Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ৬ আগস্ট, ২০২০ , ২২ শ্রাবণ ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-২৮-২০২০

ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের পরিচালক অহিদুজ্জামান গ্রেপ্তার

ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের পরিচালক অহিদুজ্জামান গ্রেপ্তার

ঢাকা, ২৮ জুলাই - ক্রেস্ট সিকিউরিটিজ কেলেঙ্কারির পলাতক আসামি কোম্পানির পরিচালক অহিদুজ্জামানকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। আজ মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর খিলক্ষেত এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে তিনি অফিস গুটিয়ে পালিয়ে গিয়েছিলেন।

গোয়েন্দা পুলিশের রমনা বিভাগের উপকমিশনার এইচ এম আজিমুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘খিলক্ষেত লেকসিটির একটি বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর আগে একই মামলায় কোম্পানির চেয়ারম্যান ও তার স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা গ্রাহকদের প্রায় একশ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।’

এর আগে গত ১২ জুলাই শেয়ার ও অর্থ আত্মসাতের ঘটনায় ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের ক্ষতির পরিমাণ নিরূপণের লক্ষ্যে ব্যাকঅফিস সার্ভারের তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। ডিবি’র এ কাজে সহযোগিতা করেন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডের (সিডিবিএল) কর্মকর্তারা।

আরও পড়ুন: সাহাবউদ্দিন মেডিকেলের এমডিসহ ৩ জন কারাগারে

জানা গেছে, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের ব্রোকারেজ হাউজ ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের মাধ্যমে প্রায় ২২ হাজার বিও হিসাবধারী শেয়ার কেনাবেচা করতেন। তাদের যে শেয়ার রয়েছে, তার বাজার মূল্য ৮২ কোটি টাকার মতো বলে ডিএসই কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল। কিন্তু এর মালিক শহিদ উল্লাহ সম্প্রতি ব্রোকারেজ হাউজ বন্ধ করে লাপাত্তা হয়ে গেলে বিপাকে পড়েন বিনিয়োগকারীরা। সঙ্কটকালে শেয়ার ও অর্থ আটকে যাওয়ায় তারা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন।

পরে এক কোটি টাকার বেশি আত্মসাতের অভিযোগ করে পল্টন থানায় মামলা করেন তাদের দুই বিনিয়োগকারী। এর ভিত্তিতে গত ৬ জুলাই লক্ষ্মীপুর ও নোয়াখালীর সীমান্ত এলাকা থেকে ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শহীদ উল্লাহ, তার স্ত্রী নিপা সুলতানা নুপুর এবং শহীদ উল্লাহর ব্যক্তিগত সহকারী মোবারককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ওই মামলায় শহীদ উল্লাহকে রিমান্ডে নিয়ে ইতোমধ্যে জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়েছে। গোয়েন্দা পুলিশ মামলাটির তদন্ত করছে।

উল্লেখ্য, শেয়ার ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ মালিকপক্ষের বিরুদ্ধে পল্টন মডেল থানায় এ পর্যন্ত ১৭টি মামলা দায়ের করেছেন বিনিয়োগকারীরা।

সূত্র : আমাদের সময়
এন এইচ, ২৮ জুলাই

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে