Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ , ৫ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (50 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১০-০২-২০১১

বঙ্গবন্ধু হাসপাতালেই প্রাইভেট প্র্যাকটিস

বঙ্গবন্ধু হাসপাতালেই প্রাইভেট প্র্যাকটিস
নির্দিষ্ট ফি'র বিনিময়ে হাসপাতালেই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ ও চিকিৎসাপত্র দেওয়ার প্রথা চালু করেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ)।
এতে রোগীরা উপকৃত হবে বলে কর্তৃপক্ষ দাবি করলেও এর সমালোচনাও এসেছে।
শনিবার বিকালে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের রোগী দেখার এ সেবা চালু হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রাণ গোপাল দত্ত এর উদ্বোধন করেন।

কেবিন ব্লক ভবনের দোতালায় চেম্বারে মেডিসিন, শিশু, গাইনি, চর্ম, কান-নাক-গলা ও ফিজিক্যাল মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ও সহযোগী অধ্যাপকরা প্রতিদিন বেলা ৩টা থেকে সন্ধা ৬টা পর্যন্ত রোগী দেখবেন। রোগীদের কাছ থেকে এজন্য ২০০ টাকা ফি নেওয়া হবে।

বর্তমানে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের প্রাইভেট চেম্বারে গিয়ে রোগী দেখাতে ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা লাগে।

সেবার উদ্বোধনের পর উপাচার্য প্রাণ গোপাল দত্ত বলেন, হাসপাতালেই প্রাইভেট প্র্যাকটিসের সেবা দেওয়ার জন্যই এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

তিনি জানান, ২০০ টাকার মধ্যে ৫০ টাকা পাবে বিশ্ববিদ্যালয়। বাকি টাকা হাসপাতালে বাড়তি সময় দেওয়া বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক এবং কর্মচারীদের দেওয়া হবে।

বাকি অর্থ ভাগাভাগির বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে বলে উপাচার্য জানান।

পর্যায়ক্রমে অন্যান্য বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরাও রোগী দেখা শুরু করবে। এখানে সহযোগী অধ্যাপকের চেয়ে নিচের পদের কেউ রোগী দেখবেন না বলে জানান প্রাণ গোপাল।

নাক-কান-গলা বিশেষজ্ঞ প্রাণ গোপালকে দেখাতে মাকে নিয়ে কুমিল্লা থেকে এসে সারিতে দাঁড়িয়েছিলেন আল আমিন। তিনি বলেন, "আমি সকালে উনার চেম্বারে গিয়ে সিরিয়াল পাইনি, তারা আমাকে বলেছে বঙ্গবন্ধু হাসপাতালে বিকালে তাকে দেখাতে।"

নতুন এ সেবা চালু হবার পর ৪০ মিনিটের মধ্যে কমপক্ষে ৭০টি টিকিট বিক্রি হয়ে যায়।

বেসিক সায়েন্স ডিভিশনের অধ্যাপক ও সরকার সমর্থক চিকিৎসক সংগঠন স্বাচিপ'র নেতা এম ইকবাল আর্সালান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোরকে বলেন, "এটি ইনস্টিটিউশনাল প্র্যাকটিসের ক্ষেত্রে একটা অনন্য উদাহরণ। এটা যদি ধরে রাখা যায়, তবে একটা নতুন দিগন্ত খুলে যাবে।"

তবে এর সঙ্গে ভিন্নমত পোষণ করে বিএসএমএমইউ'র সাবেক অধ্যাপক এবং বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি রশীদ-ই মাহবুব বলেন, "এটা না হলো বৈকালিক বহির্বিভাগ, না হলো ইনস্টিটিউশনাল প্র্যাকটিস। বৈকালিক বহির্বিভাগে আপনি স্বাভাবিকের চেয়ে বাড়তি ফি নিতে পারবেন না, আবার ইনস্টিটিউশনাল প্র্যাকটিসের ক্ষেত্রে চিকিৎসকরা হাসপাতালের বাইরে রোগী দেখতে পারবে না।"

বিএসএমএমইউতে সকালের বহির্বিভাগে ৩০ টাকা ফি তে রোগী দেখা হয়।

"বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে সেবার এই মডেল একদম নতুন' ঠেকছে, কোনো একদিন হয়তো শোনা যাবে, সকালের বহির্বিভাগের কোনো রোগীকে বিকালের বিশেষজ্ঞ সেবার জন্য বসিয়ে রাখা হয়েছে," বলেন রশীদ-ই মাহবুব।

এশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে