন এবং শৃঙ্খলা বিধানের পদ্ধতি সম্পর্কে বিরোধী দলীয় নেতা সম্যক অবহিত রয়েছেন। তার ভাষণের মূল নির্যাস ছিল, প্রতিষ্ঠিত সেই সব রীতি, আইন ও পদ্ধতির ব্যত্যয় ঘটিয়ে বর্তমান সরকারই এই বাহিনীকে দুর্বল করছে। বিরোধী দলীয় নেতার এই সব অভিযোগের জবাব না দিয়ে উদ্দেশ্যমূলক ও বিভ্রান্তিকর প্রচারণা দেশবাসীর কাঙ্ক্ষিত, বাঞ্ছিত ও কাম্য নয়।”

 

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে