Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (34 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-২৮-২০১৪

একই মঞ্চে লতা ও মোদী

একই মঞ্চে লতা ও মোদী

মুম্বাই, ২৮ জানুয়ারি- একই মঞ্চে লতা মঙ্গেশকর ও নরেন্দ্র মোদী। এবং তা নিয়ে রাজনীতির অঙ্ক কষছেন ভারতের রাজনীতিকরা। লতা অবশ্য স্পষ্টই জানাচ্ছেন, এতে রাজনীতি নেই। কিন্তু জল্পনা থাকছেই। কারণ, গত নভেম্বরে এক অনুষ্ঠানে লতা জানিয়েছিলেন, তিনি মোদীকেই প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চান।

চিন-ভারত যুদ্ধে শহীদ সেনাদের স্মরণে ১৯৬৩ সালের ২৭ জানুয়ারি রামলীলা ময়দানে প্রথম গান ''ও মেরে ওয়াতন কে লোগোঁ'’ গেয়েছিলেন লতা। তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরু-সহ উপস্থিত সকলেরই চোখ ভিজে গিয়েছিল তখন। কারণ, মাত্র কয়েক মাস আগে শেষ হওয়া চিন-ভারত যুদ্ধের স্মৃতি তখনও টাটকা। আজ সেই গানেরই ৫১ বর্ষপূর্তি উপলক্ষে মুম্বইয়ের মহালক্ষ্মী রেসকোর্সে লতাকে সম্মান জানালেন বিজেপি-র প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী। লতার বক্তব্য, “সঙ্গীত ও রাজনীতি সম্পূর্ণ ভিন্ন। আমি রাজনীতি নিয়ে আগ্রহী নই।”

কিন্তু পুরো বিষয়টি যে রাজনীতিমুক্ত নয় তা দেশটির নেতারাই বলছেন। এক বিজেপি নেতার কথায়, মোটেই তা নয়। জাতীয়তাবাদী রাজনীতি মোদীর ভাবমূর্তির সঙ্গে খাপ খায়। হরিয়ানাতেও প্রাক্তন সেনাদের সভায় সেই রাজনীতি করেছিলেন তিনি। জাতীয়তাবাদী রাজনীতির যে সব ক্ষেত্রে কংগ্রেসের কিছুটা গলদ রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে, সেগুলি নিয়েই ঝাঁপাতে চান মোদী।

তা-ই সর্দার পটেলের মূর্তি নিয়ে প্রচার চরমে নিয়ে গিয়েছিল মোদী শিবির। আবার সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মদিন নিয়ে মাতামাতি করেছে বিজেপি। এখন প্রজাতন্ত্র দিবসের পরে ‘ও মেরে ওয়াতন কে লোগোঁ’-র ৫১তম বর্ষপূর্তিতে লতাকে সম্মান জানিয়ে কংগ্রেসকে ধাক্কা দিতে চেয়েছেন মোদী। জাতীয়তাবোধের সঙ্গে এই গানটির সম্পর্ক যোগ। তার সঙ্গে জড়িয়ে জওহরলাল নেহরু ও চিন-ভারত যুদ্ধের স্মৃতিও। ওই বিজেপি নেতার মতে, কংগ্রেস নেহরু-গাঁধী পরিবারের বন্দনা করতে গিয়ে এই স্মৃতিকে অবহেলা করেছে। লতাকে সম্মান জানিয়ে মোদী এই বার্তাই দিতে চেয়েছেন।

দক্ষিণ এশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে