Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.8/5 (32 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-০১-২০১২

আদালতের রায়: নিউ ইয়র্ক সিটি ক্যাবিদের আশংকা

আদালতের রায়: নিউ ইয়র্ক সিটি ক্যাবিদের আশংকা
সিটির ইয়েলো ও লিভারী ট্যাক্সি সার্ভিস সিস্টেমে বড় ধরনের পরিবর্তনের ইঙ্গিত ক্রমেই স্পষ্ট হয়ে উঠছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, খুব শীঘ্রই বদলে যাচ্ছে দীর্ঘদিনের ট্যাক্সি সার্ভিস সিস্টেম। এই সপ্তাহে দুটি ঘটনা এই ব্যবস্থার পরিবর্তন আরো নিশ্চিত করে তুলেছে। একদিকে লিভারী ক্যাবে রাস্তা থেকে যাত্রী উঠানোর অনুমোদন, অন্যদিকে সিটির সব ট্যাক্সিক্যাবে হুইলচেয়ার অ্যাকসেস বাধ্যতামূলক ঘোষণা করে আদালতের আদেশে এ নতুন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে সিটির ক্যাবিদের মধ্যে দেখা দিয়েছে আশংকা ও অনিশ্চয়তা।
 
মেয়র মাইকেল ব্লুমবার্গ ১৮ হাজার নতুন লিভারী লাইসেন্স প্রদান ও আরো দুই হাজার নতুন হুইল চেয়ার অ্যাকসেস আছে এমন ইয়েলো মেডিলিয়নের অনুমোদন দেওয়ার জন্য একটি বিলে মঙ্গলবার সাক্ষর করেছেন। এই লাইসেন্স গ্রহণ করে এই ১৮ হাজার লিভারী ক্যাব ম্যানহাটনের একটি অংশ ছাড়া সিটির সর্বত্র রাস্তা থেকে যাত্রী উঠানোর আনুষ্ঠানিক অনুমতি পাবে। সিটি খুব শীঘ্রই লাইসেন্স প্রদানে আবেদনপত্র গ্রহণ শুরু করবে। সিটি কর্তৃপক্ষ বলছেন, এজন্য ট্যাক্সি ক্যাবিদের হয়তো দুই-এক মাস অপেক্ষা করতে হবে।
 
অন্যদিকে শুক্রবার সিটির একজন ইউএস জাজ সিটির ইয়োলো ও লিভারী ট্যাক্সিক্যাবের সবগুলোতেই হুইলচেয়ার আরোহী শারিরিক-প্রতিবন্ধীদের সহজে চড়ার মতো ব্যবস্থা সম্বলিত একটি সমন্বিত পরিকল্পনা গ্রহণে রুলিং দিয়েছেন। ইউএস জাজ জর্জ ড্যানিয়েল তাঁর আদেশে বলেন, হুইল চেয়ার ব্যবহারকারীদের জন্য এ ব্যবস্থা গ্রহণ কোনো রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ন বা আদর্শিক লক্ষ্য অর্জন নয় - এটা হচ্ছে তাদের মৌলিক অধিকার।
 
সিটির ট্যাক্সি ও লিমুজিন কমিশনারের প্রতি এই রুল প্রদান করে তিনি আরো বলেন, যতদিন না সিটির সব ট্যাক্সি ক্যাবে এই ব্যবস্থা করা সম্ভব হচ্ছে ততদিন সিটির সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে বিকল্প কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারে। এ মামলার আবেদনে বলা হয়, সিটির মোট ১৩,০০০ ইয়েলো ও অন্যান্য ট্যাক্সিক্যাবের মধ্যে মাত্র ২০০টিতে হুইলচেয়ার অ্যাকসেস রয়েছে যা যুক্তরাষ্ট্রের ডিসঅ্যাবল অ্যাক্টের লংঘন।
 
এর আগে সিদ্ধান্ত হয়েছিল যে সিটির লিভারী ক্যাবগুলো রাস্তা থেকে যাত্রী পরিবহনের জন্য ১৫শ ডলারের বিনিময়ে বাৎসরিক পারমিট গ্রহণ করবে। এর সাথে হুইলচেয়ার যাত্রীদের উঠা নামার সুযোগ রয়েছে এমন ১৫শ নতুন মেডিলিয়নের নতুন করে অনুমোদন দেওয়া হবে। তবে সর্বশেষ সিবিএস নিউজ জানায়, সিটি এখন হাজার নতুন লিভারী লাইসেন্স ইস্যু ও হুইলচেয়ার যাত্রীদের উঠা-নামার সুযোগ রয়েছে এমন ধরনের ২ হাজার মেডিলিয়ন লাইসেন্স প্রদান করবে। এর সাথে যারা মেডিলিয়ন পাবেন সিটি তাদের সবাইকে এই মেডিলিয়ন কেনার জন্য ১৫,০০০ ডলার করে অনুদান দেবে।
 
এ সংক্রান্ত একটি বিল গত জুন মাসে পাশ হলেও বিতর্কের কারণে গভর্নর এন্ড্রু কুমো ও সিটি মেয়র মাইকেল ব্লুমবার্গ বিলে সাক্ষর করেননি। তবে দীর্ঘ আলোচনার পর গভর্নর কুমো ও মেয়র ব্লুমবার্গ এ সংক্রান্ত খুটিনাটি বিষয় নিয়ে একমত হওয়ার পর গত মঙ্গলবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে গভর্ণর কুমো বিলে তার সম্মতির কথা জানান। এর এক সপ্তাহ পরে ২৭ ডিসেম্বর মঙ্গলবার মেয়র ব্লুমবার্গ এ সংক্রান্ত চূড়ান্ত বিলে সাক্ষর করলেন।
 
সিটি কাউন্সিল জানায়, নতুন এই ট্যাক্সি ব্যবস্থার মাধ্যমে সিটি বছরে অতিরিক্ত প্রায় ১০০ কোটি ডলার আয় করবে। এদিকে লিভারী ক্যাবীদের পক্ষে লবিস্ট গ্রুপ দাবী করছে পারমিট প্রদানের বদলে নতুন মেডিলিয়নের অনুমতি দেওয়ার। অন্যদিকে নতুন ট্যাক্সি ব্যবস্থায় সিটির ইয়েলো-ক্যাবীদের ভবিষ্যত অন্ধকারের দিকে ঠেলে দেয়া হচ্ছে বলে ইয়োলো-ক্যাবিদের অভিযোগ। তারা বলছেন, এর ফলে ইয়েলো ক্যাবের মূল্যও অস্বাভাবিকভাবে কমে যাবে।
 
এদিকে শুক্রবার আদালতের আদেশে সিটির পুরো ট্যাক্সি ব্যবস্থাকে আবার ভঙ্গুর করে ফেলেছে। বেশ কয়েকটি বেসরকারী সিভিল রাইটস ও অ্যাডভোকেসী গ্রুপ ট্যাক্সি ক্যাবে হুইল চেয়ার ব্যবস্থা না থাকায় এ ক্ষেত্রে সিটিকে বাধ্য করার জন্য সিটির ট্যাক্সি ও লিমুজিন কমিশনারকে বিবাদী করে এই মামলা দায়ের করে। সিভিল রাইটস ও অ্যাডভোকেসী গ্রুপগুলো তাদের আবেদন উল্লেখ করে যে, ট্যাক্সি ক্যাবগুলোতে হুইল চেয়ার ব্যবহারকারীদের উঠা ও নামার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা না থাকাটা যুক্তরাষ্ট্রের শারিরিক প্রতিবন্ধী সংক্রান্ত আইনের খেলাপ। এ মামলার আবেদনে বলা হয়, সিটির মোট ১৩,০০০ ইয়েলো ও অন্যান্য ট্যাক্সিক্যাবের মধ্যে মাত্র ২০০টিতে হুইলচেয়ার অ্যাকসেস রয়েছে যা ডিসঅ্যাবল অ্যাক্টের লংঘন।
 
ইউএস জাজের এ আদেশের পরে তারা এ আদেশকে প্রতিবন্ধীদের জন্য ক্রিস্টমাসের সবচেয়ে বড় উপহার বলেও আনন্দ প্রকাশ করেন।
 
এদিকে এই আদেশ প্রদানের পরপরই সিটি কর্তৃপক্ষ তার প্রতিক্রিয়ায় জানায় ডিসঅ্যাবলদের উঠা-নামার ব্যবস্থা গ্রহণে প্রত্যেক ট্যাক্সি মালিককে অতিরিক্ত আরো ১৫ হাজার ডলার ব্যয় করতে হবে।
 
সিটির মুখপাত্র কনি প্যাংকাটস বলেন, বিচারপতি তাঁর আদেশের ক্ষেত্রে সিটির নিজস্ব আইন ও বাস্তবতা উপেক্ষা করেছেন। তিনি বলেন, সিটির এ সংক্রান্ত আইনে ট্যাক্সি ক্যাবগুলোকে এ ধরনের সুবিধা রাখার বাধ্যবাধকতা থেকে রেহাই দেওয়া হয়েছে।
 
এদিকে মেয়র মাইকেল ব্লুমবার্গও আদালতের এ আদেশের বিরোধিতা করছেন। তিনি বলেন, এ আদেশের ফলে প্রত্যেক ট্যাক্সি ক্যাব মালিককে নতুন ট্যাক্সি ক্যাব কিনতে বাধ্য করবে, যা তাদের জন্য বিপুল খরচের ব্যাপার হয়ে দাঁড়াবে।
 
এদিকে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা বলছেন আদালতের এ আদেশের ফলে সিটির ইয়েলো ও লিভারী ট্যাক্সি ক্যাব মালিকদের বড় ধরনের ঝামেলায় ফেলবে। আইন অনুযায়ী তাদেরকে আগামী ২-১ বছরের মধ্যে তাদের নিজ নিজ ট্যাক্সি বদলে নতুন হুইলচেয়ার একসেস্ আছে এমন ক্যাব কিনতে হবে।
 
শুক্রবার বিচারকের এই আদেশ প্রদানের আগেই সিটি হুইলচেয়ার একসেস আছে এমন নতুন ১,৫০০ মেডিলিয়নের অনুমোদনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। এ সম্পর্কে গত সপ্তাহে আজকালে একটি প্রতিবেদনও ছাপা হয়। আদালতের আদেশের ফলে এই ১৫০০ ট্যাক্সি মেডিলিয়ন ছাড়াও মোট ১৩,০০০ ট্যাক্সির সবগুলোকেই হুইলচেয়ার একসেসসহ নতুন মেডিলিয়নে রূপান্তরের বাধ্যবাধকতা দেখা দিয়েছে।
 

যূক্তরাষ্ট্র

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে