Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ৬ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 2.8/5 (18 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-২৩-২০২০

করোনায় সংকটজনক রোগীদের বিনামূল্যে রেমডিসিভির দেবে রাজ্য

করোনায় সংকটজনক রোগীদের বিনামূল্যে রেমডিসিভির দেবে রাজ্য

কলকাতা, ২৪ জুলাই- করোনার চিকিৎসায় এবার রেমডিসিভিরের মতো দামি ইঞ্জেকশন সম্পূর্ণ বিনা পয়সায় দেবে রাজ্য সরকার। সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করোনা রোগীদের এই ইঞ্জেকশন দেওয়া হবে। সেন্ট্রাল মেডিক্যাল স্টোর্স সূত্রের খবর, সরকারের এক-একটি রেমডিসিভির ইঞ্জেকশন কিনতে খরচ পড়ছে ৪৫০০ টাকা। কিন্তু রোগীদের সেটা দেওয়া হচ্ছে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে।

ইতিমধ্যেই কোভিড হাসপাতালে রেমডিসিভির সরবরাহ শুরু হয়েছে। সোমবার প্রথম পেয়েছে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ। তারপর বেলেঘাটা আইডি এবং এম আর বাঙ্গুর হাসপাতাল। প্রতিটি হাসপাতাল ১০টি করে ১০০ মিলিগ্রামের রেমডিসিভির ইঞ্জেকশন পেয়েছে। সরকার প্রথম লপ্তে ২০০ ভায়াল ইঞ্জেকশনের বরাত দিয়েছে। প্রয়োজনে আরও কেনা হবে।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, হাসপাতালে ভর্তি মাঝারি উপসর্গ থাকা এবং আশঙ্কাজনক করোনা রোগীদের এই অ্যান্টি-ভাইরাল ইঞ্জেকশন দেওয়া হচ্ছে। বিশেষত যাঁদের অক্সিজেন থেরাপি বা ভেন্টিলেশন চলছে, তাঁদেরকেই অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে।

কোভিড আক্রান্তদের চিকিৎসায় কিছু ওষুধ ব্যবহার করে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভাল ফল পাওয়া গিয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে রেমডিসিভির। বলে রাখি, করোনা চিকিৎসায় বিশ্বে যে ৭০ রকম ওষুধের সলিডারিটি ট্রায়াল চলছে তার মধ্যে প্রথমের সারিতেই রয়েছে গিলিয়েড সায়েন্সেসের বানানো অ্যান্টি-ভাইরাল এই ওষুধ।

এদিকে, দেশের বিভিন্ন বড় শহরে খোলা বাজারে রেমডিসিভিরের কালোবাজারি অবিলম্বে বন্ধ করতে সবক’টি রাজ্যের ড্রাগ কন্ট্রোলারকে চিঠি পাঠিয়েছেন ওষুধ সংক্রান্ত বিষয়ে কেন্দ্রীয় শীর্ষকর্তা তথা ড্রাগস কন্ট্রোলার জেনারেল, ইন্ডিয়া ডঃ ভি জে সোমানি। চিঠিতে তিনি জানিয়েছেন, কোনওভাবেই সর্বোচ্চ খুচরো মূল্যের (এমআরপি) বেশি দামে যেন রেমডিসিভির বিক্রি করা না হয়।

আরও পড়ুন : বিয়ের জন্য পারিবারিক চাপ, সুইসাইড নোটে হতাশার কথা লিখে আত্মঘাতী জুনিয়র চিকিৎসক

অন্যদিকে, বাংলায় একদিনে আক্রান্ত প্রায় আড়াই হাজার৷ গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ৩৪ জনের৷ একদিনের হিসেবে মৃতের সংখ্যা কমলেও, বেড়েছে আক্রান্তের সংখ্যা৷ টেস্ট বাড়াতেই বেড়েছে আক্রান্তের সংখ্যা৷ এমনটাই দাবি, রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের৷ বৃহস্পতিবারের তথ্য অনুযায়ী, একদিনে ১৪ হাজার ৫৫৮টি টেস্ট হয়েছে৷

এছাড়া বাংলা একদিনে সুস্থ হয়ে উঠার সর্বোচ্চ রেকর্ড করে ফেলল৷ গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়ে উঠার সংখ্যাটা ২০০০ ছাড়াল৷ বৃহস্পতিবার রাজ্য স্বাস্থ্য ভবনের বুলেটিনের তথ্য অনুযায়ী, একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা ২ হাজার ৪৩৬ জন৷ গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল ২ হাজার ২৯১ জনে৷ কিন্তু এই পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫১ হাজার ৭৫৭ জন৷ তবে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যা ১৮ হাজার ৮৪৬ জন৷

একদিনে বেড়েছে ৩৯৬ জন৷ বাংলায় একদিনে বাড়ল সুস্থ হয়ে উঠার হার৷ একদিনে রাজ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ২ হাজার ৬ জন৷

সূত্র: কলকাতা২৪x৭

আর/০৮:১৪/২৪ জুলাই

পশ্চিমবঙ্গ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে