Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ১৪ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-২৮-২০২০

মাদারীপুরে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত, বেড়েছে পানিবন্দির সংখ্যা

মাদারীপুরে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত, বেড়েছে পানিবন্দির সংখ্যা

মাদারীপুর, ২৮ জুলাই - প্রবল বর্ষণ ও নদীর পানি বেড়ে মাদারীপুরের ৪টি উপজেলার নিম্নাঞ্চলে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়েছে।  বেড়েছে পানিবন্দির সংখ্যা।  জেলার ৩৫ ইউনিয়ন ও এক পৌরসভায় পানিবন্দি হয়ে পড়েছে প্রায় ৩৫ হাজার পরিবার।

বন্যা পানিতে তলিয়ে গেছে ইতোমধ্যেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বসত বাড়ি, ফসলি জমি ও রাস্তাঘাট।  ঘরবাড়ি পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছে নিম্ন আয়ের মানুষ।

গত এক সপ্তাহ ধরে বন্যার পানিতে তলিয়ে আছে শিবচর উপজেলার পদ্মা পাড় সংলগ্ন ইউনিয়নগুলো।  নতুন করে বন্যার পানি জেলার বাকি ৩টি উপজেলায়ও ছড়িয়ে পড়ছে।

সোমবার (২৭ জুলাই) মাওয়া পয়েন্টে পদ্মা নদীর পানি প্রবাহ ছিল বিপৎসীমার ৭১ সেন্টিমিটার উপরে।  ফলে শিবচরের পদ্মা ও আড়িয়াল খা এবং মাদারীপুর শহর সংলগ্ন আড়িয়াল খাঁর পানি প্রবাহও ছিল বিপৎসীমার ওপর দিয়ে হচ্ছে।

আরও পড়ুন: ভয়ংকর হয়ে উঠছে পদ্মা

শিবচরের পদ্মাবেষ্টিত চরাঞ্চলের বন্দরখোলা, কাঁঠালবাড়ি, চরজানাজাত, মাদবরেরচর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে বন্যা ব্যাপক আকার ধারণ করেছে।  এছাড়া কুমার ও আঁড়িয়াল খা নদের পানি বৃদ্ধির ফলে রাজৈর উপজেলার কবিরাজপুর, ইশিবপুর, বদরপাশা ইউনিয়ন ও মাদারীপুর সদর উপজেলার ধুরাইল, বাহাদুরপুর, শিরখাড়া, ছিলারচর, পাঁচখোলা, কালিকাপুর, খোয়াজপুর, মস্তফাপুর, পেয়ারপুর, ইউনিয়ন প্লাবিত হয়েছে।  কালকিনি উপজেলার লক্ষ্মীপুর, বাঁশগাড়ী, সাহেবরামপুরসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন বন্যা কবলিত হয়েছে।  বন্যা কবলিত ইউনিয়নের বিস্তীর্ণ এলাকার ঘরবাড়ি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, রাস্তাঘাট পানিতে তলিয়ে গেছে।  অনেক স্থানে নদী বাঁধ ও কাঁচাপাকা সড়ক ভেঙে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে।  এ সকল এলাকার বসতবাড়ী উঠান তলিয়ে যাওয়া ঝুঁকির মুখে পড়েছে শিশু, বৃদ্ধ, ও গৃহপালিত পশু।

রাজৈর উপজেলার ইশিবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ফায়েজুর রহমান হিরু জানান, বাড়িঘরে পানি প্রবেশ করায় লুন্দি মালেক মিয়া মেমোরিয়াল উচ্চবিদ্যালয়ে ইতোমধ্যে ২০টি পরিবার আশ্রয় নিয়েছে।  উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহানা নাসরিন বন্যা কবলিত ইশিবপুর ইউনিয়নের আশ্রয় কেন্দ্রটিসহ বেশ কয়েকটি পরিদর্শন করেছেন।

জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন জানান, মাদারীপুরে বন্যায় ৩৩,৭০০ পরিবার ও নদী ভাঙ্গনে ৯৮২টি পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।  ৩৫ ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে।  সরকারিভাবে আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে ১৮টি।  সর্ব মোট ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ হবে প্রায় ৯০ হাজার।  বন্যার পানি ও নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।  আগামীতে আরো ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হবে।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এন এইচ, ২৮ জুলাই

মাদারীপুর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে