Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই, ২০১৯ , ১ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 1.0/5 (1 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-০৮-২০১২

যানজট ঠেলে কুমিল্লায় রোডমার্চ

যানজট ঠেলে কুমিল্লায় রোডমার্চ
সাড়ে তিন ঘণ্টার যানজট ঠেলে কুমিল্লার চান্দিনায় পৌঁছেছেন খালেদা জিয়া। মাধাইয়া মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি কলেজ মাঠে প্রথম পথসভায় অংশ নেন তিনি।
তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলনকে চূড়ান্ত রূপ দিতে রোববার সকাল ১১টায় নয়া পল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে চট্টগ্রাম অভিমুখে রোড মার্চ শুরু করেন বিএনপি চেয়ারপার্সন। ব্যাপক যানজটের কারণে চান্দিনা পৌঁছাতে বেজে যায় দুপুর আড়াইটা।

খালেদা মাধাইয়া মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি কলেজ পথসভার মঞ্চে উপস্থিত হলে নেতা-কর্মীরা তুমুল করতালি দিয়ে তাকে অভিনন্দন জানায়। কয়েক হাজার মানুষের উপস্থিতিতে রীতিমতো জনসভার রূপ পায় এ পথসভা।

রোড মার্চ করে চট্টগ্রাম যাওয়ার পর সোমবার বন্দর নগরীর পলোগ্রাউন্ডে জনসভায় সরকার পতনের আন্দোলনের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করার কথা রয়েছে খালেদা জিয়ার।

সকালে তার গাড়িবহর পল্টন ছাড়িয়ে মতিঝিল শাপলা চত্বরের কাছে পৌঁছেই যানজটে পড়ে। কাঁচপুর সেতুর এক পাশে যান চলাচল সকাল থেকে বন্ধ থাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম সড়কে এই যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে আটকা পড়ে রোডমার্চের কয়েক হাজার গাড়ি। খালেদা জিয়ার গাড়িকে এই যানজট পার করিয়ে দিতে পুলিশের ব্যাপক বেগ পেতে হয়।

বিরোধী দলীয় নেতার গাড়িবহর কাঁচপুর সেতু অতিক্রম করে বেলা পৌনে ১টার দিকে। চান্দিনার মাধাইয়া পর্যন্ত ৫০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করতে সময় লাগে সাড়ে ৩ ঘণ্টা।

ঢাকা থেকে চান্দিনা পর্যন্ত আসার পথে সায়েদাবাদ, ডেমরা, শনির আখড়া, কাঁচপুর সেতু, সোনারগাঁও মোড়, মদনপুর, মেঘনা ব্রিজের দুই পাড়, ববের চর, দাউদকান্দি সেতুর দুই পাড়, গৌরীপুর ও ইলিয়টগঞ্জে নেতা-কর্মী-সমর্থকরা রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে বিরোধী দলীয় নেতার গাড়িতে ফুল ছিটিয়ে অভিনন্দন জানায়। খালেদা জিয়া হাত নেড়ে তাদের অভিনন্দনের জবাব দেন।

এই রোডমার্চ উপলক্ষে চান্দিনা পর্যন্ত পথে সড়কের দুই পাশে ও সড়কদ্বীপে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের প্রতিকৃতি বসানোর পাশাপাশি শতাধিক তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে।

রোডমার্চের গাড়িবহর কুমিল্লা পৌঁছানোর আগেই লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সাবেক প্রতিমন্ত্রী রেদোয়ান আহমেদে সভাপতিত্বে সকাল বেলা ১২টা থেকে পথসভা শুরু হয়ে যায়। স্থানীয় বিএনপি নেতারা এতে বক্তব্য দিতে থাকেন।

মাধাইয়ার পর চান্দিনার মানিকচরের নূর মসজিদ মাঠ ও কুমিল্লার পদুয়া ট্রাক স্টেশন প্রাঙ্গণে দুটি পথসভা হবে। বিকালে ফেনী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এক জনসভায় বক্তব্য রাখবেন খালেদা জিয়া।

এই রোড মার্চ ব্যবস্থাপনা কমিটির আহবায়ক সাদেক হোসেন খোকা সকালে বলেন, “ঢাকা থেকে চার হাজার গাড়ির বহর নিয়ে আমরা যাত্রা শুরু করেছি। আরামবাগ, ফকিরা পুল, মতিঝিল, হাটখোলা, সায়েদাবাদসহ বিভিন্ন স্থান থেকে এসব গাড়ি চেয়ারপার্সনের বহরের সঙ্গে যুক্ত হবে।

সাদা রংয়ের একটি পাজেরো জিপে করে এই রোডমার্চের নেতৃত্ব দিচ্ছেন খালেদা জিয়া। গাড়িতে তার সঙ্গে আছেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান।

“আশা করছি চট্টগ্রাম গিয়ে এই সংখ্যা দাঁড়াবে ছয় হাজারে”, যোগ করেন তিনি।

রোডমার্চ চট্টগ্রাম পৌঁছানোর পর সোমবার বিকালে পলোগ্রাউণ্ড মাঠে সর্বশেষ জনসভায় বক্তব্য দেবেন বিএনপি চেয়ারপার্সন।

তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থা ফেরানোর দাবিতে এর আগে গত বছরের অক্টোবর মাসে সিলেট ও উত্তরাঞ্চলের চাঁপাই নবাবগঞ্জ এবং নভেম্বরে খুলনা অভিমুখে রোড মার্চ করেন বিএনপি চেয়ারপার্সন। তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থা ফেরানোর দাবিতে ৬ বিভাগেই রোড মার্চ করার ঘোষণা থাকলেও পরে রংপুর ও বরিশালের কর্মসূচি বাতিল করা হয়।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে