Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (15 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-১৯-২০১৪

কাঁদলেন, কাঁদালেন ১১ স্বজনহারা

তবিবর রহমান


কাঁদলেন, কাঁদালেন ১১ স্বজনহারা

যশোর, ১৯ জানুয়ারি-  সভারের রানাপ্লাজা ট্রাজেডির শিকার যশোরে স্বজনহারাদের কান্না এখনও থামেনি। রোববার নিহত ১১ জনের স্বজনরা যশোর জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে আর্থিক সহায়তা নিতে এসে কেঁদে বুক ভাসিয়েছেন।

নিহত রত্না খাতুনের মা কেশবপুরের বাসিন্দা রশিদা খাতুন সহায়তা নিতে এসে বারবার ডুকরে কেঁদে উঠছিলেন। বলছিলেন, ‘জিনিস দিয়ে আমি কি করব, আমার মা কই, আমার মাকে এনে দাও, আমি জিনিস চাই না।’

পাশে বসা ছিলেন নিহত মিলনের মা শার্শার চন্দ্রপুর গ্রামের নূর জাহান হাসনা। সন্তান হারানোর ব্যথায় কাতর তিনিও। শুধু তারা এক নন, অন্য পরিবারগুলোও স্বজন হারানো ক্ষত বয়ে বেড়াচ্ছে। এদৃশ্যে চোখে জল ধরে রাখতে পারেনি উপস্থিত লোকজনও।

রানাপ্লাজার ট্রাজেডি শিকার হয়ে যশোরে মারা যায় ১২ জন। এরমধ্যে কেশবপুরের পরচক্রা গ্রামের মতিজা বিবির কোনো স্বজন নেই। অন্য ১১ জন হলেন- শার্শার বাগআচঁড়া গ্রামের এসএমএ সাঈদ, চন্দ্রপুর গ্রামের ফেরদৌসি ও হাসান উদ্দিন মিলন, ঝিকরগাছার আজমপুর গ্রামের শারমীন সুলতানা, ব্যাংদাহ গ্রামের মুক্তা খাতুন, খুরুসা গ্রামের সালমা খাতুন ও দিঘিরপাড় গ্রামের ইসরাইল বিশ্বাস, কেশবপুরের বাঁশবাড়িয়া গ্রামের রহিমা খাতুন, প্রতাপপুরের রত্না খাতুন, দোরমুটিয়া গ্রামের তাসলিমা খাতুন ও চৌগাছা গুয়াতলি সাবিনা থাতুন।

নিহতের স্বজনদের স্ববলম্বী করতে ভ্যান, রিকশা, দোকান ও গরু কিনতে টাকা দেয়া হয়েছে। অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মোস্তাফিজুর রহমান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে স্বজনহারা ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে সহায়তা দেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এমআরডিআই নির্বাহী পরিচালক হাসিবুর রহমান, গ্রিন ওয়ার্ল্ড কমিউনিকেশনের চেয়ারম্যান হেদায়েতুল ইসলাম ও দৈনিক গ্রামের কাগজের সম্পাদক মবিনুল ইসলাম মবিন।

যশোর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে