Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২০ , ৪ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (36 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-১৭-২০১৪

সুচিত্রার ২৬ বসন্তে, ৬০টির অধিক ফুল

দেওয়ান পারভেজ


সুচিত্রার ২৬ বসন্তে, ৬০টির অধিক ফুল

টানা ২৬ দিন হাসাপাতালের বিছানায় শুয়ে ছিলেন মহানায়িকা খ্যাত সুচিত্রা সেন। চলচ্চিত্রে সুচিত্রা সেনের ক্যারিয়ারও ছিল ২৬ বছর। আর এই ২৬ বছরেই তিনি অগুনতি দর্শকদের উপহার দেন ৬০টির অধিক নামকরা চলচ্চিত্র। মাত্র ২১ বছর বয়সে তিনি পা রাখেন ভারতের চলচ্চিত্রাঙ্গনে। তখন তিনি ছিলেন ধনাঢ্য ব্যবসায়ি দিবানাথ সেনের বধূ। এরপর বধূবেশেই সুচিত্রা করে যান একের পর এক চলচ্চিত্র।

সুচিত্রা সেন তার চলচ্চিত্র জীবনে ছিলেন খুবই আত্মবিশ্বাসী এক চরিত্র। অভিনয়ের চরিত্রের ভেতর মুহূর্তের মধ্যে ঢুকে যেতে পারা ছিল তার সবচেয়ে বড় গুন। তার সমসাময়িক অন্য কোনো নায়িকা এক্ষেত্রে তার আশেপাশে ছিল না বললেই চলে। আর তার এই আত্মবিশ্বাসের ছিঁটেফোঁটা পাওয়া যায় বিখ্যাত পরিচালক অমল শূরের সঙ্গের এক কথোপকথনে। এক শূটিংয়ে সুচিত্রার কথা ‘গ্লিসারিন সরিয়ে রাখুন। কতটা জল লাগবে! চোখের কোনে আটকে থাকবে না টপ টপ করে গড়ে পড়বে!’

এরপর থেকে আর ফিরে তাকাতে হয়নি সুচিত্রাকে। একে একে টপকে গেছেন তারকালোকের সবকটি সিঁড়ি। ১৯৫৫ সালে বিখ্যাত ‘দেবদাস’ ছবিতে পার্বতী চরিত্রে অভিনয় করে তিনি তাক লাগিয়ে দেন চলচ্চিত্রপ্রেমীদের। চারদিকে ছড়িয়ে পরে পাবর্তীর নাম। তাই বলে কেবল মাত্র পার্বতীর মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিলেন না তিনি। সেলুলয়েডের ফিতায় জীবন্ত করে তুলেছেন  রিনা ব্রাউন, রমোলা, ড. রমা ব্যানার্জি, শকুন্তলা ভার্মা, রাধা, মায়া, প্রফুল্লমুখীকে।
 
১৯৭৮ সালে সুদীর্ঘ ২৬ বছরের অভিনয় জীবন থেকে অবসরগ্রহণ করেন এই মহানায়িকা। এরপর হঠাৎ করেই কাউকে কিছু না বলে লোকচক্ষুর আড়ালে চলে যান এবং রামকৃষ্ণ মিশনের সেবায় ব্রতী হন। মূলত তখন থেকেই সুচিত্রার ইতিহাসে ধূলো জমতে শুরু করে। কিন্তু সেই ধূলোতে বাতাস হয়ে প্রতিবারই ফিরে এসেছে সুচিত্রার সময়কার চলচ্চিত্র আলাপ। মানুষের মনে চৈত্রের আলসে দুপুরের মতো দোলা দিয়ে গেছেন সুচিত্রা। তবু তিনি কারো সামনে আসেননি। ২০০৫ সালে ‘দাদাসাহেব ফালকে’ পুরস্কারের জন্য সুচিত্রা সেনকে মনোনীত করা হলেও, ভারতীয় রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে সশরীরে পুরস্কার গ্রহণ করেননি তিনি।
 
মাত্র ২৬ বছরে ৬০টিরও অধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন বাঙালির ফিল্মি আইকন সুচিত্রা সেন। তাই ৬০-৬৫টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করে তিনি পেয়েছেন জগৎ খ্যাত সব সম্মাননা আর পুরস্কার। ১৯৬৩ সালে ‘সাত পাকে বাঁধা’ চলচ্চিত্রে সেরা অভিনয়ের জন্য প্রথম বাঙালি চলচ্চিত্র শিল্পী হিসেবে মস্কো চলচ্চিত্র উৎসবে ‘সিলভার প্রাইজ ফর বেস্ট অ্যাকট্রেস’ জয় করে নেন তিনি। তারপর ১৯৬৬ সালে সেরা অভিনেত্রী হিসেবে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার লাভ করেন তিনি। ১৯৭২ সালে ‘পদ্মশ্রী’ পুরস্কারেও ভূষিত হন সুচিত্রা সেন।

দেখে নেওয়া যাক কোন কোন ছবিতে অভিনয় করে চলচ্চিত্র জগতকে ঋণী করেছেন মহানায়িকা--

১৯৫২-- শেষ কোথায় (মুক্তি পায়নি)
১৯৫৩-- সাত নম্বর কয়েদি
১৯৫৩-- ভগবান শ্রীকৃষ্ণ চৈতন্য
১৯৫৩-- সাড়ে চুয়াত্তর
১৯৫৩-- কাজোরি
১৯৫৪-- সদানন্দের মেলা
১৯৫৪-- অগ্নিপরীক্ষা
১৯৫৪- ওরা থাকে ওধারে
১৯৫৪-- গৃহপ্রবেশ
১৯৫৪-- অ্যাটম বম্ব
১৯৫৪-- ধূলি
১৯৫৪-- মরণের পরে
১৯৫৪-- বলয় গ্রাস
১৯৫৪-- অন্নপূর্ণার মন্দির
১৯৫৫-- দেবদাস (প্রথম হিন্দি ছবি)
১৯৫৫-- শাপমোচন
১৯৫৫-- সবার উপরে
১৯৫৫-- সাঁঝঘর
১৯৫৫-- সাঁঝের প্রদীপ
১৯৫৫- মেজো বউ
১৯৫৫-- ভালোবাসা
১৯৫৬-- সাগরিকা
১৯৫৬-- ত্রিজমা
১৯৫৬-- আমার বউ
১৯৫৬-- শিল্পী
১৯৫৬-- একটি রাত
১৯৫৬-- শুভরাত্রি
১৯৫৭-- হারানো সুর
১৯৫৭-- পথে হল দেরি
১৯৫৭-- জীবন তৃষ্ণা
১৯৫৭-- চন্দ্রনাথ
১৯৫৭-- মুসাফির (হিন্দি)
১৯৫৭-- চম্পাকলি (হিন্দি)
১৯৫৮-- রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্ত
১৯৫৮-- সূর্য তোরণ
১৯৫৮-- ইন্দ্রাণী
১৯৫৯-- দীপ জ্বলে যায়
১৯৫৯-- চাওয়া পাওয়া
১৯৬০-- হসপিটাল
১৯৬০-- স্মৃতিটুকু থাক
১৯৬০-- বোম্বাই কা বাবু (হিন্দি)
১৯৬০-- সরহদ (হিন্দি)
১৯৬১-- সপ্তপদী
১৯৬১-- সাথীহারা
১৯৬২-- বিপাশা
১৯৬৩-- সাত পাকে বাঁধা
১৯৬৩-- উত্তর ফাল্গুনী
১৯৬৪-- সন্ধ্যা দীপের শিখা
১৯৬৬-- মমতা (হিন্দি)
১৯৬৭-- গৃহদাহ
১৯৬৯-- কমললতা
১৯৭০-- মেঘ কালো
১৯৭১-- ফরিয়াদ
১৯৭১-- নবরাগ
১৯৭২-- আলো আমার আলো
১৯৭২-- হার মানা হার
১৯৭৪-- দেবী চৌধুরানী
১৯৭৪-- শ্রাবণ সন্ধ্যা
১৯৭৫-- প্রিয় বান্ধবী
১৯৭৫-- আঁধি (হিন্দি)
১৯৭৬-- দত্তা
১৯৭৮-- প্রণয় পাশা

হয়তো সুচিত্রা ভক্তদের জানা হবে না, কেন তিনি একটা দীর্ঘসময় নিজেকে আড়াল করে রেখেছিলেন। হয়তো নায়িকা সুচিত্রা তার নায়িকা চেহারার বাইরের চেহারা দেখাতে চাননি তার ভক্তদের। এরকম অনেক জল্পনা কল্পনাই ঘুরে বেড়াবে ভক্তদের হৃদয়ে। তবু চির অম্লান হয়ে থাকবেন তিনি বাংলার চলচ্চিত্রাঙ্গনে। পার্বতী হয়ে বারবার ধরা দেবেন ভক্তদের চোখের তারায়।

 

 

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে