Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ১৪ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৮-১০-২০২০

প্রিয়ঙ্কা গান্ধীর সঙ্গে দেখা করেছেন শচীন পাইলট, কথা হতে পারে রাহুলের সঙ্গেও

প্রিয়ঙ্কা গান্ধীর সঙ্গে দেখা করেছেন শচীন পাইলট, কথা হতে পারে রাহুলের সঙ্গেও

নয়াদিল্লী, ১০ আগস্ট - সোমবার সকালে শোনা গিয়েছিল, রাজস্থানের বিদ্রোহী কংগ্রেস বিধায়ক শচীন পাইলট দলের প্রাক্তন সভাপতি রাহুল গান্ধীর সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছেন। এদিন বিকালে জানা গেল, দু'সপ্তাহ আগেই দলের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়ঙ্কা গান্ধী বঢরার সঙ্গে দেখা করেছেন শচীন। ইতিমধ্যে দুই প্রথম সারির কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেল ও কে সি বেণুগোপালের সঙ্গেও শচীনের কথা হয়েছে। সোমবার রাতেই শচীনের সঙ্গে দেখা করতে পারেন রাহুল। আগামী ১৪ অগাস্ট রাজস্থান বিধানসভার অধিবেশন শুরু হচ্ছে।

তার আগে শচীন পাইলট যেভাবে দলের হাইকম্যান্ডের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন, তা বিশেষ তাত্‍পর্যপূর্ণ বলে পর্যবেক্ষকদের ধারণা। বিধানসভার আগামী অধিবেশনেই সম্ভবত মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলোট আস্থাভোট নিতে চাইবেন। কিন্তু তাঁর পক্ষে ঠিক কতজন বিধায়ক আছেন এখনও পরিষ্কার নয়। তিনি বরাবরই অভিযোগ করেছেন, শচীন বিজেপির সঙ্গে ষড়যন্ত্র করে রাজস্থানে সরকার ফেলে দিতে চান। রবিবার মরুশহর জয়সলমিরে কংগ্রেস পরিষদীয় দলের বৈঠক বসে।

আরও পড়ুন: পাকিস্তানে বোমা বিস্ফোরণে নিহত ৬, আহত ২০

সেখানে নগরোন্নয়ন ও আবাসন মন্ত্রী শান্তি ধারিওয়াল বলেন, যারা দলের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে, তাদের আর কখনই ফিরিয়ে নেওয়া উচিত নয়। অপর বিধায়করা একবাক্যে তাঁকে সমর্থন করেন। এআইসিসি-র সাধারণ সম্পাদক অবিনাশ পাণ্ডে বলেন, কংগ্রেসে বিদ্রোহ নিয়ে ব্যবস্থা নেবে হাইকম্যান্ড। তবে তিনি নিজে চান, বিদ্রোহীদের যেন আর ফেরানো না হয়। একটি সূত্রে জানা যায়, অশোক গেহলোট বিধায়কদের বলেছেন, অনেক সময় গণতন্ত্রকে বাঁচানোর জন্য 'দিল পর পাত্থর রাখনা পড়তা হ্যায়'। মুখ্যমন্ত্রীর পরামর্শ, আপাতত বিধানসভার অধিবেশনের ওপরেই বিধায়কদের পূর্ণ মনোযোগ দিতে হবে। অধিবেশন শুরু হচ্ছে ১৪ অগাস্ট।

রবিবার অশোক গেহলোট সাংবাদিকদের বলেন, তাঁর আশা বিদ্রোহী ১৯ জন বিধায়কের সংখ্যাগরিষ্ঠই ফের কংগ্রেসে ফিরে আসবেন। কারণ তাঁরা বুঝেছেন, মানুষ তাঁদের ওপরে অসন্তুষ্ট। কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বও মনে করে, শচীন পাইলট দলে ফিরতে চলেছেন। দলের এক প্রবীণ নেতা বলেন, ১২ জুলাই প্রিয়ঙ্কা ফোনে শচীনের সঙ্গে কথা বলেন। তারপরে দু'জনের বৈঠক হয়। শচীন বলেন, আগামী দিনে তিনি রাজস্থানে থেকেই রাজনীতি করতে চান। দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে তিন আশ্বাস চান, কংগ্রেসে তাঁর ভবিষ্যত্‍ সুরক্ষিত থাকবে। প্রিয়ঙ্কা তাঁকে কোনও কথা দেননি। প্রিয়ঙ্কা, আহমদ প্যাটেল ও কে সি বেণুগোপালকে শচীন কী বলেছেন, তা জানানো হয়েছে রাহুলকে। প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি শচীনের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার পক্ষপাতী। গত দু'সপ্তাহে রাহুল দু'বার ফোনে কথা বলেছেন শচীনের সঙ্গে।

এন এইচ, ১০ আগস্ট

দক্ষিণ এশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে