Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.3/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-২১-২০১৪

বিএনপির গণসমাবেশের টুকরো কিছু খবর

তোফিকুল ইসলাম


বিএনপির গণসমাবেশের টুকরো কিছু খবর

ঢাকা, ২১ জানুয়ারি- ৫ জানুয়ারির নির্বাচন ‘বর্জনের’ জন্য দেশবাসীকে অভিনন্দন জানাতে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গণসমাবেশের আয়োজন করে বিএনপি। সোমবার এ গণসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন বেগম খালেদা জিয়া। বিএনপির গণসমাবেশের আরও কিছু টুকরো খবর......

বিএনপির গণসমাবেশে প্রথমবারের মতো কাজী জাফর : বিএনপির কোন কর্মসূচিতে প্রথম বারের মতো প্রকাশ্যে অংশ নিলেন এরশাদের জাতীয় পার্টি থেকে সদ্য বহিষ্কৃত নেতা কাজী জাফর। সোমবারের গণসমাবেশে দেখা গেছে জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ নেতার নির্ধারিত আসনে স্থান পেয়েছেন কাজী জাফর আহমদ। এ অবস্থায় সমাবেশে আসা ১৮ দলের শরিক নেতা ও বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে কৌতূহল সৃষ্টি হয়েছে। বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটে জামায়াত থাকবে কি-না তা নিয়ে চলছে কানাঘুষা।

জোটের বিগত সব কর্মসূচিতে দেখা গেছে- মঞ্চে খালেদা জিয়ার পরের আসনটি এলডিপির চেয়ারম্যান কর্নেল অব. অলি আহমেদের জন্য নির্ধারিত থাকতো। এরপরের আসনটি থাকতো জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ নেতার জন্য। তবে আজকে এর ব্যতিক্রম চোখে পড়েছে। কারণ জামায়াত সমাবেশে যোগ দেবে না-এ কারণে গণসমাবেশে জামায়াত নেতার নির্ধারিত আসনে জায়গা পেয়েছেন জাতীয় পার্টি একাংশের চেয়ারম্যান কাজী জাফর আহমদ।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপির গণসমাবেশে কাজী জাফর বলেন, বির্তকিত নির্বাচন দিয়ে ক্ষমতায় টিকে থাকা যাবে না। শাসক দল বির্তকিত নির্বাচন করে গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। এ নির্বাচন যে বির্তকিত তা জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে প্রমাণিত।

খালেদা জিয়ার তারিখ বিভ্রাট : সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের গণসমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। সোমবার বিকাল সাড়ে চারটা থেকে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী দেওয়া বক্তব্যে খালেদা জিয়া বারবার তারিখ বিভ্রাটে পড়েন। বক্তব্য শুরুর দিকেই তিনি ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের জায়গায় ৫ মে উল্লেখ করেন। এর পর তিনি বক্তব্যের এক ফাঁকে ৫ জানুয়ারির পরিবর্তে ৫ ফেব্রুয়ারি বলে বসেন। যদিও দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল পেছন থাকে বার বার তারিখ সংশোধন করে দিয়েছেন। কিন্তু বক্তব্যর শেষ দিকে এসেও আবারও ৫ জানুয়ারিকে ৫মে বলেই আখ্যায়িত করেন খালেদা জিয়া। উল্লেখ্য গত বছরের ৫ মে হেফাজতে ইসলামের শাপলা চত্বরে সমাবেশকে ঘিরে সৃষ্ট তাণ্ডব বাংলাদেশের রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে আছে।

ইনকিলাব প্রদর্শন : বিএনপির আজকের গণসমাবেশে খালেদা জিয়া প্রমাণ হিসেবে প্রথমেই দৈনিক ইনকিলাব পত্রিকার একটি সংখ্যা প্রদর্শন করেন। উল্লেখ্য, ভুল ও স্পর্শকাতর সংবাদ প্রকাশের ফলে ইনকিলাবের প্রকাশনা বন্ধ করে দিয়েছে সরকার। এছাড়া ইনকিলাবের তিন সাংবাদিক এখনো জেল হাজতে রয়েছেন।

না, না, না : বিএনপির গণসমাবেশে বক্তৃতা দেওয়ার সময় দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে তিনটি প্রশ্ন ছুড়ে দেন।

বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল
তিনি জানতে চান , আপনারা কি এই নির্বাচন মেনে নিয়েছেন? জনতা উত্তর দেন 'না'।
দ্বিতীয় প্রশ্ন : এটা কি নির্বাচন হয়েছে? জনতা উত্তর দেয়, 'না'।
তৃতীয় প্রশ্ন : আপনি কি আপনার ভোট দিতে পেরেছেন?
সমাবেশে উপস্থিত জনতা একসঙ্গে রব তোলেন, 'না'।

গণসমাবেশে অংশ নেয়নি জামায়াতে ইসলামী : বিএনপির গণসমাবেশে অংশ নেয়নি ১৮ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক দল বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামি। বিগত দিনগুলোতে বিএনপি বা ১৮ দলের যে কোন কর্মসূচিতে জামায়াতের প্রত্যক্ষ অংশ গ্রহণ থাকলেও আজকের কর্মসূচিতে তেমন কোন প্রভাব লক্ষ্য করা যায়নি। এমনকি মঞ্চে ১৮ দলের অনেক শরিক দলের নেতারা উপস্থিত থাকলেও ছিলেন না জামায়াতের কোন নেতা। পুরো সমাবেশস্থলে জামায়াতের ব্যনারে কোন মিছিল লক্ষ্য করা যায়নি। একরকম বলা যায় জামায়াত ছাড়াই আজকের সমাবেশ পালন করল বিএনপি।

খালেদার গাড়িবহর ট্রাফিক সিগন্যালে আটকা : সমাবেশ শেষ করে ফেরার পথে কারওয়ানবাজার এসে আটকে যায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার গাড়িবহর। তাঁর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সামনের পুলিশের গাড়ি থেকে একনাগাড়ে সাইরেন বাজতে থাকলেও সোনারগাঁ হোটেলের সামনে সার্কফোয়ারা ট্রাফিক সিগন্যালে বহরটি প্রায় তিন মিনিট আটকে থাকে। এরপর নিরাপত্তা পুলিশের গাড়ি থেকে অফিসার ছুটে গিয়ে ট্রাফিক পুলিশকে অবহিত করে রাস্তা পরিষ্কার করলে আবার চলতে শুরু করে গাড়িবহরটি।

 

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে