Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ১০ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 2.5/5 (4 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-১৮-২০২০

এ টি এম আজহারের রিভিউ আবেদন প্রস্তুত, জমা যেকোনো সময়

এ টি এম আজহারের রিভিউ আবেদন প্রস্তুত, জমা যেকোনো সময়

ঢাকা, ১৯ জুলাই- মৃত্যুদণ্ডের সাজা পুনর্বিবেচনা বা বাতিল চেয়ে জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল এ টি এম আজহারুল ইসলামের রিভিউ আবেদন প্রস্তুত করেছেন তার আইনজীবীরা। ১৪টি যুক্তিতে এ রিভিউ আবেদন প্রস্তুত করা হয়েছে। আগামীকাল রবিবার এ রিভিউ আবেদন দাখিল করা হতে পারে।

এ বিষয়ে এ টি এম আজহারুল ইসলামের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ শিশির মনির আজ শনিবার কালের কণ্ঠকে বলেন, আপিল বিভাগের রায়ের সত্যায়িত অনুলিপি পাওয়া যায়নি। তার পরও ১৪টি যুক্তিতে রিভিউ আবেদন প্রস্তুত করা হয়েছে। রায়ের সত্যায়িত অনুলিপি পাওয়া সাপেক্ষে আগামীকাল রবিবার রিভিউ আবেদন দাখিল করা হবে।

একাত্তরে স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধে এ টি এম আজহারের ফাঁসির দণ্ড বহালের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয় গত ১৫ মার্চ। এই রায় শোনার পর গত ২১ মার্চ তার আইনজীবীদের রিভিউ আবেদন করার নির্দেশনা দেন। নিয়ম অনুযায়ী ১৬ মার্চ থেকে ১৫ দিনের রিভিউ আবেদন দাখিল করার সময় গণনা শুরু হয়। এই হিসাবে রিভিউ আবেদন করার সর্বশেষ সময় ছিল ৩০ মার্চ। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টে অবকাশকালীন ছুটি থাকায় এবং করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে গত ২৬ মার্চ থেকে সুপ্রিম কোর্টসহ সারা দেশে নিয়মিত আদালত বন্ধ হয়ে যায়। ফলে নির্ধারিত ১৫ দিন সময়ের মধ্যে রিভিউ আবেদন দাখিল করা যায়নি। এ অবস্থায় তামাদি আইনের সুযোগ নিয়ে আদালত খোলার প্রথম দিনটিকে শেষদিন হিসেবে ধরে নিয়ে আগামীকাল রবিবার এ টি এম আজহারুল ইসলামের আইনজীবীদের রিভিউ আবেদন দাখিল করতে হবে। যদিও আইনে আরো একটি সুযোগ রয়েছে। তা হলো, রায়ের সত্যায়িত অনুলিপি পাওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে রিভিউ আবেদন দাখিল করার সুযোগ রয়েছে। এই সুযোগটিই নিতে চাচ্ছেন আজহারের আইনজীবীরা। যদিও তাঁরা ১৪টি যুক্তিতে রিভিউ আবেদন প্রস্তুত করে রেখেছেন। রায়ের অনুলিপি না পেলেও আদালতের নির্দেশনা পেলেই রিভিউ আবেদন দাখিল করবেন তাঁরা।

একাত্তরে স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় সংঘটিত গণহত্যা, ধর্ষণ, লুটপাট, অগ্নিসংযোগসহ বিভিন্ন মানবতাবিরোধী অপরাধে ২০১৪ সালের ৩০ ডিসেম্বর এক রায়ে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। এ রায়ের বিরুদ্ধে ২০১৫ সালের ২৮ জানুয়ারি আপিল করেন আজহার। এই আপিলের ওপর শুনানি শেষে গত বছরের ৩১ অক্টোবর আপিল বিভাগ মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন। গত ১৫ মার্চ পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়। ওই দিনই এর কপি আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়। ১৬ মার্চ ট্রাইব্যুনাল এ টি এম আজহারের বিরুদ্ধে মৃত্যুপরোয়ানা জারি করেন। কাসিমপুর কারাগারে বন্দি এ টি এম আজহারুল ইসলামকে মৃত্যুপরোয়ানা পড়ে শোনানো হয়। এ মামলায় ট্রাইব্যুনালের আদেশে ২০১২ সালের ২২ আগস্ট আজহারকে গ্রেপ্তারের পর থেকে তিনি কারাবন্দি। 

সূত্র: কালের কন্ঠ

আর/০৮:১৪/১৯ জুলাই

আইন-আদালত

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে