Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.7/5 (16 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-১৫-২০১৪

নারী এমপি মনোনয়নেও বাদ পড়ছেন ‘বিতর্কিতরা’

দিয়াম তালুকদার


নারী এমপি মনোনয়নেও বাদ পড়ছেন ‘বিতর্কিতরা’

ঢাকা, ১৫ জানুয়ারি- স্বচ্ছ ইমেজের মন্ত্রিসভা গঠনের পর এবার সংরক্ষিত আসনে নারী সংসদ সদস্য মনোনয়নের ক্ষেত্রেও স্বচ্ছ ভাবমুর্তির প্রার্থী খুঁজছে সরকারি দল আওয়ামী লীগ। গত সংসদে যাদের কর্মকাণ্ড বিতর্কের সৃষ্টি করেছিল তাদের বাদ দেয়া হবে দলীয় মনোনয়ন থেকে। এবার স্বচ্ছ ভাবমুর্তির কিছু নতুন মুখ দেখা যেতে পারে জাতীয় সংসদে।

জাতীয় সংসদে নারী প্রতিনিধিত্ব তৈরির ক্ষেত্রে সতর্কতার সঙ্গেই এগুচ্ছে  দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা। স্বচ্ছ ভাবমুর্তির মন্ত্রিসভা গঠনের পরে দেশব্যাপী আওয়ামী লীগের ইমেজ যেভাবে ‘ইউটার্ন’ করেছে তার ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে চান দলীয় নেতৃত্ব। ফলে তদবিরবাজ, বিতর্কিত ও অদক্ষদের বাদ পড়া এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র।

জাতীয় সংসদে দেশের অন্যতম রাজনৈতিক দল বিএনপির প্রতিনিধিত্ব  নেই। বিরোধী দল জাতীয় পার্টিও সরকারের অংশ। এ অবস্থায় সংসদের আলোচনায়, বিতর্কে যাতে সংসদে অনুপস্থিত দলের নেতা-নেত্রীদের সমালোচনা করে অহেতুক বিতর্ক বাড়াতে চাননা। যারা সত্যিকার অর্থেই সংসদ কার্যক্রমে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখতে পারেন তাদেরকেই নিয়ে আসা হবে জাতির আশা-আকাঙ্খার কেন্দ্রবিন্দু জাতীয় সংসদে।

নবম জাতীয় সংসদে বেশ কয়েকজন সংসদ সদস্য তদবির বাণিজ্যে জড়িয়ে পড়েছিলেন। বিএনপি সংসদ সদস্যদের নির্বাচনী এলাকায় দায়িত্ব দেয়া হলে ওই এলাকার টিআর-কাবিখা বিতরণ, স্কুল-কলেজে নিয়োগ, উন্নয়ন কাজের টেন্ডারে অনিয়মের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছিলেন। এবার তারা দলীয় মনোনয়ন পাবেন না।

তবে বিএনপি-জামাতের হরতাল-অবরোধসহ সহিংস কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে যারা রাজপথে সরব ছিলেন তাদেরকে মূল্যায়ন করা হবে। এদের কথা-বার্তায় অনেক ক্ষেত্রে বিতর্ক সৃষ্টি হলেও রাজপথের ভূমিকার কথা বিবেচনায় রেখে তাদের আবারও সংসদে নিয়ে আসা হতে পারে। আর এ কারনে এবারের সংসদে যুব মহিলা লীগের প্রতিনিধিত্ব বেশি থাকতে পারে। নবম সংসদে এর সভানেত্রী নাজমা আকতার ও সাধারণ সম্পাদক অপু উকিল যুব মহিলা লীগ থেকে সংসদ সদস্য মনোনীত হয়েছিলেন। এবার এ সংখ্যা বাড়বে।

পাশাপাশি মহিলা লীগ এবং আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে কাজ করেছেন এমন কয়েকজনকে সংসদে নিয়ে আসা হতে পারে। এছাড়া অঞ্চল ভিত্তিক ভুমিকা অনুযায়ী নেত্রীদের মূল্যায়ন করা হবে। এ ক্ষেত্রে অবশ্য দ্বিতীয়বার কাউকে সুযোগ দেয়া নাও হতে পারে। আবার রাজনৈতিক পরিবারগুলোকেও মূল্যায়ন করা হতে পারে। নবম সংসদে যেসব সংসদ সদস্যকে পারিবারিক কারনে মূল্যায়ন করা হয়েছিল তাদের এবার মূল্যায়ন নাও করা হতে পারে।

এ ব্যাপারে নবম জাতীয় সংসদের অন্যতম আলোচিত সংসদ সদস্য অধ্যাপিকা অপু উকিল বলেন, নেত্রী কাজের মূল্যায়ন করে একবার সংসদে নিয়েছেন। চেষ্টা করেছি নিজের সর্বোচ্চটা দেয়ার। দ্বিতীয়বার সুযোগ আশা করি না। দলের অনেক নেত্রী রয়েছেন তাদেরও মূল্যায়নের প্রয়োজন রয়েছে। তবে নেত্রী কোন দায়িত্ব দিলে জীবন দিয়ে হলেও চেষ্টা করবো তা পালন করতে।

এদিকে জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনে নারী প্রার্থী মনোনয়নের প্রক্রিয়া শুরু করেছে আওয়ামী লীগ। ১৫ জানুয়ারি বুধবার থেকে ১৮ জানুয়ারি শুক্রবার পর্যন্ত মনোনয়ন প্রত্যাশীদের কাছে আবেদন পত্র বিক্রি করা হবে। আবদনপত্র পাওয়া যাবে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে, তা ২৫ হাজার টাকায় কিনতে হবে। তিন দিন আবেদনপত্র বিতরণের পর আগামী ১৯ জানুয়ারি প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার নেয়া হবে বলে দলীয় সূত্র জানিয়েছে।

সংসদে আনুপাতিক প্রতিনিধিত্ব পদ্ধতিতে আওয়ামী লীগ ৩৮, জাতীয় পার্টি ৬, স্বতন্ত্র ২ এবং জাসদ ও ওয়ার্কার্স পার্টি ১টি করে সংরক্ষিত আসন পাবে। অবশিষ্ট দু’টি আসন কারা পাবে তা ঠিক হবে স্থগিত আসনগুলোর নির্বাচনের পর।

ঘোষিত ফলে জাতীয় পার্টির ৩৩, ওয়ার্কার্স পার্টির ৬, জাসদের ৫, স্বতন্ত্র ১৪ এবং জেপি, তরীকত ফেডারেশন ও বিএনএফের একজন করে সংসদ সদস্য রয়েছেন। ২০০৪ সালে সংবিধানের চতুর্দশ সংশোধনীর মাধ্যমে ৪৫টি নারী আসন ১০ বছরের জন্য সংরক্ষণ করা হয়। পরে পঞ্চদশ সংশোধনীতে আরও ৫টি আসন বাড়ানো হয়। এর আগ পর্যন্ত সংরক্ষিত আসন ছিল ৩০টি।

 

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে