Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ১৪ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৮-০৮-২০২০

সদ্য সাবেক ওসি প্রদীপের ড্রয়ার থেকে ইয়াবা ও মাসোহারার তালিকা উদ্ধার

হাবিব রহমান


সদ্য সাবেক ওসি প্রদীপের ড্রয়ার থেকে ইয়াবা ও মাসোহারার তালিকা উদ্ধার

কক্সবাজার, ০৯ আগস্ট- অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার সদ্য সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাসের টেকনাফ থানার অফিসকক্ষে গত শুক্রবার অভিযান পরিচালনা করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিভিন্ন ইউনিটের সমন্বয়ে গঠিত একটি বিশেষ আভিযানিক দল। এ সময় তার সাবেক কর্মস্থলের অফিসকক্ষের টেবিলের ড্রয়ার থেকে ইয়াবা বড়ি এবং মাসোহারা গ্রহণ ও প্রদানের একটি তালিকা উদ্ধার করে। ওই তালিকা জব্দ করা হয়েছে। তালিকাটি এখন যাচাই-বাছাই করে দেখা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

গত ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার মেরিন ড্রাইভের টেকনাফ থানার শামলাপুর পুলিশ চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। বিষয়টি নিয়ে দেশজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়। এ ঘটনায় সিনহার বড় বোন ৯ পুলিশ সদস্যকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। ওই মামলায় গত বৃহস্পতিবার ওসি প্রদীপসহ ৭ পুলিশ সদস্যের ৭ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন কক্সবাজারের আদালত। বর্তমানে তারা কারাগারে রয়েছেন। আজ রবিবার তাদের রিমান্ডে নেবে মামলাটির তদন্ত সংস্থা র‌্যাব। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মূলত তদন্তের অংশ হিসেবে প্রদীপের অফিসকক্ষে তল্লাশি চালানো

হয়। সেখানেই পাওয়া যায় ইয়াবা ও মাসোহারার একটি তালিকা। কথিত ক্রসফায়ার বাণিজ্যসহ নানাভাবে আয় করা অর্থের একটি অংশ মাসোহারা হিসেবেও প্রভাবশালী ব্যক্তিদের দিতেন ওসি প্রদীপ। কিছু অপরাধী চক্রের কাছ থেকে তিনি নিজেও নিয়মিত মাসোহারা নিতেন। তালিকাটি যাচাই-বাছাই করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

অভিযানে অংশ নেওয়া কর্মকর্তাদের ধারণা, নিরপরাধ ব্যক্তিদের মাদক মামলায় ফাঁসাতে এসব ইয়াবা ব্যবহার করা হতো। চাহিদানুযায়ী টাকা না মিললেই সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার দেখানো হতো।

মাসোহারা বন্ধ হওয়ায় প্রদীপের কাণ্ড

মাসোহারা বন্ধে হয়ে যাওয়ার আশঙ্কায় কক্সবাজারের মহেশখালীর দস্যু ও অস্ত্র কারবারিদের আত্মসমর্পণ প্রক্রিয়ায় বাধা দিয়েছিলেন সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাস। তখন তিনি মহেশখালী থানার ওসি ছিলেন। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সরকারের উচ্চপর্যায়ের সিদ্ধান্তে তাদের আত্মসমপর্ণ প্রক্রিয়ায় এক প্রকার প্রকাশ্যে বাধা দেন প্রদীপ কুমার। কারণ তিনি এসব অপরাধী চক্রের কাছ থেকে নিয়মিত মাসোহারা গ্রহণ করতেন। পরে বিষয়টি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের হস্তক্ষেপে সুরাহা হয়। পরে অবশ্য ২০১৮ সালে ওসি প্রদীপ কুমার দাস মহেশখালী থানা থেকে টেকনাফ থানায় বদলি হয়ে আসেন। এ থানায় বদলি হয়ে আসা নিয়ে নানা গল্প সে সময় শোনা যায়।

আজ থেকে রিমান্ড শুরু

সিনহা হত্যা মামলায় আজ রবিবারে ওসি প্রদীপসহ ৭ পুলিশ সদস্যকে রিমান্ডে নেবে র‌্যাব। র‌্যাব জানিয়েছে, মামলাটি স্পর্শকাতর হওয়ায় বিষয়টি নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ করছেন। আসামিদের রিমান্ডে নেওয়ার পর সময় নষ্ট না হয়। দ্রুত শেষ হয় মামলার তদন্ত কার্যক্রম। বর্তমানে কক্সবাজার জেলা কারাগারে অন্তরীণ রয়েছেন প্রদীপ কুমার দাস, সাবেক পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ ৭ পুলিশ সদস্য।

এ বিষয়ে র‌্যাবের আইন গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ বলেন, ‘আমাদের কিছু প্রস্তুতি রয়েছে। সেগুলো শেষ করে আশা করছি রবিবার থেকে রিমান্ড শুরু হবে।’

কক্সবাজার জেলা কারা সূত্র জানিয়েছে, ওই একই কারাগারে অন্তরীণ রয়েছেন সাবেক ওসি প্রদীপের হাতে গ্রেপ্তার মাদক ব্যবসায়ীসহ অনেক নিরীহ মানুষ। বৃহস্পতিবার কারাগারে যাওয়ার পরই তাদের দেখে নানা রকম স্লোগান দিতে শুরু করেন হাজতি ও কয়েদিরা। ওসি প্রদীপের ওপর কারাগারে হামলা হতে পারে আশঙ্কায় তাকেসহ ৭ পুলিশ সদস্যকে বিশেষ নিরাপত্তায় রেখেছে কারা কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুনঃ মিরপুর বিভাগের ডিসিসহ ৬ পুলিশ কর্মকর্তা বদলি

তথ্যসূত্র: আমাদের সময়
এআর/০৯ আগস্ট

কক্সবাজার

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে