Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ২৬ জুন, ২০১৯ , ১২ আষাঢ় ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (79 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-০৭-২০১২

সৌদিআরবে শিরচ্ছেদের প্রহর গুনছেন আখতার!

সৌদিআরবে শিরচ্ছেদের প্রহর গুনছেন আখতার!
পাকিস্তানী এক নাগরিককে হত্যার দায়ে শিরোচ্ছেদের প্রহর গুনছেন চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার এক হাফেজ। ৪ বছর ধরে বিচার কাজ চলার পর সৌদি আদালত আখতার হোসেন নামের (২০) নামের ওই হাফেজকে মৃতু্যদণ্ড প্রদানের রায় দিয়েছে। অবশ্য রক্ত ঋণ(ব্লাড মানি) বাবদ ৮৮ লাখ টাকা প্রদান করলে মৃতু্যদণ্ড থেকে রেহাই পাওয়ার সুযোগ রয়েছে তার।

কিন্ত এই বিপুল পরিমাণ টাকা পরিশোধের মতো সামর্থ না থাকায় যে কোন মুহূর্তে রায় কার্যকরের আশংকা নিয়ে দিন গুনছেন বাংলাদেশি কর্মী আখতার। জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ বু্যরো ও স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা যায়, লোহাগাড়ার এমচরহাট গৌড়স্থান গ্রামের জাফর আহমেদের পুত্র আখতার হোসেন ২০০৮ সালের দিকে জীবিকার সন্ধানে সৌদি আরব যান। সেখানে পাকিস্তানী নাগরিক মো. এজাজ হোসেনের মালিকানাধীন একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি নেন কুরআনে হাফেজ আখতার। জানা যায়, মালিকের সাথে বনিবনা না হওয়া এবং মানসিক টানাপোড়েনের জের ধরে আখতার হোসেন একদিন ওই পাকিস্তানী নাগরিককে ছুরিকাঘাত করে। পরে আহত অবস্থায় হাসপাতালে মৃতু্য ঘটে পাকিস্তানী নাগরিক এজাজ হোসেনের। একাধিক সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে লোহাগাড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জিয়াউল হক চৌধুরী বাবুল বলেন, ‘খবর নিয়ে যতদূর জেনেছি, তা হলো সুদর্শন আখতার সৌদি আরবে কাজ করতে গিয়ে মালিকের কুনজরে পড়ে যায়। দিনের পর দিন অব্যাহত শারীরিক নির্যাতন সইতে না পেরে সে মালিককে হত্যার মতো ঘৃন্য কাজ করে বসে।’ জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট দপ্তরের উদ্ধৃতি দিয়ে জনশক্তি, কর্মসংস্থান বু্যরো জানায়, পাকিস্তানী নাগরিক এজাজ হোসেন হত্যার পর সৌদি পুলিশ আখতারকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করে। সেখানে বিচারিক কার্যক্রম শেষে সৌদি আদালত আখতার হোসেনকে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করে। সৌদিতে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয় শিরচ্ছেদের মাধ্যমে। বিষয়টি অবহিত হয়ে সৌদিস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস মৃতু্যদণ্ড মওকুফের ব্যাপারে তৎপরতা শুরু করে। সৌদি আরবের অবস্থিত পাকিস্তান দূতাবাসের মাধ্যমে নিহতের পরিবারের সাথে যোগাযোগ করে বাংলাদেশ দূতাবাস শর্তসাপেক্ষে সমঝোতার প্রস্তাব পায়। শর্ত হলো- মুক্তির রক্তঋণ বাবদ নিহতের পরিবারকে ৪ লাখ রিয়াল (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৮৮ লাখ টাকা) প্রদান করতে হবে।জানা যায়,এই প্রস্তাব পেয়ে জনশক্তি ব্যুরো,চট্টগ্রামের কর্মকর্তারা হত্যাকারী আখতারের গ্রামের বাড়িতে সশরীরে গিয়ে পরিবার, আত্মীয়-স্বজন, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের সাথে যোগাযোগ করেন।কিন্তু তারা আর্থিকভাবে এতই অস্বচ্ছল যে তাদের পক্ষে রক্ত ঋণের টাকা পরিশোধের ব্যাপারে অপারগতার কথা জানান। তবে যে কোন মূল্যে তাদের সন্তানকে মুক্ত করার আবেদন জানান তারা। এই অবস্থায় আখতার হোসেনের জীবন রক্ষায় তহবিল সংগ্রহের জন্য জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়। এর প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসন উদ্যোগ গ্রহণ করলেও এই সংক্রান্তে আজ বৃহস্পতিবার আহুত একটি সভা গতকাল বিকেলে স্থগিত করা হয়। সভা স্থগিতের বিষয়ে জানতে চাইলে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. এহছানে এলাহী জানান, আমরা চেয়েছিলাম স্থানীয়ভাবে উদ্যোগ নিয়ে আখতারের জীবন রক্ষায় একটি তহবিল গড়ে তুলতে। সেজন্যেই মিটিং ডেকেছিলাম। কিন্তু যতদূর খবর পেয়েছি,বাংলাদেশ ও সৌদি সরকার রক্তঋণের অর্থ পরিশোধের ব্যাপারে ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে। তাই আপাতত মিটিংটি স্থগিত করা হয়েছে। লোহাগাড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জিয়াউল হক চৌধুরী বাবুল বলেন, আখতার হোসেনের মা নেই। পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম পিতা জাফর আহমদ দিনমজুরী করে সংসার চালান। তিনি বলেন,খবর নিয়ে জেনেছি- রক্তঋণের টাকার অর্ধেক অর্থাৎ ৪৪ লাখ টাকা বাংলাদেশ সরকার প্রদানে সম্মত হয়েছে। অবশিষ্ট টাকা স্থানীয়ভাবে জোগাড় করার জন্য বলা হয়েছিল। আখতারের পরিবারের অক্ষমতা বিবেচনা করে জেলা প্রশাসন তহবিল সংগ্রহের জন্য সভা আহবান করলেও গতকাল বুধবার শুনলাম,অবশিষ্ট টাকা সৌদি সরকার ব্যবস্থা করবে। তাই আপাতত সভা স্থগিত করা হয়েছে। উপজেলা চেয়ারম্যান জিয়াউল হক জানান,আমি নিজেও উদ্যোগী হয়ে ইতিমধ্যে ২ লাখ টাকার ব্যবস্থা করেছিলাম। কিন্তু সরকারের বর্তমান তৎপরতায় আমরা আশাবাদী। আমরা চাই,আখতারের মৃত্যুদণ্ড রহিত করতে সরকার যেকোন মূল্যে উদ্যোগী ভূমিকা নিবে।জীবন জীবিকার প্রয়োজনে বিদেশে গিয়ে বাংলাদেশি কোন কর্মী প্রাণ দিবে,এটা হতে পারে না। তাছাড়া- একটি ন্যাক্কারজনক পরিস্থিতি থেকে রক্ষা পেতে অসহায় আখতার হত্যাকাণ্ডের পথে যেতে বাধ্য হয়েছে, সেটিও বিবেচনা করে সরকারকে দায় নিতে হবে। সম্পাদনায়: গোলাম ফারুক ‍দুলাল

সৌদি আরব

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে