Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ , ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.6/5 (28 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-১৫-২০১৪

ছবির ভুল ক্যাপশন, ভুল স্বীকার নিউইয়র্ক টাইমসের

ছবির ভুল ক্যাপশন, ভুল স্বীকার নিউইয়র্ক টাইমসের

ঢাকা, ১৫ জানুয়ারি- বাংলাদেশ নিয়ে প্রকাশিত একটি ছবির ভুল ক্যাপশন দেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী পত্রিকা নিউইয়র্ক টাইমস। একই সঙ্গে ক্যাপশনওটি সংশোধন করেছে পত্রিকাটি।

১১ জানুয়ারি পত্রিকাটির অনলাইন সংস্করণে ‘দুই নেত্রীর ক্ষমতার দ্বন্দ্বে ভারসাম্য হারানোর ঝুঁকিতে বাংলাদেশ’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। পত্রিকাটির এশিয়া অঞ্চলের ব্যুরো প্রধান অ্যালেন বেরির ওই প্রতিবেদনের সঙ্গে একটি ছবি প্রকাশ করা হয়।

ছবিতে ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও গণজাগরণ মঞ্চের কর্মী শারমিন লাকিসহ অনেকের স্লোগান দেওয়ার একটি ছবি প্রকাশ করা হয়। ছবিটিতে স্লোগানকারীদের পাশে বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির ফেস্টুন ও লাল পতাকা দেখা যায়।

মতামতধর্মী ওই প্রতিবেদনটির সঙ্গে সংযুক্ত এ ছবিটিতে ক্যাপশন ছিল ‘বুধবার ঢাকায় বিরোধী বাংলাদেশ জাতীয়বাদী দলের ডাকা অবরোধে বাংলাদেশিরা বিক্ষোভ করছেন’ (Bangladeshis protested Wednesday in Dhaka during a strike called by the opposition Bangladesh Nationalist Party)

ছবিটি প্রকাশের পর বাংলাদেশে সমালোচনা শুরু হয়। বিভিন্ন পক্ষ থেকে এ নিন্দা জানানো হয় এবং নিউইয়র্ক টাইমসে ছবিটি প্রত্যাহার করার আহ্বান জানানো হয়।


এরই পরিপ্রেক্ষিতে ১৩ জানুয়ারি অনলাইন সংস্করণে এ ভুল স্বীকার করে নিউইয়র্ক টাইমস। পত্রিকাটি ওই ছবির ক্যাপশন সংশোধন করে বলেছে, ‘এই নিবন্ধের আগের সংস্করণে একটি ছবি ভুলভাবে প্রকাশিত হয়েছে। ছবিটিতে দেখা গেছে, শাহবাগের ধর্ম নিরপেক্ষ আন্দোলনের সদস্যরাসহ লোকজন বাংলাদেশে বিরোধীদের সহিংসতার নিন্দা জানাচ্ছেন, তারা বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের ধর্মঘটে সমর্থন প্রকাশ করছেন না।

যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদ সংস্থা এপির সৌজন্যে ছবিটি প্রকাশ করেছে নিউইয়র্ক টাইমস। এপির নিজস্ব সাইটে পোস্ট করা ওই ছবির ক্যাপশনে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশের ঢাকায় বুধবার (৮ জানুয়ারি, ২০১৪) প্রধান বিরোধী দল বাংলাদেশ জাতীয়বাদী পার্টির (বিএনপি) ডাকা চলমান অবরোধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার বিরুদ্ধে স্লোগান দিচ্ছেন বাংলাদেশি আন্দোলনকর্মীরা।’

বাংলাদেশের নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহ করতে ঢাকায় এসেছিলেন নিউইয়র্ক টাইমসের এশিয়া অঞ্চলের ব্যুরো প্রধান অ্যালেন বেরি। বাংলাদেশের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে তিনি বেশ কয়েকটি প্রতিবেদন লিখেন।

এগুলোর মধ্যে ৫ জানুয়ারি প্রকাশিত প্রতিবেদনের শিরোনাম ছিল ‘বর্জন-সহিংসতার মধ্যে বাংলাদেশের নির্বাচনে কম ভোট পড়েছে’। এ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জনশূন্য ভোট কেন্দ্রগুলোতে কালো পোশাকের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা টহল দিয়েছে। নির্ধারিত সময়ের আগেই ভোটকেন্দ্র বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আনুষ্ঠানিক ফলাফল ঘোষণা না হলেও ভোট গণনার সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, ২২ শতাংশ ভোট পড়েছে যা গত নির্বাচনের চেয়ে অনেক কম। নির্বাচনী সহিংসতা বিভিন্ন স্থানে ১৯ জন মারা গেছেন।’

‘অস্থিতিশীলতার মধ্যে নির্বাচনে বাংলাদেশ ক্ষমতাসীন দলের জয়’ শিরোনামে ৬ জানুয়ারির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিরোধী দলের অনুপস্থিতি, কম ভোট পড়া ও সহিংসতার কারণে নির্বাচনের বৈধতা নিয়ে বিভিন্ন পক্ষের সমালোচনাকে উড়িয়ে দিয়ে নির্বাচনে বিজয় উদযাপন করছে বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন দল।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৩০০টি আসনের মধ্যে ২৩২টি পেয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়াগী লীগ। এগুলোর মধ্যে অর্ধেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাহীনভাবে জয় পেয়েছে।

কম ভোট পড়ার জন্য বিরোধী দলকে প্রধানমন্ত্রী দায়ী করেছেন বলেও জানানো হয়েছে ওই প্রতিবেদনে।

নির্বাচনের পর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাতও করেছেন অ্যালেন বেরি। নির্বাচনের পরের দিন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাতের পর পত্রিকার এশিয়া-প্যাসিফিক বিভাগে ১১ জানুয়ারির প্রতিবেদনটি ছাপানো হয়।

মিডিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে