Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ১৪ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-২৭-২০২০

গুরুদোয়ারাকে মসজিদে পরিণত করছে পাকিস্তান, তীব্র প্রতিবাদ ভারতের

গুরুদোয়ারাকে মসজিদে পরিণত করছে পাকিস্তান, তীব্র প্রতিবাদ ভারতের

ইসলামাবাদ, ২৮ জুলাই- বিখ্যাত গুরুদোয়ারাকে রূপান্তরিত করা হচ্ছে মসজিদে। তাই তীব্র প্রতিবাদ জানাল ভারত। লাহোরের একটি বিখ্যাত গুরুদোয়ারাকে মসজিদে পরিণত করা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

ভারতের বিদেশমন্ত্রক সূত্রের খবর, ভারতের তরফে পাকিস্তান হাইকমিশনের কাছে এদিন প্রবল প্রতিবাদ জানানো হয়েছে, পাকিস্তানে গুরুদ্বারকে মসজিদে রূপান্তর করার ঘটনা নিয়ে।

শিখ ধর্মের ভাই তারু সিংজি শহিদ হন বর্তমান পাকিস্তানের লাহোরের নউলাখা বাজারের কাছে একটি এলাকায়। সেই এলাকাতেই গড়ে ওঠে শিখ ধর্মীয় স্থান গুরুদ্বার শাহিদি স্থান। জানা গিয়েছে, পাকিস্তান সেখানে এলাকার নামকরণ করেছে মসজিদ শাহিদগঞ্জ। সেখানেই গুরুদোয়ারাকে মসজিদে রূপান্তরের চেষ্টা হচ্ছে।

এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই সেখানকার সংখ্যালঘু শিখ সম্প্রদায় প্রতিবাদ জানায়। পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কাছে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার আর্জিও জানিয়েছেন তাঁরা।

ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র জানিয়েছেন, পাকিস্তানকে সেদেশের সংখ্যালঘুদের অধিকার, নিরাপত্তা রক্ষার দাবি জানিয়েছে ভারত। তাঁদের ধর্মীয় ঐতিহ্য রক্ষার কথাও জানিয়েছে ভারত।

 
কয়েকদিন আগে একটি বুদ্ধ মূর্তি ভাঙার অভিযোগ ওঠে পাকিস্তানে। ইসলাম বিরোধী বলে ওই মূর্তি ভাঙা হয় বলে অভিযোগ। বাড়ি তৈরির জন্য ভিত তৈরি করতে গিয়ে মাটির তলা থেকে বেরিয়ে আসে বুদ্ধ মূর্তি। আর সেই মূর্তিই ভেঙে ফেলে পাকিস্তানের শ্রমিকেরা। এই ঘটনার ভিডিও আগেই ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

আরও পড়ুন:  রামভক্ত মুসলিম যুবক! ৮০০ কিমি হাঁটছেন ভূমিপূজোয় যোগ দিতে

পাকিস্তানে খাইবার পাখতুনখোয়ায় এই ঘটনা ঘটেছে। একটি বাড়ির ভিত খুঁড়তে গিয়ে বুদ্ধ মূর্তিটি খুঁজে পায় স্থানীয় নির্মাণ কর্মীরা। কিন্তু এই মূর্তি ইসলাম বিরোধী, এই কথা বলে সেটিকে ধ্বংস করে দিয়েছে তারা।

খাইবার পাখতুনখোয়া জেলার মর্দনে তখত ভাই এলাকায় পাওয়া যায় সেই মূর্তি। এই মূর্তি ইসলাম বিরোধী বলে সেটিকে ধ্বংস করে দিয়েছে তারা, এমনটাই দেখা যাচ্ছে ই ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে।

অভিযোগ উঠেছে নির্মাণ কাজের সঙ্গে যুক্ত কন্ট্র্যাকটর কোনও এক মৌলবীর পরামর্শে এই কাজ করেছিল। মৌলবীর বক্তব্য, ওই মূর্তি থাকলে ভয়ঙ্কর ক্ষতি হতে পারে, ফলে ভয় পেয়ে কন্ট্র্যাকটরটি মূর্তিটি ধ্বংস করে দিয়েছে বলে অভিযোগ।

পরিবহণ মন্ত্রক জানিয়েছে যে প্রশাসন এই ঘটনার খবর পেয়েছে ও তদন্ত করে দেখা হয়েছে। আর্কিওলজি বিভাগের ডিরেক্টর আবদুল সামাদ বলেছেন যে এই ঘটনার সঙ্গে যারা যুক্ত, তাদের যোগ্য শাস্তি দেওয়া হবে। তিনি জানান খুব দ্রুতই অপরাধীদের গ্রেফতার করা হবে। কোন অঞ্চলে এই তাণ্ডব হয়েছে সেটি ভিডিও দেখে তারা শনাক্ত করে ফেলেছেন বলে জানান সামাদ।

সূত্র: কলকাতা২৪x৭

আর/০৮:১৪/২৮ জুলাই

দক্ষিণ এশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে