Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০১৯ , ৬ আষাঢ় ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-২৫-২০১৪

বাণিজ্য মেলায় মানুষের স্রোত

বাণিজ্য মেলায় মানুষের স্রোত

ঢাকা, ২৫ জানুয়ারি- ছুটির দিন হওয়ায় বাণিজ্য মেলায় মানুষের স্রোত নেমেছে। শুক্রবার মেলার ফটক খোলার আধঘণ্টার মধ্যেই মেলাপ্রাঙ্গণ দর্শনার্থী আর ক্রেতাদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে। দীর্ঘ সারিতে অপেক্ষার প্রহর গুণেও শত শত মানুষ প্রবেশ করছেন মেলা অভ্যন্তরে। নানা বয়সী মানুষের ভিড়ে যেন পা ফেলার জায়গা নেই!

অন্যান্য দিনের তুলনায় শুক্রবার ছুটির দিনে সাধারণত দর্শনার্থীদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্যণীয়। তবে গত শুক্রবারের থেকে আজ আরও বেশি ভিড় দেখা গেছে।

আজ ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার ১৪তম দিনে মেলা ফটকে দেখা গেছে, মেলায় প্রবেশের জন্য দীর্ঘ সারিতে অপেক্ষারত আছেন শত শত মানুষ। ফটকের সামনে তিল পরিমাণ জায়গা ফাঁকা নেই সারিতে দাঁড়ানোর। মেলায় প্রবেশে ইচ্ছুক দর্শনার্থীদের সামাল দিতে কর্তৃপক্ষকে এক প্রকাশ হিমশিম খেতে হয়েছে।

বিকেলে মেলা প্রাঙ্গণে দেখা গেছে, দর্শনার্থী ও ক্রেতাদের স্রোত নেমেছে মানুষের। কোথাও পা ফেলার ঠাঁই নেই। ভিড় ঠেলেই ক্রেতারা তাদের পছন্দের বিভিন্ন পণ্য ক্রয় করছেন। তবে অনেকেই শুধু দেখার জন্য কিংবা ঘুরতে এসেছেন মেলায়। তাদের অনেকেই ছবি তোলায় ও পণ্য দেখা নিয়েই ব্যস্ত। মেলায় দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে রঙিন পানির ফোয়ারা, মিনি সুন্দরবন, শিশু পার্ক উল্লেখযোগ্য। এছাড়াও বঙ্গবন্ধু স্মৃতি প্যাভিলিয়ন, রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর প্যাভিলিয়নেও দর্শনার্থীদের ছবি তুলতে দেখা গেছে। যেন ছবি তোলার এক প্রতিযোগিতা চলছে!

মেলায় বেশির ভাগ স্টলেই ক্রেতাদের টানতে বিভিন্ন অফারের সুযোগ দিচ্ছে বিক্রেতারা। এছাড়াও পণ্যে মূল্যছাড় ও একটা কিনলে সঙ্গে আরেকটা ফ্রি পণ্যের ছাড় তো আছেই। মেলার প্রসাধনী বিভিন্ন পণ্যের স্টলে নারীদের ভিড় অনেক। বেছে নিচ্ছেন পছন্দসই প্রসাধনী। এছাড়াও অলঙ্কার আর ক্রোকারিজের স্টলগুলোতেও তারা ভিড়ছেন।

মেলার বেচাকেনায় খুশি বিক্রেতারাও। পণ্যের প্রচারের সঙ্গে সঙ্গে স্টলে রয়েছে মূল্যছাড় ও উপহারের ছড়াছড়ি। আর বিক্রেতারাও মেলার বর্তমান অবস্থা নিয়ে খুশি। মেলা শুরুর আগে নির্বাচন ও রাজনৈতিক অস্থিরতা নিয়ে মানুষের মনে আতঙ্ক থাকলেও এখন সে অবস্থায় নেই। ফলে সাধারণ মানুষরা ছুটছেন মেলায়। বিক্রেতারা প্রত্যাশা করছেন, মেলার বাকি দিনগুলোতে দর্শনার্থীদের ভিড় বাড়ার পাশাপাশি প্রত্যাশিত মুনাফা আয় হবে।

মেলায় এসেছেন মিরপুরের রাহনুমা খাতুন। মেলা থেকে কিনেছেন বেশ কিছু ক্রোকারিজ পণ্য। তিনি বলেন, বাণিজ্যমেলায় পণ্য কেনায় কিছু সুবিধা আছে। এক সঙ্গে হাজার রকম জিনিসপত্র দেখা যায়। এর মধ্য থেকে ভালো ভালো জিনিসপত্র কেনা যায়। ঘুরে ঘুরে ভালো জিনিস বাছাই করে কেনার বিষয়টা একেবারেই আলাদা। এতে ঠকার সম্ভাবণা নেই। যদিও ভিড়ের মধ্যে ভালো জিনিস খোঁজাটা কষ্টের ব্যাপার।

একই কথা বললেন পুরান ঢাকার বংশাল থেকে আসা আশফিয়া রহমান। তবে তিনি এখনও কোনো কিছু কেনাকাটা করেননি। তিনি বলেন, ছুটির থাকায় আসতে পেরেছি। অন্যদিন তো আসার সুযোগ নেই। দেখি কিছু কিনতে পারি কি না।

উল্লেখ্য, প্রতিবছর জানুয়ারির শুরুর দিন থেকে মাসব্যাপি আর্ন্তজাতিক বাণিজ্য মেলা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। তবে জাতীয় নির্বাচনের কারণে এবছর ১০ দিন পর মেলার শুরু হয়েছে।

 

 

ব্যবসা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে