Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ১ পৌষ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.5/5 (4 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-০৭-২০১৪

জাপায় ‘বিরোধীদলীয়’ প্রস্তুতি চূড়ান্ত

নাজমুল সাঈদ


জাপায় ‘বিরোধীদলীয়’ প্রস্তুতি চূড়ান্ত

ঢাকা, ০৭ জানুয়ারি- দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর বিরোধী দলে যাওয়ার প্রস্তুতি চূড়ান্ত করেছে জাতীয় পার্টি। এরইমধ্যে এ ব্যাপারে পার্টির পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে এ বিষয়ে মুখ খুলছেন না দলটির শীর্ষ নেতারা।

এদিকে বুধবার জাতীয় পার্টির জ্যেষ্ঠ প্রেসিডিয়াম সদস্য রওশন এরশাদের বাসায় নবনির্বাচিতদের নিয়ে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করেছে দলটি। এ সভায় বিরোধী দলে যাওয়ার ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের কথা জানানো হবে। দলীয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

তবে বিরোধী দলে যাবে নাকি সরকারের দলে থাকবে এ নিয়ে দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্যরা এখনো বিপরীতমুখী অবস্থানে রয়েছেন। দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও পানিসম্পদ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এ ব্যাপারে স্পষ্ট করে কিছু না বললেও অপর প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ সাংবাদিকদের বার বার বলেছেন, আমার বিরোধী দলে যাচ্ছি এবং বিরোধী দল নেতা এরশাদ নয়, রওশন এরশাদ থাকবেন।

অন্যদিকে বিরোধী দলে যাবেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেছেন, এটার ব্যাপারে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। পরে এ বিষয়ে সাংবাদিকদের বিস্তারিত জানানো হবে।

এ ব্যাপারে ঢাকা-৬ আসন থেকে নির্বাচিত ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ বলেন, ‘আমরা বিরোধী দলে যাচ্ছি এবং বিরোধী দলের নেতা থাকবেন রওশন এরশাদ।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এরশাদ সাহেব নির্বাচনের প্রতি অনিহা দেখিয়েছেন। আমরা রওশন এরশাদের নেতৃত্বে নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। তাই তিনিই বিরোধী দলের নেতা।’

তিনি বলেন, ‘এরশাদ সাহেব সাবেক রাষ্ট্রপতি, তাই তিনি বিরোধী দলীয় নেতা হবেন না।’

জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ফকির আশরাফ বলেন, ‘বিরোধী দলে যাওয়ার ব্যাপারে দলের পক্ষ থেকে মোটামুটি সিদ্ধান্ত হয়েছে। আমরা বিরোধী দলেই যাচ্ছি। সরকারি দলে যাওয়ার কোনো সম্ভাবনা এ মুহূর্তে নেই।’

বিরোধীদলীয় নেতা কে হবেন, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আপাতত রওশন এরশাদ বিরোধীদলীয় নেতা থাকবেন। তবে স্যার (এরশাদ) মুক্তি পেলে তিনিই বিরোধীদলীয় নেতার দায়িত্ব নেবেন।’

ময়মনসিংহ-৮ আসন থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ও প্রেসিডিয়াম সদস্য ফখরুল ইমাম বলেন, ‘যেহেতু আলাদাভাবে নির্বাচন করেছি। তাই সরকারি দলে যাওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। বিরোধী দল হিসাবে সংসদে যাব। অনেক আগেই দলীয়ভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।’

বিরোধী দলীয় নেতা কে থাকবেন, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘রওশন এরশাদের নেতৃত্বেই আমরা সংসদে যাব।’

কুড়িগ্রাম-৩ আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য একেএম মাইদুল ইসলাম বলেন, ‘এরশাদ সাহেব এখনো হাসপাতালে রয়েছেন, তার সঙ্গে যেহেতু আমরা দেখা করতে পারছি না। তাই এই মুহূর্তে কোনো কিছু বলা যাবে না। তবে দল যে সিদ্ধান্ত নেবে তাতে আমার সম্মতি থাকবে। দলের বাইবে কোনো কিছু বলতে পারবো না।’

এদিকে মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মশিউর রহমান রাঙ্গা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, এরশাদের নেতৃত্বে তারা সংসদে যাচ্ছেন। এরশাদ প্রার্থিতা প্রত্যাহার করতে বললেও তাদের নির্বাচনে যাওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন।

অন্যদিকে এরশাদ মুক্ত না হওয়া পর্যন্ত জাতীয় পার্টির চলমান ধোঁয়াশা কাটছে না। যেহেতু তিনি নিজেও রংপুর-৩ আসন থেকে বিজয়ী হয়েছেন। তিনি শপথ নেবেন নাকি নেবেন না সে বিষয়ে সংশয় রয়ে গেছে।

প্রসঙ্গত, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির ১৩টি আসনে নির্বাচিত হয়েছে। এছাড়া বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছে ২০টি আসনে। সর্বমোট ৩৩টি আসন জাতীয় পার্টির দখলে এবং আওয়ামী লীগের পরে তারাই সংখ্যাগরিষ্ঠ। ফলে সংবিধান অনুযায়ী বিরোধী দলের স্থানটি তাদেরই হওয়ার কথা।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে