Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০১৯ , ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.4/5 (47 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১২-৩১-২০১১

যুক্তরাষ্ট্রে ‘বঙ্গবন্ধু সাংষ্কৃতিক গোষ্ঠী‘র বর্ণাঢ্য আত্মপ্রকাশ

যুক্তরাষ্ট্রে ‘বঙ্গবন্ধু সাংষ্কৃতিক গোষ্ঠী‘র বর্ণাঢ্য আত্মপ্রকাশ
নিউইয়র্ক, ৩১ ডিসেম্বর -আমেরিকার মাটিতে সাংষ্কৃতিক চর্চায় মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার চেতনাকে ধারন করার তাগিদে গঠিত ‘বঙ্গবন্ধু সাংষ্কৃতিক গোষ্ঠী উত্তর আমেরিকা‘র আত্মপ্রকাশ ও বিজয় দিবস উদযাপন অনুষ্ঠান নিউইয়র্কের সুধী মহলে বিশেষ প্রশংসা কুড়িয়েছে। গত ২৩ ডিসেম্বর জ্যাকসন হাইটসের জ্যুইস সেণ্টারে অনুষ্ঠিত এই আয়োজনে প্রধান অতিথি ছিলেন ওয়াশিংটনে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত আকরামুল কাদের। ব্যতিক্রমী আয়োজনের অনুষ্ঠানসূচীতে ছিল না প্রথাগত মঞ্চ ও বক্তৃতাপর্ব। নব গঠিত ‘বঙ্গবন্ধু সাংষ্কতিক গোষ্ঠী উত্তর আমেরিকা‘র সভাপতি লুত্‌ফুন্নাহার লতা অনুষ্ঠানের শুরতে সংগঠনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য তুলে ধরেন তার নাতিদীর্ঘ কথামালায়। বিজয় দিবসকে সামনে আযোজিত অনুষ্ঠানকে ৩০ লক্ষ শহীদ ও ২ লক্ষ বীরাঙ্গনা এবং জীবিত মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি উত্‌সর্গ করার কথা বলেন তিনি তার বক্তব্যে। আল আমিনের পরিকল্পনা ও পরিচালনায় গীতি আলোখ্য ‘জয় বাংলা, বাংলার জয়’ ও লুত্‌ফুন্নাহার লতার ‘আমি বীরাঙ্গনা বলছি’ গীতি আলোখ্য দর্শক হৃদয় ছুঁয়ে যায়।

অনুষ্ঠানের শুরুতে সমবেত জাতীয় পরিবেশন করেন ‘বঙ্গবন্ধু সাংষ্কৃকিত গোষ্ঠী উত্তর আমেরিকা‘র সদস্যরা। তার আগে মঙ্গল আলোক প্রজ্জলনের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠানমালা শুরু হয়। প্রথমে আলোক প্রজ্জলন করেন মুক্তিযোদ্ধা আকবর রিচি। এরপর একে একে প্রজ্জলন করেন রাষ্ট্রদূত আকরামুল কাদের, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুরুন্নবী, মুক্তিযোদ্ধা খুরশীদ আনোয়ার বাবলু, ড. আব্দুল বাতেন, মেজর হাসান, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মুকিত চৌধুরী, গোলাম মোস্তফা খান মেরাজ, কনসাল জেনারেল সাব্বির আহমেদ চৌধুরী, পফেসর ড. আনোয়ার, সৈয়দ মোহাম্মদউল্ল্যাহ, বেলাল বেগ, ওবায়দুল্লাহ মামুন, হাসান ফেরদৌস, নিজাম চৌধুরী, আইরিন পারভিন সহ আরো অনেকে।

‘বঙ্গবন্ধু সাংষ্কৃতিক গোষ্ঠী উত্তর আমেরিকা‘র আত্মপ্রকাশ ও বিজয় দিবস নিয়ে মূল বক্তব্য রাখেন প্রফেসর আলী আনোয়ার। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রধান অতিথি রাষ্ট্রদূত আকরামুল কাদের, কনসাল জেনারেল সাব্বির আহমেদ চৌধুরী, নিজাম চৌধুরী ও গোলাম মোস্তফা মেরাজ। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বলেন ইকবাল হোসেন। বাসমা ও সিদ্ধার্থের সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্যে দিয়ে সাংক্ষৃতিক পর্ব। এর পরে আসেন স্বাধীন বাংলা বেতারের শিল্পী শহীদ হাসান তার পরিবেশনা নিয়ে। দেশের গানে বাঁশির সূর তুলেন নজরুল ইসলাম। একক সঙ্গীত পরিবেশন করেন তানভির শাহিন, জেসমিন মোস্তাক।

গীতি আলোখ্য ‘জয় বাংলা, বাংলার জয়’-এ অংশ নেন আল আমিন, জি এইচ আরজু, চন্দ্রা রায়, জেসমিন মোস্তাক, নাফিসা নূর স্বাতী, আতিয়া, লুনা কাজী, সফিকুল আলম সহিদ, তানভির শাহিন, রঞ্জিত সাহা। ‘আমি বীরাঙ্গনা বলছি’ বলছি গীতি আলাখ্যের সাথে তবলায় ছিলেন তপন মোদক ও সেতারে মোর্শেদ খান অপু- কাহিনী অবলম্বেনে তাত্‌ক্ষণিক চিত্র আঁকেন শিল্পী তানবীর সারোয়ার রানা। পরে মোর্শেদ খান অপু ও তপন মোদক একক ও যুগলবন্দী পরিবেশনা করে মুগ্ধ করেন শ্রোতাদর। আলোকের এই ঝর্ণাধারায় ধূঁয়ে দাও-র সাথে শ্বেতা গোস্বামীর নৃত্যের মধ্যে দিয়ে শেষ হয় অসম্ভব সুন্দর এক অনুষ্ঠানের যা সবার মানসপটে অ্ম্লান থাকবে বহুদিন।

যূক্তরাষ্ট্র

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে