Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ , ৫ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (46 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১২-২৯-২০১৩

পানি পাগলির মাজারে ফের অপকর্মের মজমা

পানি পাগলির মাজারে ফের অপকর্মের মজমা

মানিকগঞ্জ, ২৯ ডিসেম্বর- মানিকগঞ্জের সেই পানি পাগলির মাজারের নামে আবারও চাঁদাবাজি শুরু হয়েছে। প্রশাসন থেকে গুঁড়িয়ে দেওয়া মাজারে নতুন করে গড়ে তোলা হয়েছে স্থাপনা। মাজারের কথিত পবিত্র মাটি আর পানির জন্য সরল বিশ্বাসীদের কাছ থেকে নেওয়া হচ্ছে টাকা-পয়সা। মাজার ঘিরে বসেছে গাঁজা, মদসহ মাদকের আসর। সরকারদলীয় স্থানীয় এক নেতার উদ্যোগে এই মাজার ব্যবসায় প্রশাসনের কর্মকর্তারাও জড়িত বলে অভিযোগ উঠেছে।

মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার বৈলতলা গ্রামে গত এপ্রিল মাসে ১০-১২ বছরের ভবঘুরে এক মানসিক প্রতিবন্ধী কিশোরী কালিগঙ্গা নদীতে ডুবে মারা যায়। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) থেকে ঘিওর থানা পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। খবর পেয়ে আসা তদন্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) জহীরের নির্দেশে ইউপি সদস্য কিতাব মোল্লার তত্ত্বাবধানে নদীর চরে ওই ভবঘুরে কিশোরীকে কবর দেওয়া হয়। এর কিছুদিন পরেই রটিয়ে দেওয়া হয় মেয়েটি কামেল (জ্ঞানী) তার কবরের মাটি বা পানি পান করলে দুরারোগ্য ব্যধি দূর এবং মনের আশা পূরণ হয়। নদীর চরে কথিত মাজারে গড়ে তোলা হয় পাকা স্থাপনা। এ বিষয়ে কালের কণ্ঠসহ বিভিন্ন পত্রিকা এবং টিভি চ্যানেলে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে মানিকগঞ্জ প্রশাসন ওই স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেয়। মামলা হয় সিংজুড়ি ইউপি চেয়ারম্যানসহ আটজনের বিরুদ্ধে। বন্ধ হয়ে যায় পানি পাগলির মাজারের কার্যক্রম।

কিন্তু গত এক মাস ধরে আবারও শুরু হয়েছে পানি পাগলির মাজারের কার্যক্রম। গত সোমবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, নদীর চরে কথিত পানি পাগলির মাজারে গড়ে তোলা হয়েছে আরসিসি খুঁটির ওপর টিনশেড স্থাপনা। শেডের নিচে লাল সালু দিয়ে ঢাকা একটি সংরক্ষিত স্থানকে বলা হচ্ছে পানি পাগলির কবর। পুরো মাজার ঘিরে টানানো হয়েছে লাল নিশান। মহিলা, পুরুষ ও শিশু-কিশোরদের দেখা গেল কথিত কবরকে উদ্দেশ্য করে সেজদা দিতে। কেউ কবরের পাশে স্তূপ করে রাখা পবিত্র মাটি নিচ্ছে, কেউ বোতলে ভরে নিচ্ছে মাজারের পাশ দিয়ে প্রবাহিত নদীর পানি। বিনিময়ে পানি পাগলির কবরে দিচ্ছে টাকা-পয়সা। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, রাতে আরো জমজমাট হয়ে ওঠে মাজার। একটু আড়ালে মদের আসর বসলেও গাঁজার আসর বসে প্রকাশ্যে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, সিংজুড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মহম্মদ আব্দুল আজিজ ও বর্তমান ইউপি সদস্য কিতাব আলীর নেতৃত্বে চলছে এবার মাজারের কার্যক্রম। যাকেই জিজ্ঞাসা করা হয়েছে, সবাই জানিয়েছে তাদের দুজনের কথা। এর আগেরবারও মাজার কমিটির সভাপতি ছিলেন আব্দুল আজিজ। তখন সেক্রেটারি ছিলেন সিংজুড়ি ইউপির চেয়ারম্যান আবদুর রশিদ। ক্যাশিয়ারের দায়িত্বে ছিলেন কিতাব আলী। গতবার প্রশাসন সিংজুড়ি ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তাকে দিয়ে সরকারি জমিতে পাকা স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগে একটি মামলা করে। কিন্তু ওই মামলায় রহস্যজনকভাবে মাজার কমিটির সভাপতি আব্দুল আজিজ ও কিতাব আলীকে বাদ দিয়ে আটজনকে আসামি করা হয়। আসামিরা বর্তমানে হাইকোর্টের জামিনে আছেন।

এ প্রসঙ্গে সিংজুড়ি ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রশিদ জামিনে মুক্ত হওয়ার কথা স্বীকার করে জানান, বর্তমানে মাজারটি পরিচালনা করছেন আব্দুল আজিজ ও কিতাব আলী। তিনি আরো জানান, গতবারের ২২ লাখ টাকা এখনো ব্যাংকে জমা রয়েছে। তবে এর বাইরে আরো বিপুল অঙ্কের টাকা আব্দুল আজিজ ও কিতাব আলী আত্মসাৎ করেছেন। মামলায় আব্দুল আজিজ ও কিতাব আলীকে আসামি না করাকে রহস্যজনক বলে অবহিত করে তিনি জানান, আত্মসাৎ করা মাজারের টাকা-পয়সা খরচ করে এরা মামলা থেকে রক্ষা পেয়েছেন।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আব্দুল আজিজ ও কিতাব আলী। তাঁদের দাবি, মাজারের সঙ্গে জড়িত না থাকার লিখিত মুচলেকা দিয়ে তারা মামলা থেকে রেহাই পেয়েছেন। পুনরায় মাজার বসানোর সঙ্গে জড়িত থাকার কথাও তাঁরা অস্বীকার করেন। তাঁরা জানান, ভূমি প্রশাসন থেকে মাপজোখ করে জানা গেছে, মাজারের জমি মরিয়ম বেগম নামের একজনের। মরিয়ম বেগম ওই জমি লিখে দিয়েছেন তাঁর ছেলে রফিককে। রফিক এবং গ্রামের কয়েকজন মিলে বর্তমানে মাজার বসিয়েছে বলে আব্দুল আজিজ ও কিতাব আলী দাবি করেন।

তবে অনুসন্ধানে জানা গেছে, মরিয়ম বেগম আব্দুল আজিজের ভাতিজি। আর আব্দুল আজিজ নেপথ্যে থেকে কিতাব আলীর সহযোগিতায় আবার মাজার বসিয়েছেন। প্রশাসনকে প্রতিদিন একটি অঙ্কের টাকা দিয়ে নিরাপদে চলছে এই মাজার ব্যবসা।

এ ব্যাপারে ঘিওর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) খোন্দকার মহম্মদ আলী বলেন, নতুন করে মাজার বসানোর খবর লোকমুখে শুনেছেন। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ঘিওর থানার ওসি আশরাফ উল ইসলাম বলেন, প্রশাসন থেকে নির্দেশ দিলেই তিনি মাজার উচ্ছেদের ব্যবস্থা নেবেন।

মানিকগঞ্জ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে