Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২০ , ৮ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (16 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-২১-২০১৪

অহংকারী মাহি!

অহংকারী মাহি!

ঢাকা, ২১ জানুয়ারি- রবিবার দুপুরে অনেক দিন পর বেশ রমরমা দেখা গেছে এফডিসি। একসঙ্গে চার ছবির শুটিং এবং পাশাপাশি চার জোড়া নায়ক-নায়িকাকে উপস্থিতি দেখা গেছে সেখানে। তিন নাম্বার ফ্লোরে এম এ জলিল অনন্তের পরিচালনায় ‘মোস্ট ওয়েলকাম-টু’ ছবির শুটিং করছেন অনন্ত ও বর্ষা। কড়ইতলায় শুটিং চলছে ‘রানা প্লাজা’ ছবির। বাংলাদেশ সরকারের অনুদানপ্রাপ্ত এ ছবিটি পরিচালনা করছেন নজরুল ইসলাম খান। ছবিতে প্রধান দু’টি চরিত্রে অভিনয় করছেন সাইমন ও পরী মনি। ৮ নাম্বার ফ্লোরে শুটিং চলছে ইফতেখার চৌধুরী পরিচালিত ‘ওয়ান ওয়ে’ ছবির। এই ছবিতে অভিনয় করছেন বাপ্পী-ববি। চিত্রনায়ক জসিম ফ্লোরে চলছে ‘দেশা-দ্য লিডার’ ছবির শুটিং। সৈকত নাসিরের পরিচালনায় এতে অভিনয় করছেন নবাগত শিপন ও মাহি।

অনেক দিন পরে এতো ছবির শুটিং একসঙ্গে হওয়ার কারণে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এফডিসি যেন মিলনমেলায় পরিণত হয়। এসব সংবাদ পেয়েই সেখানে ছুটে যান একাধিক সংবাদ কর্মী। বিভিন্নজনের সঙ্গে তারা কথা বলেন এবং একে একে সব নায়ক-নায়িকা-শিল্পীর ছবি তোলেন। সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশের জন্য সবাই খুব সম্মানের সঙ্গে সমর্থন জানিয়ে ছবি তোলায় সহযোগিতা করেন। অনন্ত, বর্ষা, বাপ্পী ববি, সাইমন, পরী মনি সবাই যেখানে আগ্রহ নিয়ে একের পর এক ছবি তোলায় অংশ নিয়েছেন, সেখানে মাহির কাছে সবাই বাধাপ্রাপ্ত হন। সময়ের এ ব্যস্ত নায়িকা ছবি তুলতে আপত্তি জানান। আগে থেকে এপয়েনমেন্ট নেয়া না হলে তিনি কাউকে তার ছবি তুলতে দেন না- এমনটাই জানান একাধিক সংবাদ কর্মীকে। মাহির এহেন আচরণে সবাই খুব হতাশ হন। অথচ মাহির ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই এই সংবাদ কর্মীরাই তাকে নানাভাবে সাহায্য সহযোগিতা করেছেন। আজ সেই মাহি পল্টি দিয়েছেন তাদের সঙ্গেই। তাই একাধিক সংবাদ কর্মী মাহিকে কিছু না বলে ফিরে আসেন। এরই মধ্যে একজন সিনিয়র ফটোসাংবাদিক বলেন, এই দুই নাম্বার ফ্লোরেই চিত্রনায়ক জসিম ভাইকে দেখেছিলাম কতো আন্তরিক। তার নামে আজ ফ্লোরেরই নামকরণ করা হয়েছে। এরপরে অনেককেই দেখেছি তার মতো। আবার এমন অনেককেও দেখেছি যারা ভাবের কারণে হারিয়ে গেছে। মাহিও সেই পথে হাঁটছেন। রাতারাতি তারকা বনে যাওয়ায় নিজেকে সামলাতে পারছেন না তিনি। তাই তার মধ্যে অহংকার ভাব চলে এসেছে। আবার এই মাহিই একদিন এসে বলবেন, ভাই আমাকে নিয়ে একটু লিখবেন! মাহি এখন উড়ছে, তাকে উড়তে দাও। কারণ, তার ব্যবহারে আজ স্পষ্ট যে, চাইলেও তার কপালে মৌসুমী, শাবনূর, পপি, পূর্ণিমার মতো তারকা খ্যাতি জুটবে না। আজও এই নায়িকারা সংবাদ কর্মীদের সঙ্গে অনেক আন্তরিক। মাহি প্রসঙ্গে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক চলচ্চিত্র প্রযোজক-পরিচালক বলেন, তাকে আরও নমনীয় হতে হবে। মনে রাখতে হবে- তিনি শিল্পী। ভাব ধরলে একদিন বিপদে পড়তে হবে। তিনি ভাগ্যবান যে, জাজ মাল্টিমিডিয়ার মতো একটি ব্যানার পেয়েছেন, আবদুল আজিজ, শিষ মনোয়ারের মতো প্রযোজক পেয়েছেন। একের পর এক নামিদামী পরিচালক পেয়েছেন। কিন্তু তা বজায় রাখতে একের পর এক প্রতিবন্ধকতা তাকেই দূর করতে হবে। সেখানে তিনি নিজে প্রতিবন্ধকতার কারণ হলে একদিন তিনিই হারিয়ে যাবেন। চলচ্চিত্রের ইতিহাস তাই বলে। মনে রাখতে হবে, খারাপ ব্যবহার দিয়ে টপ পজিশনে থাকা ক্ষণিকের। আর ভাল ব্যবহার দিয়ে সবার হৃদয়ে থাকাটা চিরকালের।

ঢালিউড

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে