Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ১৫ জুলাই, ২০১৯ , ৩১ আষাঢ় ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (25 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-০৬-২০১৪

এমপিদের অস্বাভাবিক সম্পদ থাকলে দুদক ব্যবস্থা নেবে

এমপিদের অস্বাভাবিক সম্পদ থাকলে দুদক ব্যবস্থা নেবে

ঢাকা,০৬ জানুয়ারি-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তার দলের কোনো এমপি’র সম্পদ অস্বাভাবিকভাবে বাড়লে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দুর্নীতি দমন কমিশন সম্পূর্ণ স্বাধীন। তিনি বলেছেন কেউ দুর্নীতি করে তার কাছে প্রশ্রয় পাবে না।

সোমবার গণভবনে নির্বাচন পরবর্তী সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের এমপিদের বিপুল পরিমান সম্পত্তির মালিক হওয়া নিয়ে সাংবাদিকদের একটি প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কেউ যদি দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত হয়ে থাকে তবে তার বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, দুর্নীতি করলে দুর্নীতি দমন কমিশন তার ব্যবস্থা নেবে। আমি অন্তত কোনো দুর্নীতিবাজকে রক্ষা করতে যাবে না। এ ব্যাপারে আমার কোনো দুর্বলতা নেই।

প্রধানমন্ত্রী অবশ্য এ সময় এমপিদের সম্পদ বেড়ে যাওয়ার পক্ষেও সাফাই গান। তিনি বলেন, দেশে এখন মাথাপিছু আয় যথেষ্ট বেড়েছে। তার মানে আমাদের আয় বেড়েছে। আয় বাড়ানোর মাত্রা যদি কারো অস্বাভাবিক হয়ে থাকে তাহলে দুর্নীতি দমন কমিশন আছে। তারা স্বাধীন। তারা অবশ্যই ব্যবস্থা নেবে।

প্রতি বছর প্রার্থীরা সম্পদের হিসাব দেন। এর মধ্যে কিছু কারসাজি থাকে। তবে কে কীভাবে খবর ছাপিয়েছে সেটাও দেখার বিষয়। তবে অভিযোগগুলো যাদের বিরুদ্ধে উঠেছে তারাই মোকাবেলা করবেন। আর যদি মোকাবেলা না করতে পারেন তাহলে তাদেরকেই ভুগতে হবে। আমরা কখনো দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেইনি, দেব না।

প্রধানমন্ত্রী এসময় আরও বলেন, বাংলাদেশের দুর্নীতি কিন্তু কমেছে। এটাও মানতে হবে।

বিদেশি এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশের পররাষ্ট্রনীতি খুব স্পষ্ট, সব দেশের সঙ্গেই বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক। উন্নতির জন্য আমরা চাই সবার সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রাখতে। আমরা সব সময় বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ও সহযোগিতাকে মূল্য দেই।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সংলাপে সবকিছুই নিয়েই আলোচনা হবে। তারা হরতাল দিয়ে যাচ্ছে, জনগণ তো মানছে না। তাদের মানুষ হত্যা বন্ধ করতে হবে। ককটেল মেরে, চলন্ত বাসে পেট্রোল বোমা ছুড়ে মানুষ হত্যা করছে। শুধু তাই নয়, গাছ কাটছে। গরুও পুড়িয়ে মারছে। তরকারির ট্রাকে আগুন দিচ্ছে। এসব ধ্বংসাত্মক কাজ বন্ধ করতে হবে।

সবচেয়ে বড় কথা যুদ্ধাপরাধী, জঙ্গিবাদীদের সঙ্গ ছাড়তে হবে। উচ্চ আদালত ঘোষণা দিয়েয়ে জামায়াত একটি যুদ্ধাপরাদী জঙ্গিবাদী সংগঠন। তাদের সঙ্গ ছাড়লেই সুষ্ঠুভাবে আলোচনা করা যাবে, বলেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বিএনপি প্রসঙ্গে বলেন, যতক্ষণ জঙ্গিবাদীরা তাদের ঘাড়ে চেপে থাকবে ততক্ষণ পর্যন্ত তারা সুষ্ঠু চিন্তা করতে পারবে না।

অপর এক প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে নির্বাচনে অংশ নিয়েছে সব বাধা অতিক্রম করে। এখন বাংলাদেশের প্রতি নিষেধাজ্ঞা নিয়ে প্রশ্ন কেন, বাংলাদেশ কি অপরাধ করেছে। বহুদেশে তো এর চেয়ে খারাপ অবস্থায় নির্বাচন হয়েছে। আমরা তো সেটা দেখেছি। সেগুলো তো গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা নিষেধাজ্ঞা করাতে চায় তারা আসলে স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে না। গণতন্ত্র থাকলে বোধহয় তাদের মূল্য থাকে না।

অর্থনৈতিকভাবে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। অর্থনীতি মজবুত। রিজার্ভ এখন ১৮ বিলিয়নের উপরে। আমাদের প্রবৃদ্ধি ৬ ভাগের উপরে রাখতে সক্ষম হয়েছি। রপ্তানি অব্যাহত রেখেছি। এগুলো বিদেশি শক্তি দেখবে না? প্রশ্ন শেখ হাসিনার।

তিনি বলেন, যারা বাংলাদেশের অস্তিত্ব, স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে না তারাই বিদেশি নিষেধাজ্ঞার কথা বলতে পারছে। কিন্তু জনগণ আমাদের সাথে আছে। আমরা এগিয়ে যাব।

 

ঢাকা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে