Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ২২ জানুয়ারি, ২০২০ , ৮ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.7/5 (35 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-১৩-২০১৪

বাংলাদেশে শেষকৃত্যের ইচ্ছা পোষণ করলেন সূচিত্রা সেন

বাংলাদেশে শেষকৃত্যের ইচ্ছা পোষণ করলেন সূচিত্রা সেন

কলকাতা, ১৩ জানুয়ারি- মহানায়িকা সূচিত্রা সেন আবার বাংলার মাটিতে ফিরে আসতে চান। পাবনার মেয়ে সূচিত্রার শেষকৃত্য সেখানেই করা হোক বলে পরিবারের কাছে শেষ ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন সূচিত্রা সেন। সূচিত্রা সেনের পারিবারিক ঘনিষ্ঠ সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

পাবনার মেয়ে রমা দাশগুপ্তা ১৯৪৭ সালে পাড়ি জমান ভারতে। স্বামী দিবানাথ সেনের উপাধি গ্রহণ করে হয়ে যান রমা সেন। পরবর্তীতে চলচ্চিত্রে তাকে সূচিত্রা নাম দেয়া হয়।

সুচিত্রা সেন পাবনার এক সম্ভ্রান্ত হিন্দু পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা করুণাময় দাশগুপ্ত এবং মায়ের নাম ইন্দিরা দাশগুপ্ত। রমা ছিলেন সংসারের পঞ্চম সন্তান এবং তৃতীয় কন্যা। ১৯৪৭ সালে দিবানাথ সেনের সঙ্গে বিয়ে হয় সূচিত্রার।

উল্লেখ্য, ২৫ ডিসেম্বর থেকে কলকাতার বেলভিউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন মহানায়িকা। সুচিত্রা সেনের নিরাপত্তার কথা ভেবে কলকাতার বেলভিউ হাসপাতালের বাইরে ও হাসপাতালের চত্বরে পুলিশের প্রচুর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। সেখানে আছেন পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও। হাসপাতালের বাইরে তৈরি করা হয়েছে ব্যারিকেড আর সংবাদমাধ্যমের কর্মীদের জন্য এনক্লোজার। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে গত শনিবার রাত থেকেই এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

রোববার থেকে সূচিত্রা সেনের শারীরিক পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়। প্রায় সারাদিন ঘুমাননি তিনি। ইশারায় সাড়া দিয়েছেন। শরীর খুবই দুর্বল। সূচিত্রা সেনের চিকিৎসকেরা জানান, তার ফুসফুসে পানি জমেছে। এন্ডোট্রাকিয়াল টিউবের মাধ্যমে কফ বের করা হয়েছে। ব্যবহার করা হয়েছে সাকশন মেশিন। এ সময় কফের সঙ্গে বেরিয়ে আসে রক্ত। প্রচণ্ড কষ্ট হওয়ায় বারবার মুখের নল খুলে ফেলার চেষ্টা করেন সুচিত্রা সেন। পরে তাকে ঘুমের ইনজেকশন দেওয়া হয়।

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সুকুমার মুখোপাধ্যায় জানান, নন-ইনভেসিভ ভেন্টিলেশনে রাখার পরও সুচিত্রা সেনের শারীরিক অবস্থার তেমন কোনো উন্নতি হয়নি। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক।

 

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে