Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ২২ জানুয়ারি, ২০২০ , ৮ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.4/5 (27 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-১৬-২০১৪

৭টি জরুরী অভ্যাসে থাকুন হাড়ের রোগ হতে মুক্ত!

শরীরের উপরিভাগের যত্নে আমরা অনেক কিছুই করে থাকি। বাহ্যিক ভাবে একটু সুন্দর দেখানোর জন্য অনেক কষ্ট করি। অনেক নিয়ম মেনে চলি। ওজন কমানোর জন্য ডায়েট করি, ভয়ে থাকি মুটিয়ে না যাই। কিন্তু বেশিরভাগ সময় শরীরের ভেতরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ গুলোর যত্ন নিতে ভুলে যাই আমরা। একটু কম স্বাদের হলে পুষ্টিকর খাবার খাই না, হাঁটাহাঁটি করতে আলসেমি লাগে। কিন্তু এগুলো কি ঠিক? শরীরের ভেতরটা যদি সুস্থ না থাকে তবে শত চেষ্টা করেও বাহ্যিক ভাবে সুন্দর থাকতে পারেন না কেউই। সকলেরই উচিৎ দেহের ভেতরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গের প্রতি যত্নশীল হওয়া।

৭টি জরুরী অভ্যাসে থাকুন হাড়ের রোগ হতে মুক্ত!

শরীর গঠনের জন্য অন্যতম হাড়। এই হাড়ের মাধ্যমেই আমাদের দেহ আকার পায়। অথচ আমরা এর যত্নে তেমন কিছুই করি না। ফলশ্রুতিতে কম বয়সেই হাড়ের বিভিন্ন রোগ দেহে ভর করে শরীরকে ধীরে ধীরে অক্ষম করে দেয়। আজকে আপনাদের জন্য রইল হাড়ের যত্নে কিছু জরুরী কাজ। এতে করে হাড়ের বিভিন্ন রোগ থেকে দেহের হাড়কে রাখতে পারবেন সুস্থ।

আরও পড়ুন: যেসব খাদ্যাভাসে কমে দৈহিক উদ্দীপনা!

লবন কম খাবেন
অনেকেই খাবারে একটু বাড়তি লবন নিতে পছন্দ করেন। কিন্তু এই কাজটি আপনার হাড়ের জন্য অনেক বেশি ক্ষতিকর। লবনের সোডিয়াম খাবারের ক্যালসিয়ামকে পুরো দেহে ছড়িয়ে দেয়। এতে হাড়ে ক্যালসিয়ামের অভাব হয়। অস্টিওপেসিস রোগের সম্ভাবনা দেখা দেয়। সুতরাং বাড়তি লবন এড়িয়ে চলুন।

শাক সবজি খান
হাড়ের যত্নে সব সময়ই আমিষ জাতীয় খাবারের ক্যালসিয়ামই যে উপযোগী তা নয়। মাছ মাংসের চেয়ে অনেক গুণ বেশি ক্যালসিয়াম আছে সবুজ শাক সবজিতে যা হাড়ের জন্য অত্যন্ত জরুরী। এছাড়াও সবুজ শাক সবজিতে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন কে। ভিটামিন কে হাড় গঠনে বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এবং হাড়ের ভঙ্গুরতা দূর করে। দিনে মাত্র ৩০ গ্রাম শাক খেলে ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন কে এর ৬০% ঘাটতি দূর করে।

সূর্যের আলো গ্রহন করুন
ক্যালসিয়াম হাড় গঠনে সাহায্য করে। কিন্তু এই ক্যালসিয়াম হাড়ে পৌঁছানোর জন্য দেহে থাকতে হয় পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন ডি। আর ভিটামিন ডি এর সব চাইতে বড় উৎস সূর্যের আলো। এছাড়াও সূর্যের আলো থেকে প্রাপ্ত ভিটামিন ডি হাড়ের দুর্বলতা, ভঙ্গুরতা ও হাড়ের বিচ্যুতি রোধে বেশ কার্যকরী। সপ্তাহে ৩ দিন ১০-১৫ মিনিটের মত সূর্যের আলো পুরো দেহে পড়তে দিন। এতে দেহে ভিটামিন ডি এর ঘাটতি পূরণ হবে ও হাড় মজবুত থাকবে।

আরও পড়ুন: প্রতিদিন ডিম খেলে মস্তিষ্কের কি হয় জানেন?

কোমল পানীয় থেকে দূরে থাকুন
কোমল পানীয় দাঁতের জন্য যতটা ক্ষতিকর তার থেকে অনেক বেশি ক্ষতিকর হাড়ের জন্য। গবেষণায় দেখা যায় কোমল পানীয়তে বিদ্যমান ফসফরিক অ্যাসিড হাড়ের ক্ষয়ের জন্য দায়ী। এবং অতিরিক্ত কোমল পানীয় পানে এতে থাকা কার্বন ডাই অক্সাইড দেহে ক্যালসিয়াম নেয়ার ক্ষমতা কমিয়ে দেয়। এবং হাড় দুর্বল করে ও ভঙ্গুরতা বৃদ্ধি করে। যতটা সম্ভব কোমল পানীয় থেকে দূরে থাকুন।

বাদাম খান প্রতিদিন
বাদাম ক্যালসিয়ামের সব থেকে ভালো উৎস। এক কাপ বাদামে রয়েছে ৩৮৫-৪০ মিলি গ্রাম পর্যন্ত ক্যালসিয়াম, যেখানে এক কাপ দুধে রয়েছে মাত্র ৩০০ মিলি গ্রাম। প্রতিদিন অন্তত একমুঠো বাদাম শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি পুরন করে হাড়কে ভেতর থেকে মজবুত করে তলে। বাদামের মধ্যে সব থেকে ভালো ক্যালসিয়ামের উৎস কাঠবাদাম।

ব্যায়াম ও জগিং করুন
হাড়কে সুগঠিত ও সুস্থ রাখার অন্যতম উপায় হচ্ছে ব্যায়াম ও জগিং। এতে হাড়ের আড়ষ্টতা দূর হয়। হাড় শক্ত করে। শুধু ব্যায়াম ও জগিংই নয় হাঁটা, চলাফেরা, সিঁড়ী ব্যবহার করা সবই হাড়ের টিস্যুকে সুগঠিত করে। সুতরাং আলসেমি ছেড়ে হাড়ের যত্নে ব্যায়াম, জগিং, হাঁটা ও সিঁড়ি ব্যবহার করুন।

 

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে