Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.3/5 (15 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-১৬-২০১৪

ভারতের সঙ্গে ‘সুসম্পর্ক’ চায় বিএনপি

ভারতের সঙ্গে ‘সুসম্পর্ক’ চায় বিএনপি

ঢাকা, ১৬ জানুয়ারি- ভোটের আগে বিএনপি নেতারা ভারতের বিরুদ্ধে কথা বললেও পঙ্কজ শরণের সঙ্গে বৈঠকে খালেদা জিয়া বলেছেন, দিল্লির সঙ্গে ‘সুসম্পর্ক’ই রাখতে চায় বিএনপি।

তবে এই সম্পর্ক পারস্পরিক সম-মর্যাদা ও লাভের ভিত্তিতে হওয়ার ওপর জোর দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন।

বিএনপির বর্জনের মধ্যে গত ৫ জানুয়ারি দশম সংসদ নির্বাচন হয়ে যাওয়ার পর খালেদার সঙ্গে এটাই ছিল ভারতীয় হাইকমিশনারের প্রথম বৈঠক।

বৃহস্পতিবার রাতে গুলশানে খালেদার কার্যালয়ে ঘণ্টাব্যাপী বৈঠকের পর বিএনপির সহসভাপতি শমসের মবিন সাংবাদিকদের বলেন, “বৈঠকে হাইকমিশনার বলেছেন, তার সরকার বাংলাদেশের মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষার সরকারের সঙ্গে কাজ করতে চায়।

“জবাবে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেছেন, পারস্পরিক সমমর্যাদা ও লাভের ভিত্তিতে ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে চায় বিএনপি। ভারতের সঙ্গে আমরা সুসম্পর্ক বজায় রাখব।”

বিএনপিবিহীন নির্বাচনে জনমতের প্রতিফলন ঘটেনি বলে পশ্চিমা দেশগুলো বলে এলেও এক্ষেত্রে প্রতিবেশী দেশ ভারতের অবস্থান ছিল ভিন্ন।

সাংবিধানিক সঙ্কট এড়াতে এই নির্বাচন প্রয়োজন ছিল উল্লেখ করে শেখ হাসিনার নতুন সরকারকে সমর্থনও দিয়েছে নয়া দিল্লি।

ভোটের আগে বিএনপির বিভিন্ন নেতা বিভিন্ন সভায় অভিযোগ করে আসছিলেন, ভারত আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় রাখতে সচেষ্ট।

তবে নির্বাচনের পর বুধবার প্রথম সংবাদ সম্মেলনে খালেদা ভারতের নাম উল্লেখ না করে বলেছেন, তিনি সব দেশে বিশেষ করে প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সুসম্পর্ক চান।

খালেদার সঙ্গে বৈঠকের পর পঙ্কজ শরণ সাংবাদিকদের কিছু বলেননি।

বৈঠকে খালেদার সঙ্গে থাকা শমসের মবিন সাংবাদিকদের বলেন,খোলামেলা পরিবেশে দ্বিপক্ষীয় নানা বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

“হাইকমিশনার বলেছেন, বাংলাদেশে কী ধরনের সরকার হবে, তা দেশের মানুষই সিদ্ধান্ত নেবে। ভারত বাংলাদেশের মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষার সরকারের সঙ্গে কাজ করতে চায়।

“তিনি বলেছেন, অতীতে বিএনপি সরকারের সময়ে অনেক ধরনের সহযোগিতা ও সুসম্পর্ক গড়ার কথা উঠেছিল। আগামীতেও তা অব্যাহত থাকবে।”

শমসের মবিন জানান, বিএনপি চেয়ারপারসন ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি, প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ও কংগ্রেস প্রধান সোনিয়া গান্ধীকে তার শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন পৌঁছে দিতে হাইকমিশনারকে অনুরোধ জানিয়েছেন।

বৈঠকে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ওসমান ফারুক, রিয়াজ রহমান ও সাবিহ উদ্দিন আহমেদও ছিলেন।

গত ৫ জানুয়ারি দশম সংসদ নির্বাচন হয়ে যাওয়ার পর খালেদার সঙ্গে এই প্রথম দেখা করতে গেলেন ভারতীয় হাইকমিশনার।

পঙ্কজের সঙ্গে খালেদার শেষ দেখা হয়েছিল গত মাসের প্রথম সপ্তাহে। ভারতের পররাষ্ট্র সচিব সুজাতা সিংয়ের সঙ্গে হাইকমিশনারও তখন বিএনপি চেয়ারপারসনের সঙ্গে বৈঠকে ছিলেন।

 

 

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে