Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট, ২০২০ , ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-০৫-২০২০

মাদক বিক্রিতে অসম্মতি, স্ত্রীর চোখ উপড়ে ফেললেন স্বামী!

কাজল আর্য


মাদক বিক্রিতে অসম্মতি, স্ত্রীর চোখ উপড়ে ফেললেন স্বামী!

টাঙ্গাইল, ০৫ জুলাই - টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলায় রাতের আধারে সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে স্ত্রীর চোখ উপড়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে ফারুক হোসাইন (২২) নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে।

আজ রোববার ভোরে উপজেলার মাইস্তা দড়িপাড়া গ্রামে ভুক্তভোগীর বাবার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। আহত আঁখি আক্তারকে (১৮) উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

আঁখি আক্তারের চাচা খোকন মিয়া জানান, মির্জাপুর উপজেলার বুসুন্দী গ্রামের আবদুর রহমানের ছেলে ফারুক হোসাইনের সঙ্গে আঁখির বিয়ে হয়। তাদের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। ফারুকের বাবা বিদেশ থাকায় তিনি মাদক সেবন এবং ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েন। ফারুক তার স্ত্রী আঁখি আক্তারকেও মাদক বিক্রি করতে বললে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়।

একপর্যায়ে আখি তার বাবার বাড়ি চলে আসেন। পরবর্তীতে সালিসের মাধ্যমে আঁখিকে ফারুকের বাড়ি পাঠানো হয়। কিন্তু তারপরও ফারুক স্ত্রীকে মাদক বিক্রি করতে বললে আঁখি রাজি না হওয়ায় তাদের মধ্যে একাধিকবার ঝগড়া হয়। এর জেরে বছর খানেক আগে তিনি ফারুককে ছেড়ে বাবার বাড়ি চলে আসেন। এরপর তিনি গাজীপুরে পোশাক কারখানায় চাকরি নেন। সেখানেও তাকে ফোন করে চোখ উপড়ে ফেলাসহ প্রাণনাশের হুমকি দেন ফারুক। গত রমজান মাসে ফারুক আঁখির গাজীপুরের বাসায় গিয়ে ছুরি দিয়ে তাকে আহত করেন। ওই ঘটনায় গাজীপুর সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়। পরে আঁখি বাবার বাড়ি কালিহাতিতে এসে বসবাস শুরু করেন।

এসব ঘটনার জেরে রোববার ভোরে সিঁধ কেটে আঁখিদের ঘরে প্রবেশ করেন ফারুক। এরপর কাঁচি দিয়ে আখির চোখে আঘাত করে পালিয়ে যান তিনি। এ সময় আঁখির চিৎকারে তার বাবার বাড়ির লোকজন ছুটে এসে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘ফারুক হোসাইন মাদক সেবন ও মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। মাদক বিক্রি নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর সাথে ঝগড়ার সৃষ্টি হয়। আঁখির চোখ উপড়ে ফেলে স্বামী পালিয়ে গেছে। এ ন্যাক্কারজনক ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া উচিত।’

কালিহাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান আল মামুন বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের এসআই ফজলুল হক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এদিকে ঘটনার বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত ফারুকের মোবাইলে একাধিকবার কল করলে তার নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়।

সুত্র : আমাদের সময়
এন এ/ ০৫ জুলাই

টাঙ্গাইল

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে