Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২০ , ৮ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (11 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-০৫-২০১২

চাঞ্চল্যকর শিশু হত্যা মামলা : আশিকুরকে জিজ্ঞাসাবাদ

সাইদা সারমিন রুমা


চাঞ্চল্যকর শিশু হত্যা মামলা : আশিকুরকে জিজ্ঞাসাবাদ
নোভাস্কশিয়ায় বসবাসরত আশিকুর রহমান (২৬) নামে এক বাংলাদেশীর বিরুদ্ধে তার সাত সপ্তাহের কন্যা সন্তানকে হত্যা করার অভিযোগ আনা হয়েছে। বর্তমানে সুপ্রিমকোর্টে মামলাটির জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।-খবর সিবিসি-র।
খবরে প্রকাশ, আশিকুর তার প্রেমিকা জেইন গোমেজের সাথে নোভাস্কশিয়ার রাজধানী হ্যালিফ্যাক্সে বসবাস করতেন। গত ২০০৯ এর জুনের ৬ তারিখে তাদের মেয়ে অরোরা'র জন্ম হয়। তারা দুজনে মিলে সিদ্ধান্ত নেয় যে এর লালন পালন সবকিছু জেইন করবে। জন্মের পর থেকে বেশির ভাগ সময় জেইনই মেয়েকে দেখাশুনা করতো। জেইন অভিযোগ করে, বাচ্চাটি কান্নাকাটি করলে আশিকুর তার এক হাত এক পা উপর দিকে তুলে ঝাঁকাতো।

সেদিন ছিল ২০০৯ সালের ২৯ জুলাই। জেইন মেয়েকে আশিকুরের কাছে রেখে কয়েক ঘন্টার জন্য শপিং এ যায়। ফিরে এসে দেখে সে মেয়েকে মেরেছে। জেইনই দেখে অরোরার নিঃশাস নিতে কষ্ট হচ্ছে। সে তাড়াতাড়ি তার মেয়েকে হ্যালিফ্যাক্সের IWK Health Centre এ নিয়ে যায়। ওখানে লাইফ সাপোর্ট দিয়ে তাকে রাখা হয়। প্রায় ২০ মিনিট পর লাইফ সাপোর্ট খুললে মেয়েটি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।
ডাক্তারি রিপোর্টে জানা গেছে শিশু অরোরা মস্তিষ্কে রক্তক্ষরনের কারনে মারা গেছে। তার মাথা থেতলানো ছিল, বুকের হাড়, হাত এবং পায়ের হাড় ভাংগা ছিল। এমনকি কিছু কিছু ক্ষত চিহ্ন পাওয়া গেছে যেগুলো বাচ্চাটির বয়স যখন ছিল মাত্র তিন সপ্তাহ সে সময়ের।

জেইন আদালতকে জানিয়েছে তার মেয়ে কান্নাকাটি করলে আশিকুর প্রায়ই তাকে চড় থাপ্পড় মারতো। মেয়েটির জীবন রক্ষা করতে পারেনি বলে আদালতে সে স্বীকারোক্তি দেয়।  আদালত যথাযথভাবে শিশুটির দায়িত্ব পালন না করার জন্য জেইনকে দোষী সাব্যস্থ করে।
এদিকে আশিকুর নিজের দোষ বারবার অস্বীকার করছে। আশিকুর আদালতকে বলেছে, সে কোনদিন বাচ্চার গায়ে হাত তুলেনি।  বাচ্চাটিকে দেখাশোনার দায়িত্বে ছিল জেইন, সে  তার  দায়িত্ব পালন  করতে ব্যর্থ হয়েছে।  ক্রাউন এ্যাটর্নি মার্ক হিরেমার এক প্রশ্নের জবাবে আশিকুর আদালতে বলে সে জেইনকে ভালোবাসতো এবং বাচ্চা হওয়ার পরে তাকে বিয়ে করার কথা ছিল । মার্ক আশিকুরকে পাল্টা প্রশ্ন করে জানতে চান পুলিশ কেন তার কম্পিউটার জব্দ করে এবং কেন তিনি অরোরার জন্মের পরও তাহলে ম্যাচমেকিং ওয়েবসাইটে গিয়ে নিজের নাম রেজিষ্ট্রেশন করেছিলেন?
জবাবে আশিকুর বলে- সে জানতোনা এই সাইটটি যে নতুন সাথী খোঁজার; সে ভেবেছিল এটা এমনি একটি সাধারণ সাইট। 
গত মঙ্গলবার থেকে হ্যালিফ্যাক্সের সুপ্রিমকোর্টে চাঞ্চল্যকর এ মামলাটির শুনানী চলছে।

কানাডা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে