Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ১২ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৮-০৯-২০২০

মেসওয়াক মুখ পরিষ্কারক ও আল্লাহর সন্তুষ্টকারী বস্তু

মেসওয়াক মুখ পরিষ্কারক ও আল্লাহর সন্তুষ্টকারী বস্তু

সুস্বাস্থ্য ও সুস্থতার জন্য দাঁত পরিষ্কার রাখা ও সুরক্ষার চেষ্টা খুবই জরুরি। দাঁত পরিষ্কারের সঙ্গে তৃপ্তির সঙ্গে খাবার এবং হজম শক্তি বৃদ্ধির সম্পর্ক রয়েছে। আর যে ব্যক্তি তৃপ্তিসহ খাবার খায় এবং হজম শক্তি ঠিক থাকে, সে ব্যক্তি শারীরিকভাবেও সুস্থ এবং সবল থাকে। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের বাস্তবজীবনেও এর যথাযথ ব্যবহার সম্পর্কে হাদিসের সুস্পষ্ট বর্ণনা পাওয়া যায়।

দাঁত পরিষ্কার রাখায় মুখের সুস্থতা অনেকটা নির্ভরশীল। দাঁত মজবুত রাখার জন্য নিয়মিত দাঁত পরিষ্কার রাখতে হয়। এ জন্য দাঁত পরিষ্কার করতে মেসওয়াক ও মাজন ব্যবহার করতে হয়। মেসওয়াক ব্যবহার করার ব্যাপারে প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম জোর তাগিদ দিয়েছেন।

দাঁত পরিষ্কার রাখতে করণীয়...
- পান তামাক জাতীয় জিনিস বেশি গ্রহণ করা যাবে না।
- খাবারের পর অবশ্যই ভালোভাবে দাঁত ও মুখ পরিষ্কার রাখা।
- হাদিসের নির্দেশনাগুলো যথাযথভাবে মেনে চলা।

দাঁত অপরিষ্কার থাকলে দাঁত, মুখ ও হজমে নানা সমস্যা হয়ে থাকে। জটিল ও কঠিন রোগে আক্রান্ত হয় মানুষ। সুস্বাস্থ্য ও সুস্থতার জন্য দাঁত ও মুখ পরিষ্কারে হাদিসে অনেক উপদেশ ও নির্দেশনা এসেছে। আর তাহলো-
- রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের অভ্যাস ছিল যে, তিনি ঘুম থেকে উঠেই মেসওয়াক দ্বারা দাঁত পরিষ্কার করতেন।' (বুখারি ও মুসলিম)

- হজরত আয়েশা রাদিয়াল্লাহু আনহা বলেন, আমি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর জন্য ওজুর পানি ও মেসওয়াক প্রস্তুত রাখতাম। যখনই তিনি আল্লাহর নির্দেশ পেতেন তখনই উঠে বসতেন এবং মেসওয়াক করতেন। তারপর ওজু করে নামাজ আদায় করতেন।' (মুসলিম)

- হজরত আনাস রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, 'আমি তোমাদের মেসওয়াক করার জন্য অনেক গুরুত্ব প্রদান করছি।' (বুখারি)

- হজরত আয়েশা রাদিয়াল্লাহু আনহা বর্ণনা করেন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, মেসওয়াক মুখ পরিষ্কারক ও আল্লাহর সন্তুষ্টকারী বস্তু।' (নাসাঈ)

- রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, 'যদি আমার উম্মতের জন্য কষ্টর হবে বলে মনে না করতাম তবে আমি তা প্রত্যেক নামাজের সময় মেসওয়াক করা অপরিহার্য করে দিতাম।' (আবু দাউদ)

উপরোল্লেখিত হাদিসের আলোকে বুঝা যায়, শারীরিক যে কোনো সুস্থতার জন্য দাঁত ও মুখ পরিষ্কার রাখা জরুরি। আর তা পরিষ্কার না রাখার কারণেই মানুষের নানান শারীরিক সমস্য ও রোগ-ব্যধি তৈরি হচ্ছে।

সুতরাং সুস্বাস্থ্য ও সুস্থতার জন্য হাদিসের নির্দেশনা মেনে দৈনন্দিন জীবনে দাঁত ও মুখ পরিষ্কারের বিকল্প নেই। আর পরিষ্কার রাখতে যেমন হাদিসে নির্দেশনা এসেছে। তেমনি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামও মানুষের সুস্থতার জন্য মেসওয়াক করার নির্দেশ দিয়েছেন।

সর্বোপরি সুস্বাস্থ্য ও সুস্থতায় দাঁত ও মুখ পরিষ্কারে প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের এ নির্দেশনা মেনে চলা জরুরি। যা তিনি কয়েকজন সাহাবাকে পরামর্শ দিয়েছেন। আর তাহলো-
একবার রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের কাছে কয়েকজন সাহাবা সাক্ষাৎ করতে আসলেন। তাঁদের দাঁত পরিষ্কার না করার কারণে তা হলুদ বর্ণ ধারণ করেছিল। তিনি তা দেখে জিজ্ঞাসা করলেন- 'তোমাদের দাঁত হলুদ বর্ণ দেখাচ্ছে কেন? তোমরা মেসওয়াক করে নিও।' (মুসনাদে আহমাদ)

দাঁত ও মুখ পরিষ্কারে মেসওয়াক করায় এ ছিল প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নির্দেশ ও নসিহত। তাই মুমিন মুসলমানের উচিত সকালে ঘুম থেকে উঠেই দাঁত ও মুখ পরিষ্কার করে নেয়া। ওজু করে নামাজ আদায় করা। কেননা দাঁত পরিষ্কারের মাঝেই রয়েছে মানুষের শারীরিক সুস্থতা।

আরও পড়ুনঃ মানুষের জন্য আল্লাহ তায়ালার সতর্কবাণী

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে হাদিসের নির্দেশনা মেনে যথাযথ সময় দাঁত ও মুখ পরিষ্কার করে সুস্থ থাকার পাশাপাশি দুনিয়া ও পরকালের যথাযথ কল্যাণ ও ফজিলত লাভ করার তাওফিক দান করুন। হাদিসের ওপর আমল করার তাওফিক দান করুন। সুস্বাস্থ্য ও সুস্থ থাকার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এআর/১০ আগস্ট

ইসলাম

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে